Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯ , ৭ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০২-২০১৯

ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ নিয়ে যে ভবিষ্যদ্বাণী করল উট

ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ নিয়ে যে ভবিষ্যদ্বাণী করল উট

লন্ডন, ২ জুলাই - ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ভারতের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। আর বিশ্বকাপে প্রথম দেখাতেই তাদের হারিয়ে চমক সৃষ্টি করেছিল হাবিবুল বাশারের দল। একই সঙ্গে তারা টুর্নামেন্ট থেকেই বিদায় করে দিয়েছিল পরাশক্তি ভারতকে। এরপর অবশ্য আরো ২ বার বিশ্বকাপের মঞ্চে খেলেছে ভারত-বাংলাদেশ। যেখানে আর সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ। ২০১১ সালের বিশ্বকাপে ঢাকায় উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের কাছে ৮৭ রানে পরাজিত হয়েছিল সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন দল। পরবর্তীতে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে মেলবোর্নে ১০৯ রানে বাংলাদেশকে হারায় ভারত। আজ মঙ্গলবার (২ জুলাই) আবারও সেই ভারতকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে বাংলাদেশ। বার্মিংহামের এজবাস্টনে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে তিনটায় মুখোমুখি হবে ২ দল।

আর এই ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময বিকাল ৩:৩০ মিনিটে। ভারত এবং বাংলাদেশ ম্যাচ মানেই ক্রিকেটে এখন অন্যরকম আমেজ। এশিয়ার সেরা দুটি দলের মধ্যে এই লড়াইয়ে এখন জমে থাকে ক্ষোভ, উত্তেজনা। আগে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে যেমনটা হত এখন ঠিক সেটাই যেন হচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচে। আজকের ম্যাচটি আবার বাংলাদেশের জন্য মহাগুরুত্বপূর্ন। এই ম্যাচে জিতলে সেমিফাইনালের লড়াইয়ে টিকে থাকবে। আর হেরে গেলে নিতে হবে বিদায়। এমন মহাগুরুত্বপূর্ন ম্যাচের আগে টাইগার ভক্তদের মনে চাপা ক্ষোভ ভারতের প্রতি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচেই যদি ভারত জিতত তাহলে কিছুটা সহজ সমীকরণেই থাকত বাংলাদেশ। কিন্তু ভারত অনেকটা ইচ্ছাকৃত ভাবেই যেন হেরে গেছে সেই ম্যাচে। তাই আজকের ম্যাচে বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে জয়টাই চায়।

এদিকে ভারতের বিপক্ষে এই গুরুত্বপূর্ন ম্যাচের আগে ভবিষ্যদ্বাণী করেছে এবারের বিশ্বকাপের আলোচিত উচ শাহীন। আর উটের ভবিষ্যদ্বাণী অনুযায়ী এবার জিতবে বাংলাদেশ এবং হারবে ভারত। দ্বাদশ বিশ্বকাপে এমন এক সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে আছে বাংলাদেশ, আসরে টিকে থাকতে হলে হারা যাবে না একটি ম্যাচও। রাউন্ড রবিন লিগের বাকি ম্যাচ দুটি জিতলেও যে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হবে এমনটিও নয়। তবে সেমিফাইনালের যে স্বপ্নজাল বুনে টাইগাররা পা রেখেছিল ইংল্যান্ডে, তা অক্ষত রাখতে ভারতকে হারানোর কোনো বিকল্প নেই। তাই বাংলাদেশের কাছে প্রতিটি ম্যাচই এখন নকআউট পর্বের মত। ভারতের কাছে হেরে গেলেও পাকিস্তানকে হারানোর সুযোগ অবশ্য থাকবে। তবে সেমির দৌড় থেকে ছিটকে সেটি হয়ে উঠবে কেবলই নিয়মরক্ষার ম্যাচ। আজ মঙ্গলবার (২ জুলাই) ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে মাঠে নামবে টাইগাররা।

এজবাস্টনে আজকের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে টসে জয়ী হওয়াটা কতোটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা বেশ ভালোভাবেই জানেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ম্যাচের শুরুতেই প্রতিপক্ষ থেকে এক কদম এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ তাদের এখানেই। যদিও ভারতের বিপক্ষে টসে সিদ্ধান্তটা কী নিবেন, সেই ব্যাপারে মাশরাফি নিজেই সন্দিহান। এ জন্য ম্যাচের ঠিক আগে উইকেট দেখেই সিদ্ধান্তটা নেয়ার চিন্তা ভাবনা তার।

ইংল্যান্ড এবং ভারতের মধ্যকার ম্যাচটিও এই এজবাস্টনে হয়েছিল। ছোট মাঠে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে স্কোরবোর্ডে ৩৩৭ তোলে ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে উইকেট স্লো হয়ে যাওয়ায় ভারতের ব্যাটসম্যানদের ভুগতে হয়েছে ইংল্যান্ডের বোলারদের বিপক্ষে।

আগের ম্যাচের ফলাফল ভাবনায় রয়েছে মাশরাফির। তাই আগেই সিদ্ধান্ত নিতে চান না তিনি। তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে আমি জানি না টস কতটা গুরুত্বপূর্ণ হবে। অনেকেই বলেছেন যে টস অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এখানে ব্যাটিং করে সুযোগ কাজে লাগানো যায়। তবে আমি মনে করি দুই দলই শক্তিশালী। গতকাল যখন তারা দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করে ধুঁকছিল. তারপরও তারা শেষ পর্যন্ত ৩০৭ রানের মতো করেছে। ভারতের বিপক্ষে আমি বলবো টস দুই দিকেই গুরুত্বপূর্ণ হবে। যদি আমাদের প্ল্যান থাকে যে টস জিতে ব্যাটিং নিবো বা বোলিং নিবো, সে সময় যদি টস জিতি তাহলে তা অবশ্যই কাজে আসবে। তবে এই দলের বিপক্ষে আমি আসলে নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছি না।’


সূত্র : বিডি২৪লাইভ

এন এইচ, ২ জুলাই.

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে