Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ৮ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-০৭-২০১৯

খুলনা রেলস্টেশনে টিকিট কালোবাজারে বিক্রির প্রমাণ পেয়েছে দুদক

খুলনা রেলস্টেশনে টিকিট কালোবাজারে বিক্রির প্রমাণ পেয়েছে দুদক

খুলনা, ০৭ আগস্ট- খুলনা রেলস্টেশনে অভিযান চালিয়ে অনিয়ম-দুর্নীতির প্রমাণ পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বুধবার দুপুরে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় ঈদের ট্রেনের ফিরতি টিকিট কালোবাজারে বিক্রি এবং পেনশনের টাকা দেওয়ার সময় স্টেশন মাস্টারের উৎকোচ গ্রহণের প্রমাণ পায় দুদক।

দুদকের খুলনা জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের উপপরিচালক নাজমুল হাসান জানান, কালোবাজারে ট্রেনের টিকিট বিক্রি ও যাত্রীদের হয়রানি করাসহ বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে খুলনা রেলস্টেশনে অভিযান চালানো হয়। সার্ভার রুমে গিয়ে তারা দেখতে পান, কালোবাজারে অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রির জন্য ১৪ আগস্টের ঈদের ফিরতি ট্রেনের ২৪২টি টিকিট কম্পিউটারের সার্ভারে ব্লক করে রাখা আছে। আরও কয়েকটি ট্রেনের টিকিট এভাবে ব্লক করে রাখার প্রমাণ পাওয়া যায়। জিজ্ঞাসা করলে রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানান, টিকিট কাউন্টারের প্রধান বুকিং সহকারী মেহেদী হাসান ওই টিকিটগুলো ভিআইপিদের জন্য ব্লক করে রাখেন। দুদকের অভিযান টের পেয়ে তিনি পালিয়ে যান। পরে স্টেশন মাস্টারের মাধ্যমে তাকে ডেকে আনা হয়। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য স্টেশন মাস্টার মুচলেকা দিয়েছেন।

উপপরিচালক আরও জানান, অবসরে যাওয়া কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেনশন দেওয়ার সময় তাদের কাছ থেকে স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার উৎকোচ নেন বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। প্রতিজন স্টেশন মাস্টারকে ১০০ টাকা করে না দিলে তার পেনশন আটকিয়ে রাখেন।

তিনি আরও জানান, স্টেশন মাস্টারের ব্যক্তিগত কয়েকটি ব্যাংক হিসাবের তথ্য পাওয়া গেছে। তাতে যে টাকা আছে তা তার বেতনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্তের জন্য দুদকের প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন চাওয়া হবে।

সূত্র: সমকাল
এনইউ / ০৭ আগস্ট

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে