Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-১৮-২০১৯

হজে যেতে সেই সাবেক এমপিকে আদালতের অনুমতি

হজে যেতে সেই সাবেক এমপিকে আদালতের অনুমতি

টাঙ্গাইল, ১৮ জুলাই- টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সাবেক এমপি আমানুর রহমান খান রানাকে হজে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারু হত্যা মামলার প্রধান আসামি রানা বৃহস্পতিবার এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন আদালতে হাজির হয়ে হজে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করেন।

দীর্ঘ ৩৪ মাস কারাগারে থাকার পর আমানুর গত ৯ জুলাই জামিনে মুক্তি পান। জামিন পাওয়ার পর মুক্ত অবস্থায় এই প্রথম তিনি ফারুক হত্যা মামলায বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির হলেন। টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত সরকারি কৌশুলী (পিপি) মহসিন সিকদার জানান, টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ফারুক আহমেদ হত্যা মামলার ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক মোজাম্মেল হোসেন সাক্ষ্য প্রদান করেন। এর পর আসামি পক্ষের আইনজীবীরা তাকে জেরা করেন।

এ নিয়ে এই মামলার ১৮ জনের সাক্ষী প্রদান সম্পন্ন হলো। চিকিৎসকের সাক্ষ্য প্রদানের পর রানা আইনজীবীর মাধ্যমে হজব্রত পালনের জন্য সৌদি আরব যাওয়ার অনুমতি প্রার্থনা করে আবেদন দাখিল করেন। পরে আদালতের বিচারক রাশেদ কবির রানার হজে যাওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেন।

দীর্ঘ ২২ মাস পলাতক থাকার পর রানা ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর এই আদালতেই আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

পরে ফারুক হত্যা মামলায় গত মার্চে এবং এ মাসেই দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন লাভের পর গত ৯ জুলাই তিনি মুক্তি পান।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক আহমদের গুলিবিদ্ধ লাশ তার কলেজপাড়া এলাকার বাসার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনার তিনদিন পর তার স্ত্রী নাহার আহমেদ বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

২০১৪ সালের আগস্টে গোয়েন্দা পুলিশের তদন্তে এই হত্যায় রানা ও তার ভাইদের নাম বের হয়ে আসে। ২০১৬ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় গোয়েন্দা পুলিশ।

এই মামলায় আমানুর ছাড়াও তার তিন ভাই টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পাসহ ১৪ জন আসামি রয়েছে। 

সূত্র: যুগান্তর
এনইউ / ১৮ জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে