Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯ , ২ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৬-১৬-২০১৯

বাজেটের পর শেয়ারবাজারে বড় ধস  

বাজেটের পর শেয়ারবাজারে বড় ধস

 

ঢাকা, ১৬ জুন- ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে প্রণোদনা দেয়া হলেও ঘোষণার পর প্রথম কার্যদিবসেই বড় ধসের মুখে পড়েছে দেশের প্রধান দুই পুঁজিবাজার।

রোববার (১৬ জুন) সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচকের সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, বাজেটে রিজার্ভের ওপর ট্যাক্স আরোপের প্রস্তাবের কারণে বাজারে এক ধরনের ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। এতে তালিকাভুক্ত ভালো কোম্পানির প্রসারের ক্ষেত্রে বাঁধা সৃষ্টি হবে। যার নেতিবাচক প্রভাব আজ শেয়ারবাজারে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন (ডিবিএ) সভাপতি শাকিল রিজভী বলেন, কোনো কোম্পানির কোনো আয় বছরে রিটেইনড আর্নিংস, রিজার্ভ ইত্যাদির সমষ্টি যদি পরিশোধিত মূলধনের ৫০ শতাংশের বেশি হয় তাহলে যতটুকু বেশি হবে তার ওপর সংশ্লিষ্ট কোম্পানিকে ১৫ শতাংশ হারে কর প্রদানের প্রস্তাব করা হয়েছে বাজেটে। এতে ভালো কোম্পানিগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হবে। আমাদের ধারণা এটা ভুলভাবে উপস্থাপন হয়েছে।

তিনি বলেন, ট্যাক্স দেয়ার পরেই কোম্পানির অর্থ রিজার্ভে নেয়া হয়। সুতরাং আবার ট্যাক্স দিলে দ্বৈত ট্যাক্স হয়ে যাবে। তাছাড়া কোনো কোম্পানির রিজার্ভ ক্যাশ ফর্মে নেই। তাহলে ট্যাক্স কিভাবে দেবে?

এদিকে প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্না ইমন বলেন, রিজার্ভের ওপর যেভাবে ট্যাক্স আরোপের কথা বলা হয়েছে তা পুঁজিবাজারে জন্য ভালো হবে বলে মনে করি না। বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা উচিত।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, রোববার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৪৩০ পয়েন্টে। অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৮ ও ডিএসই-৩০ সূচক ৩০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ২৩৫ ও এক হাজার ৯০৫ পয়েন্টে।

দিনভর বাজারে ৫৩৪ কোটি ৩১ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৫৭২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কমেছে ৩৮ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৯৮টির প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ২০১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫০টির।

টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে জেএমআই সিরিঞ্জ। কোম্পানিটির ২৩ কোটি ২৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের ১৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এবং ১২ কোটি ৩৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে ইষ্টার্ণ হাউজিং।

অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৪০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৬২৪ পয়েন্টে। বাজারে হাত বদল হওয়া ২৬৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৭৩টির, কমেছে ১৭০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির দর। লেনদেন হয়েছে ২৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা।

সূত্র: পূর্বপশ্চিম
এনইউ / ১৬ জুন

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে