Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৫ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-২১-২০১৯

‘নুসরাতের সম্ভ্রম বাঁচাতে নিজের পাঞ্জাবি খুলে দিই

‘নুসরাতের সম্ভ্রম বাঁচাতে নিজের পাঞ্জাবি খুলে দিই

ফেনী, ২১ জুলাই- ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফির সম্ভ্রম রক্ষায় পরীক্ষার হলে বসেই নিজের পাঞ্জাবি খুলে তাকে দিয়েছিলেন এক সহপাঠী। মোহাম্মদ আকবর নামের ওই শিক্ষার্থীও ছিলেন আলিম পরীক্ষার্থী।

রোববার আদালতে সাক্ষ্য দেওয়ার সময় এ তথ্য জানান আকবর। ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে এদিন চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষ হয়। আদালত সোমবার আরও পাঁচ সাক্ষীকে হাজির রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

রোববার সকালে নুসরাত হত্যার ১৬ আসামিকে ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে হাজির করা হয়। প্রথমে সাক্ষ্য দেন নুসরাতের সহপাঠী তাহমিনা আক্তার। তিনি আদালতে বলেন, হলে পরীক্ষার খাতা বিতরণের কিছুক্ষণ পর আসামি কামরুন নাহার মনি প্রবেশ করে। তার একটু পরেই আগুন আগুন, বাঁচাও বাঁচাও বলে নুসরাত সিঁড়ি দিয়ে নামতে থাকেন।

আকবর আদালতকে বলেন, চিৎকার শুনে তিনি নুসরাতের কাছে গিয়ে দেখতে পান তার শরীরের কাপড় পুড়ে গেছে। তখন যার কাছে যা ছিল তাই নুসরাতের গায়ে জড়িয়ে দেওয়া হয়। তিনি তার গায়ের পাঞ্জাবি খুলে নুসরাতকে দেন। 

এরপর সাক্ষ্য দেন মাদ্রাসাছাত্রী বিবি হাজেরা ও আবু বক্কর সিদ্দিক।

সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি পক্ষের আইনজীবীরা সাক্ষীদের জেরা করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি হাফেজ আহাম্মদ জানান, আদালত সোমবার পুলিশ সদস্য রাসেল হোসেন, সোনাগাজী মডেল থানার জব্দ তালিকা প্রস্তুতকারী জহির রায়হান, আজহারুল ইসলাম এমরান, ওমর ফারুক, সোনাগাজী মডেল থানার এএসআই আরিফুর রহমানকে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য হাজির থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

গত ৬ এপ্রিল সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ মামলার রোববার পর্যন্ত ৩২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে।

সূত্র: সমকাল
এনইউ / ২১ জুলাই

ফেনী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে