Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯ , ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (25 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৪-২০১৯

হঠাৎ দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে সোহেল তাজ, সম্পাদক পদ নিয়ে কানাঘুষা!

হঠাৎ দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে সোহেল তাজ, সম্পাদক পদ নিয়ে কানাঘুষা!

ঢাকা, ৪ জুলাই - বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজ উদ্দিন আহমদের ছেলে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজামি আহমেদ সোহেল তাজ ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের আগমনে হঠাৎ রাজনৈতিক অঙ্গনে কানাঘুষা শুর হয়েছে। তবে কী আবারও দলীয় রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হচ্ছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর ছেলে? তার রাজনীতির ময়দান থেকে চলে যাওয়া নিয়ে নানা আলোচনা দলের ভেতরে-বাহিরে আজও চলছে। কেন সোহেল তাজ রাজনীতি ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন? প্রশ্নের উত্তর আজও অজানা। বুধবার  হঠাৎ করে রাতে উপস্থিত হন দলীয় প্রধানের কার্যালয়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ। তার এই আগমনকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরই মাঝে শুরু হয়েছে আলোচনা। নেতা কী তবে মান-অভিমান ভেঙ্গে ফিরছেন দলীয় রাজনীতিতে?

তবে গণমাধ্যমের কাছে সোহেল তাজের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয়ে কাইয়ুম জানান, কোন রাজনৈতিক কারণে যাননি তিনি, সোহেল তাজের একমাত্র ছেলে ব্যারিস্টার তুরাজ আহমদের বিয়ের আমন্ত্রণ কার্ড দিতেই গিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে। এদিকে, আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতীয় চার নেতার পরিবারের প্রতি আলাদা দুর্বলতা রয়েছে। এটা দৃশ্যমান, যারা নেত্রীকে কাছ থেকে দেখেছেন, তারা সকলে বিষয়টা নিয়ে অবগত আছেন। এবং দলের নিতীনির্ধারনী পর্যায়ের একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান গত কাউন্সিলে তৎকালীন প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম চেয়েছিলেন সোহেল তাজকে সাধারণ সম্পাদক করার। কিন্ত যে কোন কারণেই হোক সে দফায় সৈয়দ আশরাফ তা করতে ব্যর্থ হন। এবার মনে হয় সেটা হয়ে যেতে পারে বলে অনেকে একে একে দুই মিলাতে শুরু করেছেন। এটা হলে তারা আশ্চর্য হবেন না বলেও জানান। এদিকে সিনিয়র নেতারাও সোহেল তাজের পক্ষে বলে জানান। প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছ সোহেল তাজকে দলের গুরত্বপূর্ণ পদে রাখার। বিভিন্ন সূত্র থেকে এ তথ্য জানা গেছে এবং এটা ২১ তম জাতীয় কাউন্সিলে হলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না বলেই কানাঘুষা শুরু হয়ে গেছে। বিশেষ করে যারা সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য নিজেদের অবস্থান দলীয় ভাবে প্রকাশ করে যাচ্ছে, তাদের মাঝে কাল থেকে ভয় ডুকে গেছে বলেও একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

বুধবার রাতে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ তার ছেলের বিয়ের দাওয়াতের কার্ড তুলে দেন। এসময় আনন্দঘন মুহূর্তের পরিবেশের সৃষ্টি হয় বলে জানা যায়।এর আগে গত ৩০ এপ্রিল গণভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিয়ের আমন্ত্রণ কার্ড দেন সোহেল তাজ। তার একমাত্র ছেলে ব্যারিস্টার তুরাজ আহমদের বিয়ে হচ্ছে ড. বদিউজ্জামান ভূঁইয়া এবং ড. আবিদা সুলতানা ইভার একমাত্র কন্যা লাবিবা জামানের সঙ্গে।

সূত্র : বিডি২৪লাইভ

এন এইচ, ৪ জুলাই.

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে