Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯ , ৩ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৩-২০১৯

‘জঙ্গিবাদ’ ছড়াচ্ছে পশ্চিবঙ্গের মাদ্রাসাগুলো

‘জঙ্গিবাদ’ ছড়াচ্ছে পশ্চিবঙ্গের মাদ্রাসাগুলো

কলকাতা, ০৩ জুলাই- পশ্চিমবঙ্গের মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে ‘জঙ্গিবাদ’ছড়ানোর অভিযোগ এনেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার লোকসভায় মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিশণ রেড্ডি বলেন, গোটা ভারতে সন্ত্রাস ছড়ানোর জন্য বাংলা-সহ বিভিন্ন রাজ্যের মাদ্রাসাকে ব্যবহার করা হচ্ছে।

তবে তার এ বক্তব্যের বিরোধিতা করেছে রাজ্য সরকার। তৃণমূলের লোকসভার নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, কিসের ভিত্তিতে কেন্দ্র এ অভিযোগ চালাচ্ছে তারা মোদি সরকারের কাছে তা জানতে চাইবে।

গত সপ্তাহে বাংলাদেশের নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি, নব্য) শাখার চারজনকে শিয়ালদহ থেকে গ্রেপ্তার করেছে কলকাতা পুলিশের এসটিএফ। এদের তিনজনই বাংলাদেশি নাগরিক। এরপরেই এই অভিযোগ আনলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

শিয়ালদহে ধৃতদের কাছ থেকে আইএস মতাদর্শের বেশ কিছু বাংলা প্রচার পুস্তিকাও পাওয়া যায়। ভারতীয় গোয়েন্দাদের মতে, নব্য জেএমবি আইএস মতাদর্শে বিশ্বাসী। যাদের মূল লক্ষ্য, বাংলাদেশে ক্যাডার নিয়োগ করে আইএস মতাদর্শ ছড়িয়ে দেওয়া। বাংলাদেশে ব্যাপক ধরপাকড় চলায় তারা এখন অপেক্ষাকৃত সুরক্ষিত পশ্চিমবঙ্গে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রেড্ডি মনে করছেন, বাংলাদেশের জঙ্গিরা ক্রমশ পশ্চিমবঙ্গ ঘাঁটি করতে শুরু করেছে। রাজ্যের দুই বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু ও সুকান্ত মজুমদারের প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী জেএমবি বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদের কিছু মাদ্রাসাকে নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহার করছে। মাদ্রাসাগুলি শিক্ষার্থী ভর্তি করে তাদের মগজধোলাই করে জেহাদের মন্ত্রে দীক্ষিত করার কাজ চলছে। রেড্ডি জানান, ‘ওই সব গোয়েন্দা তথ্য রাজ্যকে জানানো হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হয়েছে।’

তৃণমূলের লোকসভার নেতা সুদীপ বন্দোপাধ্যায় বলেছেন, এ ধরনের তথ্য দেওয়ার আগে কেন্দ্রের উচিত ছিলো রাজ্য সরকারের সঙ্গে যাচাই করে নেওয়া।

লোকসভায় লিখিত প্রশ্নের উত্তরে পাল্টা প্রশ্ন করা যায় না। তাই কিসের ভিত্তিতে কেন্দ্র ওই তথ্য দিয়েছে তা জানতে চাইবে মমতার দল।

এদিকে মন্ত্রীর অভিযোগ নসাৎ করে দিয়ে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেছেন, ‘এটা বাংলায় অস্থিরতা তৈরির একটা ষড়যন্ত্র। খাগড়াগড় কাণ্ডের পরে আমরা বলেছিলাম, কোন মাদ্রাসা থেকে হিংসা ছড়ানো হচ্ছে আমাদের বলুন। আমরা গিয়ে তালা দিয়ে আসব। এনআইএ একটিও উদাহরণ দিতে পারেনি।’

আর/০৮:১৪/০৩ জুলাই

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে