Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯ , ৬ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৮-১২-২০১৯

ঈদে ঢাকার ২০ লাখ মানুষের যাওয়ার জায়গা নেই

ঈদে ঢাকার ২০ লাখ মানুষের যাওয়ার জায়গা নেই

ঢাকা, ১২ আগস্ট- মুসলিম প্রধান দেশ বাংলাদেশে প্রধান দুই ধর্মীয় উৎসবে প্রায় দুই কোটি মানুষের ঢাকা অনেকটাই ফাঁকা হয়ে যায়। বেশির ভাগ লোকই ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহায় ছোটেন নিজ বাড়িতে। নিজ বাড়ি বলতে তাদের গ্রামের বাড়িতে। যেখানে তাদের মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজন বা পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা থাকেন। ঢাকা শহরে যারা থাকেন তাদের শতকরা ৬০ ভাগই জন্ম নিয়েছেন গ্রামে।

বরাবরের মতো এবারও একই চিত্র রাজধানী ঢাকায়। এবার ঈদেও ঢাকা ছেড়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। সারা ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের পরেও এ সংখ্যার তেমন হের ফের হয়নি গতবারের তুলনায়।

নগর বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম মতে, চাকরি, ব্যবসাসহ নানান কারণে ঢাকায় আসে মানুষ। আর তারা সাধারণ ঈদের ছুটিতে গ্রামে ছুটে যান পরিবারের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে। আর এসব লোক গ্রামকেই তাদের আসল ঠিকানা মনে করেন। ঢাকা এনাদের অধিকাংশের ঘড়-বাড়ি নেই। থাকেন ভাড়া।

তিনি বলেন, ঢাকা ও গ্রামে দু জায়গাতেই ঘরবাড়ি আছে এমন লোকের সংখ্যা কম। একটা শ্রেণি আবার আছে, যাদের কোন গ্রামে বা ঢাকায় কোথাও কোন ঘরবাড়ি নেই। তারা ঢাকায় এসেছেন কর্মের সন্ধানে। নদীভাঙনের বা অন্য কোন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন এই শ্রেণির অধিকাংশই। দারিদ্রে কারণে তারা ঢাকায় এসে থাকে বস্তিতে। ঈদেও তারা ঢাকা ছেড়ে যাননা। কারণ তাদের যাওয়ার কোন যায়গা নেই। এ ধরণের লোকের সংখ্যা প্রায় ২০ লাখের মতো।

অন্যদিকে যারা উচ্চবিত্র ও মধ্যবিত্ত আর অনেক বছর ধরে ঢাকায় থাকেন তারাও থাকেন ঢাকায়। তাদের অনেকের হয়তো ঢাকাতে বাড়িঘর রয়েছে। অনেকের আত্মীয় স্বজনও রয়েছেন ঢাকায়, যোগ করেন অধ্যাপক নজরুল।

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্সের সাধারণ সম্পাদক ও নগর পরিকল্পনা বিশেষজ্ঞ ড. আদিল মোহাম্মদ খান বলেন, আমরা নানাভাবে দেখেছি ঢাকা শহরে ভবনের মালিকানা আছে এরকম মানুষের সংখ্যা ১০ থেকে ১৫ ভাগের মত৷ কোনো পরিসংখ্যানই শতকরা ২০ ভাগের বেশি যায় না। বাকিরা এখানে ভাড়া থাকেন। সরকারি হিসেবে ১১ লাখ হলেও বাস্তবে ঢাকায় এখন ৫০ লাখ লোক বস্তিতে থাকেন। তাদের মধ্যে কমপক্ষে ২০ লাখের আসলে কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই। তারা বাস্তুচ্যুত হয়ে এই শহরে বসবাস করছেন। আর বস্তির প্যাটার্ন পরিবর্তন হওয়ায় এটা নিয়ে কিছুটা বিভ্রান্তি আছে। এখন প্রচুর টিনশেড বা সেমিপাকা বস্তিও আছে। এইসব পরিসংখ্যান বিচেনায় নিলে ঢাকায় বাড়ির মালিকানা নিয়ে স্থায়ী বাসিন্দা অছেন কম। এই সংখ্যা কোনোভবেই ৩৫-৪০ লাখের বেশি হবে না।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ
এনইউ / ১২ আগস্ট

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে