Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯ , ২ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৫-২৯-২০১৯

ভণ্ড পীর যুবতীসহ আটক

ভণ্ড পীর যুবতীসহ আটক

টাঙ্গাইল, ২৯ মে- টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুরের গোবিন্দাসী গ্রামের মৃত সোনা তালুকদারের ছেলে কথিত ভণ্ড পীর তারা তালুকদার (৭০) কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে এক যুবতীকে অনৈতিক কাজে বাধ্য করায় আটক করেছে এলাকাবাসী।

আটকৃত ভণ্ড পীর তারা তালুকদার টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার মৃত সোনা তালুকদারের ছেলে এবং যুবতী মাহফুজা আক্তার সুমী (২৫) জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সানন্দবাড়ীর নবীনেওয়াত গ্রামের জালাল উদ্দিনের মেয়ে। গত সোমবার (২৭ মে) উপজেলার ভূরুঙ্গামারীর ভরতেরছড়া গ্রামের লক্ষীমোড় নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, কথিত ভণ্ড পীর দীর্ঘ ২০ বছর পূর্বে ভারত থেকে এসে গোবিন্দাসী গ্রামসহ বিভিন্ন গ্রামের কতিপয় প্রভাবশালী মাতাব্বরের ছত্রছায়ায় ওই অনৈতিক কাজগুলো করে আসছিল। এরপর তিনি গোবিন্দাসী গ্রামে তার ওই অনৈতিক কার্যক্রম থেকে গাঁ ডাকা দিয়ে পালিয়ে ছিলেন।

তারপর কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট এলাকার বিভিন্ন শিষ্যের বাড়িতে আসা যাওয়া করতেন। তারই ধারাবাহিকতায় সপ্তাহ খানেক আগে লক্ষ্মী মোড়ের জনৈক শিষ্যের বাড়িতে গত রবিবার (২৬ মে) জহির উদ্দিন নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে এক যুবতীকে নিয়ে দাওয়াত খেতে নিয়ে আসে। এ সময় সুমি জহির উদ্দিনের দু’পা জড়িয়ে ধরে পীরের কু-কীর্তির কথা বলে তাকে বাঁচানোর আকুতি করে। পরে জহির উদ্দিন গ্রামবাসীদের বিষয়টি জানালে গ্রামবাসীরা দু’জনকে আটক করে রাখে।

সুমি জানায়, তার মা মোছাঃ তারাভানু ভন্ড পীরের মুরিদ। এরই সূত্রে পীর তারা তালুকদার তাদের বাড়িতে আসা যাওয়া করত। গত ২০-২২ দিন আগে তাকে পীরের নাতী জুরান আলীর সাথে বিয়ে দেয়ার কথা বলে নিয়ে আসে। সেখানে বিয়ে না দিয়ে মুরিদের বাড়িতে রাত্রি যাপনসহ অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়।

কথিত পীর তারা তালুকদার জানায়, সুমির সাথে তার মৌখিক বিয়ে হয়েছে। তিনি আরও জানায় সে খাজা মঈন উদ্দিন চিশতী (রহঃ) এর চিশতীয়া তরিকার নিজামীয়া খান্দানের অনুসারী এবং দেশব্যাপী তার তিন শতাধিক মুরিদান রয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ২ ছেলে ১ মেয়ের জনক। বড় ছেলে সৌদি প্রবাসী এবং ছোট ছেলে ড্রাইভার।

ভূরুঙ্গামারীর উপজেলার বঙ্গসোনাহাট ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ শাহজাহান আলী মোল্লাহ জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে গত (২৮ মে) বড় অংকের টাকার বিনিময়ে ওই দ’জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় বুধবার (২৯ মে) ভূরুঙ্গামারী থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ডাঃ মোঃ মজনু মিয়া জানান, আমি বিষয়ে জানতে পেরেছি তিনি অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়ে ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ওই গ্রামে স্থানীয়রা তাকে আটক করে। এই ন্যাক্কার কাজের জন্য কথিত ওই ভন্ড পরীরের কঠোর শাস্তি দাবি করছি। এ ব্যাপারে গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান ।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ
আর এস/ ২৯ মে

টাঙ্গাইল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে