Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৭ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-০৯-২০১৯

মেঘনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেল ট্রলারের ৬০ যাত্রী  

মেঘনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেল ট্রলারের ৬০ যাত্রী

 

ভোলা, ১০ জুলাই- ভোলার মনপুরা-তজুমুদ্দিন নৌরুটে যাত্রীবাহী সিট্রাক শহীদ এসটি শেখ কামাল গত দুই দিন যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বন্ধ থাকায় ট্রলারে করে যাত্রী পারাপার করছে তজুমুদ্দিনের প্রভাবশালী কালু মাঝির ছেলে শাহজাহান মাঝি।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় মনপুরা থেকে ওই ট্রলারে করে কমপক্ষে ৬০ যাত্রী নিয়ে তজুমুদ্দিনের উদ্দেশ্যে রওনা করলে মেঘনার মাঝপথে ট্রলারটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে প্রায় ৫ ঘণ্টা ধরে মেঘনায় যাত্রী নিয়ে ভাসছিল সেটি।

এ সময় বৈরী আবহাওয়া ও প্রচণ্ড বৃষ্টিতে যাত্রীরা ভিজে একাকার হয়ে যায়। সব যাত্রীদের মধ্যে কান্নার রোল পড়ে যায়।

পরে তজুমুদ্দিন থেকে আরেকটি ট্রলার এসে দড়ি বেঁধে নষ্ট ট্রলারটি টেনে তজুমুদ্দিনের দিকে রওনা হয় বলে মোবাইল ফোনে জানান ওই ট্রলারের যাত্রী মনোয়ারা বেগম মহিলা কলেজের শরীরচর্চা শিক্ষক মো. ছালাহ উদ্দিন। এতে ওই ট্রলারে থাকা কমপক্ষে ৬০ যাত্রী প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।

ওই শিক্ষক নষ্ট হওয়া ট্রলারের থাকা যাত্রী ও উদ্ধারে আরেকটি ট্রলার দড়ি দিয়ে বেঁধে নেয়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে দিলে ছবিটি ভাইরাল হয়ে মনপুরার স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সবাই খোঁজ নিতে শুরু করে ওই ট্রলারে থাকা আত্মীয়-স্বজনদের।

শিক্ষক ছালাহউদ্দিন মোবাইল ফোনে বিকাল ৪টার দিকে বলেন, ভাই ৫ ঘণ্টা ধরে মেঘনায় ভাসছি। এইমাত্র আরেকটি ট্রলার উদ্ধারে এসেছে। উত্তাল মেঘনা। সব যাত্রী ভিজে একাকার। সবাই আল্লাহ ডাকা ছাড়া উপায় নাই। মনে করেছি আজ জীবনের শেষ দিন।

মনপুরা হাজিরহাট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও প্রেসক্লাব সভাপতি জানান, ডেঞ্জারজোনে সি ট্রাকের পরিবর্তে কীভাবে ট্রলারে করে যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে, বিষয়টি প্রশাসনের খতিয়ে দেখার দরকার। তা না হলে যে কোনো সময় ট্রলার ডুবে প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে।

মনপুরা থানার ওসি জানান, ট্রলারে করে যাত্রী পারাপার করছে বিষয়টি জানি না। তবে খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

বিআইডব্লিটিএর ভোলা জোনের উপপরিচালক কামরুজ্জামান জানান, ১৫ মার্চ থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত মনপুরা মেঘনায় সি-সার্ভে সনদ ছাড়া যাত্রী পারাপার করা যাবে না। ওই ট্রলারটির বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এই বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবহিত করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, মনপুরার সঙ্গে জেলার যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম মনপুরা-তজুমুদ্দিন নৌরুটটি। এ রুটে সি ট্রাক শহীদি এসটি শেখ কামাল যাত্রী পারাপার করে। যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে সি ট্রাকটি বন্ধ রয়েছে।

সূত্র: যুগান্তর
এনইউ / ১০ জুলাই

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে