Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯ , ১০ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৫-২২-২০১৯

ই-টিকিটিংয়ে হোঁচট খেল রেলওয়ে

ই-টিকিটিংয়ে হোঁচট খেল রেলওয়ে

ঢাকা, ২২ মে- ঈদযাত্রার অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনেই হোঁচট খেল রেলওয়ে। ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে বুধবার নানা অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিভিন্ন গন্তব্যের মানুষের জন্য ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি। যাত্রীদের ভোগান্তি এড়াতে এবারই প্রথম কমলাপুর স্টেশনের বাইরে চারটি জায়গা থেকে টিকিট বিক্রির ব্যবস্থা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি ই-টিকিটিংয়ের জন্য ৫০ শতাংশ টিকিট বরাদ্দ রাখা হয়েছিল। তবে অ্যাপে বা অনলাইনে টিকিট কিনতে পারেননি অনেকে। আর সে ব্যর্থতা স্বীকার করেছেন রেলমন্ত্রী।

সকাল ৯টা থেকে কাউন্টারগুলোতে ৩১ মের টিকিট বিক্রির মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কিন্তু সকাল থেকেই রেলওয়ের ওয়েবসাইট বা অ্যাপ ব্যবহার করে টিকিট কাটতে পারেননি অনেকে। ই-টিকিট সংগ্রহ করতে না পেরে সকালে অনেকেই ছুটে আসেন স্টেশনের দিকে। কমলাপুর স্টেশনে কাউন্টারে আগের রাত থেকে অপেক্ষমাণ টিকিটপ্রত্যাশীদের সঙ্গে যোগ দেন তারা।

ব্যর্থতা স্বীকার রেলমন্ত্রীর

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কমলাপুর স্টেশনে টিকিট বিক্রির কার্যক্রম পরিদর্শনে যান রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। ই-টিকিটিংয়ের অব্যবস্থাপনায় ব্যর্থতা স্বীকার করে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘সেবাদাতা সংস্থা সিএনএসবিডিকে পাঁচ দিন সময় দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ই-টিকিটিং সেবা ঠিক না হলে অবিক্রিত টিকিটগুলো ২৭ মে কাউন্টারে দেওয়া হবে। সিএনএসবিডি কাঙ্ক্ষিত যাত্রীসেবা দিতে ব্যর্থ হলে সেপ্টেম্বরে তাদের সঙ্গে যে চুক্তি হওয়ার কথা তা আর করা হবে না।

অভিযোগ পেয়ে কমলাপুর স্টেশনে দুদক টিম

অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হওয়ার ঘণ্টাখানেক পর সকাল ১০টার দিকে কমলাপুর স্টেশনে আসেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একটি দল। তারা যাত্রীদের কাছ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ শোনেন। তারপর তারা রেলস্টেশন ম্যানেজারসহ রেলের ও সিএনএসবিডির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তারা চলে যান।

দুদকের উপসহকারী পরিচালক মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘টিকিট না পাওয়ার বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে আমরা এসেছি। তবে অভিযোগগুলো অ্যাপের মাধ্যমে ও অনলাইনে টিকিট কিনতে না পারার। আর এ বিষয়ে আমরা সিএনএসবিডির কাছ থেকে কোনো সদুত্তর পাইনি। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কমিশনে আমাদের প্রতিবেদন জমা দিব।’ তবে কাউন্টারে টিকিট বিক্রি নিয়ে তেমন অভিযোগ নেই বলে জানান দুদকের এই উপসহকারী পরিচালক।

ভোগান্তিতে ক্ষুব্ধ টিকিটপ্রত্যাশীরা

এদিকে বুধবার সকাল থেকে অনলাইনে বা অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট কেনার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে অনেকেই ছুটে আসেন কমলাপুর স্টেশনে। অনেক টিকিটপ্রত্যাশী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বাংলাদেশ রেলওয়ের ফেসবুক পেজেও অনেকে এ বিষয়ে উষ্মা জানিয়েছেন।

শান্তিনগরের গৃহিণী আসমা আরা অ্যাপে টিকিট কিনতে না পেরে কমলাপুর স্টেশনের কাউন্টারে আসেন। সেখানে আগে থেকেই থাকা লাইনে দাঁড়ান টিকিটের প্রত্যাশায়। তিনি বলেন, ‘ঈদের আগে দিনাজপুর যাব। একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটের জন্য সকাল থেকে চেষ্টা করছি। পারলাম না। অ্যাপে ঢোকাই যাচ্ছে না। এজন্য আমি এখানে চলে এসেছি। বাসায় ছেলেকে বলে এসেছি সে যেন মোবাইলে চেষ্টা করে টিকিট কেনার।’

কাজী রফিকুল ইসলাম নামের একজন বলেন, ‘কোনো বছর ঈদেই আমরা অনলাইনে টিকিট পাই না। মাননীয় রেলসচিব, মাননীয় রেলমন্ত্রী! আপনারা সৎ ও কর্মনিষ্ঠ বলেই আমরা মন থেকে বিশ্বাস করি। তাহলে কেন আপনারা এই দুর্ভোগ থেকে আমাদের মুক্তি দিচ্ছেন না?’ তবে টিকিটপ্রত্যাশীদের এসব অভিযোগের বিষয়ে সিএনএসবিডির কারো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

শুক্রবার থেকে বিশেষ ট্রেনের টিকিট

এবার ঈদযাত্রায় ঢাকা থেকে ৩৩টি আন্তঃনগর এবং চারটা বিশেষ ট্রেনসহ ৩৭টি ট্রেনের ২৮ হাজার ২২৪টি টিকিট বিক্রি হবে। কমলাপুর স্টেশন থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে যাতায়াতকারী ১৬টি ট্রেনের ১৪ হাজার ৯৫টি টিকিট বিক্রি হবে। এর মধ্যে কাউন্টার থেকে পাঁচ হাজার ৯৪৪টি এবং অনলাইন ও মোবাইল অ্যাপসে আট হাজার ১৫১টি টিকিট বিক্রি হবে।

বিমান বন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সাতটি আন্তঃনগর ট্রেনের চার হাজার ৮৭৯টি টিকিট বিক্রি হবে। এর মধ্যে দুই হাজার ৫৪৮টি অনলাইনে এবং দুই হাজার ৩৩১টি টিকিট কাউন্টার থেকে বিক্রি হবে।

তেজগাঁও স্টেশন থেকে জামালপুরগামী পাঁচটি ট্রেনের তিন হাজার ৪৪৪টি টিকিট বিক্রি হবে। এর মধ্যে ৬৪৪টি অনলাইনে এবং ৬১৪টি কাউন্টারে বিক্রি হবে।

বনানী রেলওয়ে স্টেশন থেকে মোহনগঞ্জ রুটের দুটি ট্রেনের এক হাজার ২৫৮টি টিকিট বিক্রি হবে। ৬৪৪টি টিকিট অনলাইনে বাকি ৬১৪টি টিকিট কাউন্টারে দেওয়া হবে।

ফুলবাড়ীয়া পুরাতন রেলভবন থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জ রুটের সাতটি আন্তঃনগর ট্রেনের চার হাজার ৫৪৮টি টিকিট বিক্রি হবে। এর মধ্যে দুই হাজার ২৫১টি টিকিট অনলাইনে এবং দুই হাজার ২৯৭টি টিকিট কাউন্টারে বিক্রি হবে।

সূত্র: ঢাকাটাইমস
আর এস/ ২২ মে

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে