Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ , ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (20 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৯-২০১৯

জিপিও ভবন ভেঙে গ্রিনপার্ক নির্মাণের নির্দেশ

জিপিও ভবন ভেঙে গ্রিনপার্ক নির্মাণের নির্দেশ

ঢাকা, ৯ জুলাই - ৯১ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ ডাক অধিদফতরের সদর দফতর নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় আগারগাঁওয়ে ডাক বিভাগের প্রধান কার্যালয় নির্মিত হয়েছে। ফলে রাজধানীর গুলিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে জেনারেল পোস্ট অফিস (জিপিও)। তাই জিপিও ভবনটি ভেঙে সেখানে সবুজ পার্ক নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বাংলাদেশ ডাক বিভাগের অধীন জরাজীর্ণ ডাকঘরগুলো সংস্কার/পুনর্বাসন’ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে একনেক সভা। প্রকল্পের আওতায় পোস্ট অফিস কাউন্টারের নিরাপত্তা ও কাজের পরিবেশ উন্নত করা হবে। সরকারি সম্পত্তি রক্ষা করা, বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের সেবার মান বাড়ানো, বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের রাজস্ব আয় বাড়ানো হবে। জিপিও অফিসে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী ও একনেক সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদে (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় জিপিও ডাকঘর ভেঙে সবুজ পার্ক নির্মাণের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। সভা-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশ গণমাধ্যমের সামনে তুলে ধরেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, গুলিস্তানে মানুষের সমাগম বাড়ছে। কিন্তু সেইভাবে ফাঁকা স্থান বাড়ছে না। তাই আগামী প্রজন্মের কথা বিবেচনা করে জিপিও ভবনের স্থানে সবুজ পার্ক গড়তে হবে।’

এ ছাড়া সভায় বগুড়া (জাহাঙ্গীরাবাদ)-নাটোর জাতীয় মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ,  মিরপুর-উথুলী-পাটুরিয়া জাতীয় মহাসড়ক প্রশস্তকরণসহ আমিনবাজার থেকে পাটুরিয়া ঘাট পর্যন্ত বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড এলাকা ডেডিকেটেড লেনসহ সার্ভিস লেন ও বাস-বে নির্মাণ” প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রকল্প দু’টি অনুমোদনের সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিটা মহাসড়কের পাশে স্লো মুভিং যানবাহনের জন্য আলাদা লেন থাকতে হবে। যাতে করে স্থানীয় বাসিন্দারা স্বাচ্ছন্দে থ্রি হুইলার যানবাহন রিকশা, ভটভটি, ঠেলাগাড়িসহ গ্রামীণ যানবাহন ব্যবহার করতে পারেন।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক, কক্সবাজারের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, কক্সবাজারে সি-অ্যাকুরিয়াম নির্মাণ করতে হবে।  সোনাদিয়া দ্বীপে ইকোপার্ক নির্মাণ করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, হাওরে ব্রিজগুলো নির্মাণের সময় নৌ চলাচল ব্যবস্থা করতে হবে। বর্ষার সময় যাতে ব্রিজের নিচ দিয়ে নৌকা চলতে পারে।–যোগ করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান

এছাড়া সভায় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ,  স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীরা অংশ নেন।


সূত্র : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

এন এইচ, ৯ জুলাই.

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে