Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৫ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-০৬-২০১৯

কারখানার বর্জ্য বিস্তীর্ণ এলাকায়, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন  

কারখানার বর্জ্য বিস্তীর্ণ এলাকায়, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

 

গাজীপুর, ০৬ জুলাই- গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলায় অনিয়ন্ত্রিত কারখানার বর্জ্য বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়ছে। এতে বেলাশী, কেন্দুয়াবো, আমুরিসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। এর প্রতিবাদে শনিবার (৬ জুলাই) সকাল ১১টায় উপজেলার বেলাশী গ্রামের কোঠামনি বাজার থেকে বেলাশী প্রগতি একাডেমি সড়কে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী মানববন্ধন করেন।

জানা যায়, ডায়মন্ড অ্যাগ্রো লিমিটেড ও প্রোটিন হাউজ নামে দুটি পশু খাদ্য, ডিম ও মুরগি উৎপাদনকারী কারখানার নিষ্কাশিত বর্জ্যে পরিবেশের এ অবস্থা হয়েছে। ডায়মন্ড কারখানাটি কাপাসিয়ার কেন্দুয়াবো এবং প্রোটিন হাউজটি কপালেশ্বর এলাকায় অবস্থিত। কারখানা আইন না মানা ও জোরপূর্বক জমি কেনার উদ্দেশ্যে কারখানার মালিকেরা এমন আচরণ করছেন বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন। দূষণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কাপাসিয়ার বেলাশী, কেন্দুয়াবো, বড়চালা, আমুরি, আদিয়াবো, বীর উজুলী, আদিয়ারচালা ও কপালেশ্বর গ্রামের কৃষকেরা। অনেকে বসতভিটা ছেড়ে অন্যত্র পাড়ি জমিয়েছেন। গ্রামবাসী নানা জায়গায় অভিযোগ করেও কোনও প্রতিকার পাচ্ছেন না।

শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর মানববন্ধনসরেজমিনে দেখা গেছে, বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে আবাদি জমিগুলোর পানিতে মুরগির বর্জ্যের কালো স্তর পড়ে আছে। ময়লা থেকে বুদ বুদ উঠছে। দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে চারিদিকে। খোলা মাঠে স্তুপ করে বিষাক্ত বর্জ্য ফেলে রাখা হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে ভেসে কৃষি জমিতে যাচ্ছে এসব বর্জ্য। আবার রোদ উঠলে দুর্গন্ধ বাতাসের সঙ্গে মিশে পরিবেশ নষ্ট করছে।

বেলাশী গ্রামের খোকন মিয়া, মঞ্জুরুল হক, লিয়াকত আলীসহ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গভীর রাতে বর্জ্যের ট্রাক এলাকায় প্রবেশ করে। বেলাশী গ্রামের উরমইত্তার টেক, ছাত্তারের টেকসহ বিভিন্ন স্থানে খোলা জায়গায় বর্জ্য ফেলে রাখায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এতে শিশুরা শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

দুর্গন্ধে বেলাশী প্রগতি একাডেমির শিক্ষার্থী তুহিন, জোনায়েদ, ছাব্বির বিদ্যালয়ে যাতায়াত করতে পারছে না। কেন্দুয়াবো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইমরান, শাহ পরান ও মিনহাজ জানায়, বাড়িতে, বিদ্যালয়ে, বিদ্যালয়ের পথে দুর্গন্ধ,তাদের বেঁচে থাকাটা এখন অনেক কষ্টের।

দুর্গন্ধ সইতে না পেরে নাকে হাত রেখেছেন কয়েকজনকৃষক নেতা আলতাফ হোসেন বলেন, ‘কাপাসিয়ায় যেখানে সেখানে বিষাক্ত বর্জ্য ফেলে রাখায় কৃষকের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এসব হতে দেওয়া যাবে না।’
মঞ্জুরুল হক বলেন, ‘দূষিত বাতাসের গন্ধে আমার সন্তান শ্বাস কষ্টে ভুগছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থী শ্রেণি কক্ষে বসে থাকতে পারছে না। রাতের অন্ধকারে এলাকার কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষ প্রোটিন ও ডায়মন্ডের সঙ্গে যোগসাজশ করে খোলা মাঠে এসব বর্জ্য ফেলে রাখছে। উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও, ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের বিষয়টি জানানো হয়েছে।’

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হিরণ মোল্লা বলেন, ‘প্রতিবাদ করতে হবে। রাতের অন্ধকারে বর্জ্য ভর্তি ট্রাক আসলে তা আটকে দিতে হবে।’
কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আমানত হোসেন খান বলেন, ‘আমি ইতোমধ্যে বিষয়গুলো জেনেছি। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

কাপাসিয়া উপজেলা নিবাহী অফিসার (ইউএনও) ইসমত আরা বলেন, ‘আমি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
এনইউ / ০৬ জুলাই

 

গাজীপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে