Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯ , ২৮ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (6 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-১৮-২০১৯

নুসরাতের আলিমের ফল কাঁদাল শিক্ষক ও সহপাঠীদের

নুসরাতের আলিমের ফল কাঁদাল শিক্ষক ও সহপাঠীদের

ফেনী, ১৮ জুলাই- গতকাল বুধবার এইচএসসি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের আলিম পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। আলিম পরীক্ষায় মাত্র দুটিতে অংশ নিতে পেরেছিল অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি।

ফল বিবরণীতে দেখা গেছে, কোরআন মাজিদ, হাদিস ও উসুলে হাদিস পরীক্ষায় নুসরাত জাহান রাফি ‘এ’ গ্রেড পেয়েছে।

এ ফল প্রকাশের পর নুসরাতের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় আনন্দের বদলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এদিন ওই মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা নুসরাতের কথা স্মরণ করে শোকাভিভূত হয়ে পড়েন। পরীক্ষায় ভালো করেও তা উদযাপন করেননি তারা। কান্নার রোল পড়ে যায় নুসরাতের সহপাঠীদের মধ্যে। শিক্ষার্থীদের কান্না দেখে শিক্ষকরাও আবেগাপ্লুত হন।

দুটি পরীক্ষা দেয়ার পর এ বছরের ৬ এপ্রিল তৃতীয় পরীক্ষা দিতে গিয়ে অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার নির্দেশে দুর্বৃত্তরা নুসরাতের গায়ে আগুন লাগায়। এতে দগ্ধ হলে পাঁচ দিন পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

দেশ কাঁপানো সেই নির্মম ঘটনা স্মরণ করে পরীক্ষার ফল জানতে আসা শিক্ষার্থীদের কেউ কেউ কান্নায় ভেঙে পড়েন। শিক্ষকদের চোখও অশ্রুসজল হয়।

ফল জানতে এসে নুসরাতের কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন তার ঘনিষ্ঠ বান্ধবী নিশাত সুলতানা, সহপাঠী তামান্না, নাসরিন সুলতানা।

নিশাত সুলতানা বলেন, আমাদের মতো তারও আনন্দিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে আমাদের মাঝে নেই। কল্পনাই করিনি এই দিনটি নুসরাতকে ছাড়া কাটাতে হবে আমাদের। আমরা কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছি। কিন্তু আমাদের মধ্যে কোনো সহপাঠীরই মনে আনন্দ নেই। আমরা দ্রুত নুসরাত হত্যার বিচার চাই।

মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা মো. হুসাইন বলেন, সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে এবার আলিম পরীক্ষায় নুসরাতসহ ১৭৫ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে ১৫২ জন পাস করেছে। এ মাদ্রাসায় এবার পাসের হার ৮৬.৮৬ শতাংশ। অকৃতকার্য ২৭ জনের মধ্যে নুসরাতও রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নুসরাত মেধাবী ছাত্রী ছিল। দুই বিষয়ে পরীক্ষা দিতে পেরেছে সে। পাষণ্ডদের কারণে বাকি পরীক্ষায় আর অংশ নেয়া হলো না তার। জীবনটাই কেড়ে নিল ওরা। সব পরীক্ষা দিতে পারলে অনেক ভালো ফল করত নুসরাত।

এদিকে আলিম পরীক্ষার ফল প্রকাশের খবর পাওয়ার পর থেকে কান্না থামছে না নুসরাতের স্বজনদের।

নুসরাতের মা শিরিন আক্তারের বিলাপ যেন থামতেই চায় না। তিনি বলেন, আমার মেয়ে দুনিয়ার পরীক্ষায় পাস করতে না পারলেও আখেরাতের পরীক্ষায় পাস করবে।

নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে নুসরাতের পরীক্ষার ফল বের করেন। বাড়িতে গিয়ে বোনের পরীক্ষার ফলের কথা জানান মাকে।

আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন নোমান। তিনি বললেন, আমার বোন যদি ভালোভাবে পরীক্ষা দিতে পারত, তা হলে ভালো ফল অর্জন করত।

প্রসঙ্গত গত ২৭ মার্চ ওই ছাত্রীকে নিজ কক্ষে নিয়ে শ্লীলতাহানি করেন অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন।

ওই দিনই অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলাকে আটক করে পুলিশ। সে ঘটনার পর থেকে তিনি কারাগারে আছেন। এ ঘটনার পর থেকে অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার অনুসারীরা নানাভাবে নুসরাতের পরিবারকে মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়।

১ ও ২ এপ্রিল দুটি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার পর ৬ এপ্রিল পরীক্ষা দিতে গেলে তাকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়।

এদিন নুসরাতকে কৌশলে মাদ্রাসার সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়।

অগ্নিদগ্ধ নুসরাতকে উদ্ধার করে প্রথমে সোনাগাজী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ফেনী সদর হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠান কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। সেখানে ১০ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে নুসরাত মারা যান।

ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।

সূত্র: যুগান্তর
এমএ/ ০০:৩৩/ ১৮ জুলাই

ফেনী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে