Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০১৯ , ১ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৬-২১-২০১৯

৯৩ বছর বয়সে ইচ্ছেপূরণ‚ নাতনিকে নিয়ে আকাশে উড়ছেন দাদি

৯৩ বছর বয়সে ইচ্ছেপূরণ‚ নাতনিকে নিয়ে আকাশে উড়ছেন দাদি

বয়স ৯৩ বছর। সেই তিনিই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যোগদান করার সময় থেকেই আকাশে ওড়ার স্বপ্ন দেখতেন। ইংল্যান্ডের বাসিন্দা প্রবীণা মলি ম্যাকার্টনি বিমান চালানো শিখে এখন একাই আকাশে উড়তে পারছেন। সঙ্গে নিয়েছেন ১২ বছরের নাতনিকেও। অ্যাডভেঞ্চারের নেশা ছড়িয়ে পড়ছে তার ভেতরেও।

প্রবীণা বলেন, বিমানে সাধারণভাবে ওঠা একঘেয়ে লাগে। আমার সেটা মোটেও পছন্দ না। কিন্তু দেখুন, এইভাবে নিজের মতো উড়তে পারলে কত কিছুই না দেখা যায়! আর ইংল্যান্ড এত্ত সুন্দর! সবুজের কত রকম শেড, প্রায় পঞ্চাশের ওপর, আমি তো কল্পনাই করতে পারিনি।

তার চোখ চকচক করে ওঠে আনন্দে। ৭০ বছরের পর থেকে প্রতিটি জন্মদিনেই তিনি আকাশে ওড়েন। এত বছর বয়সেও কর্মচাঞ্চল্যে তিনি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এই বয়সে তিনি একজন দুরন্ত অশ্বারোহীও বটে! 

এমন ঘটনা আলোড়ন ফেলে দিয়েছে সারা পৃথিবীতে। তার সাধ আর সাধপূরণের এই কাহিনী অনেককেই জোগাবে প্রেরণা! ওড়ার সময় কিশোরী নাতনি মাটিলডাকে।

মাটিলডা জানিয়েছে, সে এতদিন দাদির বিমান চালানোর গল্পই শুনে এসেছিল। কিন্তু নিজে চোখে দেখেছে এই প্রথম। তার বিশ্বাস দাদি খুব ভালো একজন পাইলট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় থেকেই মলির আগ্রহ বিমান চালানোর ব্যাপারে। যুদ্ধের সময় নারী পাইলটদের দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। বিমান ফ্যাক্টরি থেকে বিমানগুলো ফ্রন্টলাইনে দিয়ে যেতেন তারা। সেদিন থেকেই স্বপ্ন দেখেছিলেন নিজেও কখনো যদি এমন উড়ে যেতে পারতেন!

যুদ্ধের সময় তিনি যোগদান করেছিলেন ‘উইমেন’স রয়্যাল নেভাল সার্ভিস’-নামক সংস্থায়। তিনি বলেন, যখন আমি সেখানে গেলাম তার আগ পর্যন্ত জানতাম না মেয়েরাও আকাশে উড়তে পারে বিমান চালিয়ে।

এমনকি ১৭ বছরের আগে নৌবাহিনীতে যোগ দেওয়া যায় না বলে নিজের বয়স বাড়িয়ে জাল জন্মপত্র জমা দিয়েছিলেন। ‘আর তখন অনেকেই চাইত নৌবাহিনীতে যোগ দিতে’—স্বীকার করেন মলি। 

যেসব জাহাজ যুদ্ধবিমানের জিনিসপত্র যোগান দেওয়ার জন্য পাঠানো হতো, সেইসব ছোট জাহাজগুলোর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি দেখভাল করার দায়িত্ব ছিল তার ওপর। একটি ছোট্ট মোটর বোটে চড়ে তিনি এক অন্ধকার রাতে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রী চার্চিলকে বিদেশে একটি চিঠি পৌঁছে দেওয়া ছিল এই গোপন যাত্রার উদ্দেশ্য। 

নিকষ কালো অন্ধকার রাতে সেদিন একটুও চাঁদের আলো ছিল না। রোমহর্ষক সেই অভিজ্ঞতার বিবরণ দিতে গিয়ে আজও শিহরিত হন মলি। এরকম আরো নানান সাহসী অ্যাডভেঞ্চারের গল্প আছে তার ভাঁড়ারে, কর্মসূত্রে অর্জন করা। 

সূত্র: কালের কণ্ঠ
এইচ/২১:৪১/২১ জুন

বিচিত্রতা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে