Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯ , ২৮ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (20 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-০৪-২০১৯

২৫ বছরের সোহেল জানে না কে তার বাবা?

২৫ বছরের সোহেল জানে না কে তার বাবা?

ময়মনসিংহ, ০৫ জুলাই- আমি আপনার ধন সম্পত্তি কিছু চাই না শুধু বলেন আপনি আমার জন্মদাতা পিতা। এমনি আকুতি হালুয়াঘাট মডেল স্কুলসংলগ্ন আকন পাড়া গ্রামের পারুল (৩৯) এর ২৫ বছর বয়সের পুত্র সোহেলের।

সোহেল বলেন, আমি জন্মের পর থেকে যখন কথা বলতে শিখেছি তখন থেকেই মার কাছে জানতে চেয়েছি কে আমার বাবা? মা পরে জানাবে বলে আমাকে সান্তনা দিত। এখন আমি প্রাপ্তবয়স্ক, গাড়ি চালানো শিখেছি কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় আমার ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে পারছি না।

তিনি বলেন, মা আমাকে সমস্ত কিছু খুলে বলায় আমি মাসুদের কাছে হাত জোর করে বলেছি আমি আপনার ধন সম্পদ কিছু চাই না। আপনি শুধু জাতীয় পরিচয়পত্রে পিতার নামের স্থানে আপনার নামটা লিখার অনুমতি দেন। কিন্তু তিনি আমার কথা তো রাখলেনই না বরং দূর দূর করে তাড়িয়ে দিলেন। আমি এখন কী করবো রাস্তা দিয়া হাঁটলে অনেকেই বাপ ছাড়া ছেলে বলে বাজে বাজে মন্তব্য করে।

সোহেলের মা পারুল বলেন, আজ থেকে প্রায় ২৫ বছর পূর্বে আমার প্রতিবেশী মাসুদ বিয়ের প্রলোভনে আমার সঙ্গে সম্পর্ক করে। এতে আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ি। এমন অবস্থায় আমি বিয়ের দাবিতে মাসুদের কাছে গিয়ে জানালে মাসুদ আমাকে বিয়ে করবে না জানিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে পেটের বাচ্চা নষ্ট করার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

পারুল বলেন, আমার পিতা একজন হতদরিদ্র মানুষ হওয়ায় গ্রামের মাতব্বরদের দারস্থ হন। মাসুদ প্রভাবশালী হওয়ার কারণে মাতব্বররা এই সন্তানের জন্মের দায়ভার অন্যের উপর চাপিয়ে দেয়ার জন্য আমাকে শিখিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, পরে আমার আরেক প্রতিবেশী জালাল উদ্দিন ওরফে গেন্দার নাম বলতে বললে সেইদিন গেন্দার সঙ্গে আমার বিয়ে দেয়। বিয়ের রাতেই গেন্দা আমাকে রেখে পালিয়ে যাওয়ায় আজ অবধি তার সন্ধান পাইনি। এমন অবস্থায় আমার কোলজুড়ে একটি পুত্রসন্তান আসে। ওর নাম রাখা হয় সোহেল।

পারুল বলেন, আমি পুত্র সন্তানটিকে লালন পালন করতে থাকি। ছেলে আমার বড় হয়ে পিতার পরিচয় জানতে চাইলে আমি কোনো উপায় খুঁজে না পেয়ে সময় হলে জানতে পারবি বলে ভুলিয়ে ভালিয়ে কালক্ষেপণ করতে থাকি।

তিনি বলেন, দেখতে দেখতে ২৫ বছর অতিক্রান্ত হয়ে গেছে। আমার ছেলে এখন ড্রাইভার। তার লাইসেন্স করতে গেলে জাতীয পরিচয়পত্র দরকার। জাতীয় পরিচয়পত্রে পিতার নাম উল্লেখ করা দরকার তাই কোনো উপায় না পেয়ে শেষ পর্যন্ত সত্যিটা বলতেই হলো। ছেলে সোহেলকে প্রকৃত ঘটনা খুলে বললাম।

তিনি আরও বলেন, আমি মাসুদের কাছে কাছে আর কিছু চাই না শুধু আমার সন্তানের পিতৃ পরিচয় চাই। প্রতিবেশী আমজাদ, মফিজুল , শাহজালাল সেখ, হাসনা সাবিনা জানায়, তারা এ ঘটনা জানেন। মাসুদই সোহেলের জন্মদাতা। তাছাড়া মাসুদ ও সোহেলকে পাশাপাশি দাঁড় করালে সবার চোখে প্রকৃত সত্যটা প্রমাণিত হয়ে যাবে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মাসুদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি কথা বলতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করে প্রমাণ করতে বলেন।

সূত্র: যুগান্তর     
এনইউ / ০৫ জুলাই

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে