Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ , ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৮-২০১৯

দুই কন্যা আঁধার ঘরের আলো

দিলওয়ার খান


দুই কন্যা আঁধার ঘরের আলো

নেত্রকোনা, ০৮ জুন- নেত্রকোনার হরিজন পল্লীর প্রিয়া বাশফোর আর পায়েল বাশফোর। নিতান্ত গরীব ঘরের সন্তান তারা। তারা এবার প্রথমবারের মত এই পল্লী থেকে এসএসসি পাশ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছে নেত্রকোনার শিক্ষাঙ্গন।

প্রিয়া বাশফোর ও পায়েল বাশফোর। তারা একে অপরের আপন মামাতো ফোফাতো বোন। তারা সংগ্রাম করে সকল বাঁধ বিঘ্ন অতিক্রম করে স্কুলে লেখা পড়া করেছে এবং এসএসসি পরীক্ষায় উর্তীর্ণ হয়েছে।

তারা দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে পড়াশোনা চালিয়ে ছিনিয়ে এনেছে একের পর এক সাফল্য। দলিত সম্প্রদায়ের পরিবারের সদস্য হিসাবে তারা সংগ্রাম করেছে। তারা আরও পড়া শোনা করতে চায়।

প্রিয়া বাশফোর ও পায়েল বাশফোর। তারা একে অপরের আপন মামাতো ফোফাতো বোন। তাদের ঘরও পাশাপাশি। দু’জনই একই স্কুলে পড়ে এক সঙ্গেই বেড়ে উঠেছে। তারা নেত্রকোণা শহরের চকপাড়া এলাকায় হরিজন পল্লীতে বসবাস করে।

তাদের মধ্যে লেখাপড়া করে প্রিয়া পুলিশের বড় কর্মকর্তা হয়ে হরিজনদের দুঃখ ঘোচাতে চায়। আর পায়েল শিক্ষক হয়ে তাদের সম্প্রদায়ে আলো বিলাতে চায়। আর পায়েলের বাবা-মাও ঝাড়ুদার। তাদের সংসারেও দুঃখ নিত্য দিনের সঙ্গী। বাবা ইমরিত বাশফোর, মা মালতি বাশফোর দিন-রাত খেটে খুটে যা পান তা দিয়ে চলতে হয়। পায়েলরা এক ভাই, এক বোন। পায়েলই সবার বড়। ভাই আশিক বাশফোর শহরের সাতপাই এলাকায় নেত্রকোণা উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ে।

পায়েল ও প্রিয়া বাল্য বিবাহের শিকার হয়েছির। কিন্তু লেখাপড়া অদম্য ইচ্ছার কাছে তাদের পরিবার হার মেনেছে। ঠেকিয়েছে নিজেদের বাল্যবিবাহ। এরই ধারাবাহিক এবার তারা এসএসসি পাশ করেছে।

তাদের স্কুলে যাওয়া-আসা, পড়াশোনা সুখকর ছিল না। তারা গরিব ও নিচু জাত। অন্যদিকে, বাবা-মার পেশার কারণে অনেক শিক্ষার্থীরাই তাদের সঙ্গে মিশতে চাইতো না। ভালো ব্যবহারও করতো না। তবুও নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে প্রিয়া পায় জিপিএ ৩.৭৯ আর পায়েল ৪.৫০ লাভ করে।

তারপর ভর্তি হয় শহরের সাতপাই এলাকায় আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ে। এরই মধ্যে ২০১৫ সালে তাদের পৃথক দুইটি পরিবার বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালায়। তখন তারা সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। কিন্তু শিক্ষক তমা রায়কে সঙ্গে নিয়ে নিজেরাই নিজেদের বাল্যবিবাহ ঠেকিয়ে দেয়। এবার এসএসসিতে ওই স্কুলের বাণিজ্য শাখা থেকে প্রিয়া ও পায়েল উভয়েই জিপিএ-৩.৬১ অর্জন করে।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ
এইচ/১৮:২৪/০৮ জুন

নেত্রকোনা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে