Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৯ , ৮ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-১৩-২০১৯

সিরাজগঞ্জ-ঢাকা রুটে বাস বন্ধ

সিরাজগঞ্জ-ঢাকা রুটে বাস বন্ধ

ঢাকা, ১৩ জুলাই- বাসের রুট নিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা ও রাজধানী ঢাকার মহাখালীর মালিক পক্ষের মধ্যে পূর্ববর্তী দ্বন্দ্বের জেরে সিরাজগঞ্জ-ঢাকা রুটে দূরপাল্লাসহ সব ধরনের বাস চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।

আগাম ঘোষণা ছাড়া শনিবার সকাল থেকে সিরাজগঞ্জের বাস মালিকগণ ওই রুটে আকস্মিক বাস চলাচল বন্ধ করায় মহাখালী থেকে সিরাজগঞ্জ জেলায় কোনও বাস আসেনি। এমনকি, সিরাজগঞ্জের বাসও ঢাকায় যায়নি। হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধের কারণে বিপাকে পড়েছেন শত শত যাত্রীরা।

সিরাজগঞ্জ বাস মালিক সমিতির সভাপতি আলহাদি আলমাজি জিন্নাহ বলেন, ‘রোজার ঈদের আগে রাজধানীর মহাখালী বাস টার্মিনাল সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির পক্ষ থেকে সেবা লাইনের ১৪টি বাস সিরাজগঞ্জ রুটে চালু করতে চেয়েছিল। ঈদের ভিড় থাকায় বিষয়টি নিয়ে পরে উভয় সমিতি বসে আলোচনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।'

তিনি বলেন, সেই সিদ্ধান্ত অমান্য করে তারা গায়ের জোরে সেবা লাইনের বেশ ক’টি বাস এ রুটে চালু নিয়ে দুই সমিতির মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। জেলা প্রশাসক গত ৯ জুলাই মহাখালী ও সিরাজগঞ্জের নেতাদের নিয়ে আলোচনায়ও বসেন। ১০ দিনের মধ্যে উভয় সমিতি আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করতে নির্দেশনাও দেন তিনি। কিন্তু দু’দিন যেতে না যেতেই মহাখালীতে সিরাজগঞ্জের সব কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

আরমাজি বলেন, এছাড়া শুক্রবার হাইওয়ে চন্দ্রা মোড় ও গাবতলী ব্রিজ থেকে যাত্রী নামিয়ে গাড়িগুলোকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। যে কারণে শনিবার সকাল সিরাজগঞ্জ-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

মহাখালী বাস টার্মিনাল সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক বলেন, ‘মহাখালীতে তিনটি কাউন্টারে সিরাজগঞ্জের ৬০/৭০টি গাড়ি দীর্ঘ দিন থেকেই চলাচল করছে। পক্ষান্তরে আমাদের একটি গাড়িও সিরাজগঞ্জ-ঢাকা রুটে নেই। ঢাকা-সিরাজগঞ্জ রুটে সেবা লাইন চালু করার গত তিনমাস ধরে সিরাজগঞ্জের মালিক নেতাদের পেছনে পেছনে ঘুরেও কোন সুরাহা হয়নি।'

তিনি বলেন, গত ৯ জুলাই সিরাজগঞ্জ ডিসির সঙ্গে আলোচনা শেষে আমরা তাদের ঢাকায় বসে আলোচনার প্রস্তাব দেই। তাতেও কোন সাড়া মেলেনি। উল্টো বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে কড্ডায় শনিবার সকাল থেকে সিরাজগঞ্জের মালিক-শ্রমিক নেতারা উত্তরবঙ্গগামী সব গাড়িকে ব্যারিকেড দিয়ে স্টাফদের সাথে অসদাচরণ ও বেশ ক’টি বাসের গ্লাস ভাঙচুর করেছে তারা। একতরফা শুধু সিরাজগঞ্জের মালিকদেরই বাস চলবে, আমাদের একটিও চলবে না।

সিরাজগঞ্জ মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনসার আলী এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শনিবার সকালে কড্ডার মোড়ে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার বাস দাঁড় করিয়ে মহাখালীর মালিকদের চলমান সমস্যার বিষয়টি জানিয়েছি।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক আনিস আহম্মেদ বলেন, উদ্ভুত পরিস্থিতি এড়াতে শনিবার সকালে মহাসড়কের কড্ডায় পুলিশ অবস্থান করেছে। কিন্তু চলমান সমস্যার সমাধান না হলেও রোববার থেকে সিরাজগঞ্জের মহাসড়কের কড্ডায় নতুন করে বড় ধরনের ঝামেলা বাঁধতে পারে।

সূত্র: সমকাল
এনইউ / ১৩ জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে