Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯ , ৭ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-৩০-২০১৯

প্রেমবিচ্ছেদেই আত্মহত্যা করেছিলেন মডেল রাউধা

প্রেমবিচ্ছেদেই আত্মহত্যা করেছিলেন মডেল রাউধা

রাজশাহী, ৩০ মে- রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রী ও মালদ্বীপের মডেলকন্যা রাউধা আতিফ আত্মহত্যা মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।

বুধবার বিকালে রাজশাহীর মুখ্য মহানগর আদালতে এ প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজশাহী পিবিআইয়ের (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) এসআই সাইদুর রহমান আদালতে মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

আত্মহত্যা করেছিলেন রাউধা বলে চূড়ান্ত এ প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ১৮ আগস্ট রাউধা আত্মাহত্যার মামলাটি অধিক তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন আদালত। এরপর থেকে তদন্ত শুরু করে পিবিআই। মামলার দীর্ঘ তদন্তে মডেল কন্যা রাউধা আত্মহত্যা করেছেন বলেই তথ্য মিলেছে।

তার মৃত্যুর ঘটনায় হত্যার কোনো আলামত মেলেনি বলেও উল্লেখ করেন চাঞ্চল্যকর এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

এসআই সাইদুর বলেন, প্রেমিকের সঙ্গে বিচ্ছেদের কারণেই আত্মহত্যা করেছেন রাউধা। তার শেষ গৃহীত কল ছিল তার বয়ফ্রেন্ড শাহী ঘনির। তার পাঠানো শেষ মেসেজ ছিল ‘ইউ কিলড মি। আই ফিল ডেড। আমার আর কিছুই থাকল না’।

এর আগে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহের দিকে রাউধা আতিফের ভিসেরাসহ গুরুত্বপূর্ণ তিনটি প্রতিবেদন চেয়ে পাঠায় মালদ্বীপ দূতাবাস।

এরপর চাঞ্চল্যকর এই আত্মহননের মামলার তদন্ত সংস্থা পিবিআইয়ের রাজশাহী কার্যালয় থেকে এসব কাগজপত্র পাঠানো হয়।

পিবিআই রাজশাহী কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, মডেল কন্যা রাউধা যে আত্মহত্যাই করেছিলেন, সেটা পিবিআইয়ের তদন্তেও পাওয়া গেছে। তারা রাউধার আত্মহত্যার তদন্তকাজ শেষ করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন। পুলিশ ও সিআইডিসহ অন্যান্য সংস্থার তদন্ত কার্যক্রম শেষে পঞ্চমবারের মত রাউধার মৃত্যুর তদন্ত করে পিবিআই।

প্রসঙ্গত, রাউধা রাজশাহীর ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। ২০১৭ সালের ২৯ মার্চ ইসলামী ব্যাংক মেডিকেলের ছাত্রী হোস্টেল থেকে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তার মৃত্যুর ঘটনায় শাহ মখদুম থানা পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ ও সিআইডি তদন্ত করে।

দুইবার ময়নাতদন্ত করার হয় রাউধার লাশ। প্রতিটি সংস্থার তদন্তেই তার আত্মহত্যার কথা উল্লেখ করা হয়। তবে রাউধার বাবা ডা. মোহাম্মদ আতিফ এই আত্মহত্যার প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে আসছিলেন।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে রাউধার বাবা ডা. মোহাম্মদ আতিফের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত মামলাটি তদন্ত করার জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন।

সুত্র : যুগান্তর
এন এ/ ৩০ মে

মডেলিং

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে