Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৬ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-১৮-২০১৯

সেনাবাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ৩৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ

হারুন অর রশিদ


সেনাবাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ৩৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ

পঞ্চগড়, ১৮ আগস্ট - পঞ্চগড়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বেসামরিক পদে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ৭ যুবকের কাছ থেকে ৩৩ লাখ হাতিয়ে নেওয়া সেই সোহাগ রানাকে (২০) আটক করে স্থানীয়রা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন।

শনিবার (১৭ আগস্ট) রাতে সদর উপজেলার হাড়িভাসা বাজার থেকে তাকে আটক করা হয়। তার বাবা ফরিদুল ইসলাম এখনো পলাতক। সোহাগ রানার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের নাককাটি এলাকায়। আটক সোহাগ রানাকে রোববার (১৮ আগস্ট) আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফরিদুল ইসলাম ও তার ছেলে সোহাগ রানা সেনাবাহিনীতে বেসামরিক পদে লোক নিয়োগের জন্য হাড়িভাসা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের সাত যুবকের কাছ থেকে প্রায় ৩৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। তাদের হাতে ধরিয়ে দেয়া হয় ভুয়া নিয়োগপত্র। বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর থেকে লাপাত্তা হয়ে যায় বাবা ছেলে। ঈদুল আযহায় বাবা ও ছেলে বাড়িতে আসলে তাদের আটক করে স্থানীয়রা। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য বিষয়টি মিমংশা করে দেয়ার দায়িত্ব নেন।

কিন্তু শেষমেষ তিনি কিছু করতে পারেননি। গত শনিবার রাতে সোহাগ রানাকে হাড়িভাসা বাজারে দেখতে পেয়ে আবারও পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পঞ্চগড় থানা পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২০ ফেব্রুয়ারি ফরিদুল ইসলাম ও সোহাগ রানা একই ইউনিয়নের সালটিয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল গোফ্ফারের ছেলে সৌরভ হোসেনকে সেনাবাহিনীর বেসামরিক পদে চাকুরি দেয়ার জন্য ৫ লাখ টাকা চুক্তি করে। চাকুরির নিয়োগ পত্র পাবার পর বাকি টাকা পরিশোধ করার শর্তে এ সময় ৫০ হাজার টাকা নগদও নেন তারা। টাকা নেয়ার ১৫/২০ দিন পর সৌরভকে ঢাকায় নিয়ে এসে একটি বাড়িতে রাখা হয়।

গত মার্চ মাসে ঢাকা সেনানিবাসের পার্শ্বস্থ কচুক্ষেত এলাকায় সোহাগ রানা একটি কালো গ্লাসের মাইক্রোবাসে এসে একটি নিয়োগপত্র সৌরভের হাতে ধরিয়ে দেয়। কিন্তু ওই নিয়োগপত্রে ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখের মধ্যে চাকুরিতে যোগদান করার কথা উল্লেখ করা হয়। যোগদানের তারিখ শেষ হয়ে যাবার কথা ফরিদুল ইসলাম ও সোহাগ রানাকে জানানো হলে তারা সৌরভকে কয়েকদিন পর এসএমএসের মাধ্যমে ২৮ মার্চ ২০১৯ তারিখে যোগদান করার কথা জানায়। পরে সৌরভ জানতে পারে ফরিদুল ইসলাম ও তার ছেলে সোহাগ রানা প্রতারণা করে চাকুরি দেয়ার নামে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদান করে ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে। পরবর্তিতে ওই টাকা চাইতে গেলে তারা বিভিন্নভা বে সময়ক্ষেপন করে। গত রোববার সৌরভের বাবা আব্দুল গোফ্ফার সোহাগ রানা ও ফরিদুল ইসলামকে আসামি করে পঞ্চগড় থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পঞ্চগড় থানার উপ পরিদর্শক একরাম আলী জানান, প্রতারণার অভিযোগে আটক সোহাগ রানাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ
এন এইচ, ১৮ আগস্ট.

পঞ্চগড়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে