Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৫ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৫-২০১৯

বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা চুক্তিতে ভারত, কিনবে ১১৪ যুদ্ধবিমান

বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা চুক্তিতে ভারত, কিনবে ১১৪ যুদ্ধবিমান

নয়াদিল্লি, ০৫ জুলাই- বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রতিরক্ষা চুক্তিতে অংশ নিচ্ছে ভারত। ১১৪টি যুদ্ধবিমান কেনার জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করবে দেশটি। এর প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশটির সক্ষমতা বাড়াতে এবং সশস্ত্র বাহিনীকে ঢেলে সাজাতে যুদ্ধবিমান কিনছেন। এ চুক্তিটি হবে প্রায় ১৫ বিলিয়নের বেশি। তবে চুক্তি অনুযায়ী ভারতে এর ৮৫ শতাংশ যুদ্ধবিমান তৈরি করতে হবে। খবর এনডিটিভির।

বিমানবাহিনীর চাহিদা পূরণে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে সম্প্রতি ভারতের সংসদে জানান কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক।

ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুদ্ধবিমানের চুক্তিতে প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম তৈরি করে এমন বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থা আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য বোয়িং, লকহিড মার্টিন কর্পোরেশন, সাব এবির মতো সংস্থা।

ভারতের কেন্দ্রের একটি সূত্র জানায়, বোয়িংয়ের চুক্তি রয়েছে হিন্দুস্তান অ্যারোনটিক্যাল লিমিটেড এবং মহিন্দ্রা ডিফেন্সের সঙ্গে। এফ-২১ এর জন্য লকহিডের চুক্তি রয়েছে টাটা গ্রুপের সঙ্গে।

অন্যদিকে আদানি গ্রুপের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে সাব এবির। ফলে যে সংস্থাই পাক, যৌথ উদ্যোগেই তৈরি হবে নতুন যুদ্ধবিমান। চুক্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর প্রথম ধাপের যুদ্ধবিমান ভারতের হাতে তুলে দিতে হবে তিন বছরের মধ্যে।

সংসদে শ্রীপদ নায়েক সম্প্রতি জানান, বিমানবাহিনীর চাহিদা পূরণে দ্রুত চুক্তি কার্যকর করার প্রক্রিয়া এগোচ্ছে। শুরু হয়েছে যুদ্ধজাহাজ, ট্যাংকারসহ অন্যান্য বেশ কিছু যুদ্ধাস্ত্র কেনার জন্য প্রাথমিক নথিপত্র তৈরির কাজ। এ ছাড়া সাবমেরিন কেনার জন্য আগ্রহী সারাবিশ্বের সংস্থাগুলোকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্রতিরক্ষায় আধুনিকীকরণ এবং অস্ত্রভাণ্ডার বাড়ানো কার্যত অপরিহার্য হয়ে উঠেছে মোদি সরকারের কাছে। এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে পুলওয়ামা হামলায় পাকিস্তানের অত্যাধুনিক এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের সঙ্গে ডগ ফাইটে নামাতে হয়েছিল পুরনো মিগ ২১-কে, যা ভারতের বিমানবাহিনীর ‘উড়ন্ত কফিন’ নামেও পরিচিত।

ফলে সেগুলো বাতিল করে আধুনিক যুদ্ধবিমান যুক্ত করার প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখেই দ্রুত চুক্তি কার্যকর করার দিকে এগোচ্ছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

সূত্র: যুগান্তর
এমএ/ ১১:৪৪/ ০৫ জুলাই

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে