Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ , ১ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৪-২০১৯

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল

ঢাকা, ০৪ জুলাই- অনিয়মের দায়ে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় জড়িত ৫ জনকে ভবিষ্যতে ভিকারুননিসার মতো অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ কমিটিতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এই আদেশ জারি করেছে।

মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত আদেশে বলা হয়, গত ২৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত ভিকারুননিসা নুন স্কুল অ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগ প্রক্রিয়া যথাযথ না হওয়ায় এ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে অধিকতর বিশ্বাসযোগ্য ও বিতর্কমুক্ত করে অধ্যক্ষ নিয়োগের লক্ষ্যে গভর্নিং বডিকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো।

এছাড়াও ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগ বিষয়ে ইতিপূর্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের নিয়োগ কমিটির সদস্যদের ভবিষ্যতে এই প্রতিষ্ঠানে মতো কোনো স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ নিয়োগ কমিটিতে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত না করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

আদেশটি দেয়া হয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানকে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক শাহেদুল খবীর চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের আদেশটি অবহিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, উল্লিখিত নিয়োগ প্রক্রিয়ায় লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেয়া কেউই পাস করেননি। একজন সর্বোচ্চ ৭ নম্বর পেয়েছিলেন। আর ৩০ নম্বরে পাস নম্বর হওয়ায় কমপক্ষে ১০ পাস নম্বর হওয়ার কথা। কিন্তু সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্ত তো নয়ই, সাড়ে ৩ পাওয়া রুমানা শাহীন শেফা নামে এক প্রার্থীকে নিয়োগের সুপারিশ করে কমিটি।

এই প্রার্থী দুদকের বিতর্কিত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরের স্ত্রী। এই নিয়োগে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ উঠেছে। যদিও এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি। শেফা বর্তমানে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল ও কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক।

এদিকে উল্লিখিত সুপারিশের পরে তড়িঘড়ি শেফাকে নিয়োগ দিতে যোগদানপত্র দেয়ার প্রক্রিয়াও শুরু করেছিল প্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বডি। তখন দুজন সদস্য নোট অব ডিসেন্ট দেন।

এমন পরিস্থিতিতে প্রতিষ্ঠানটির অভিভাবকদের একটি অংশ মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ করে। এরপর গত ২৯ এপ্রিল রাজধানীর খ্যাতনামা এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করার নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এই নিয়োগ কমিটির ৫ সদস্যের মধ্যে আছেন প্রতিষ্ঠান গভর্নিং বডির সাবেক সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার, মাউশি মহাপরিচালকের প্রতিনিধি মাউশিরই পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক শাহেদুল খবীর চৌধুরী, প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফেরদৌসী বেগম। বাকি দু’জন গভর্নিং বডির সদস্য।

প্রসঙ্গত, অভিভাবকদের পক্ষ থেকে অভিযোগ ওঠার পর শিক্ষা মন্ত্রণালয় যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজিকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে। এছাড়া মাউশি পৃথক আরেকটি কমিটি গঠন করেছি।। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, উভয় কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে উল্লিখিত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সূ্ত্র: যুগান্তর
এমএ/ ০৯:০০/ ০৪ জুলাই

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে