Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১২ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (36 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-০৭-২০১৩

দেশের ৩য় সমুদ্র বন্দর ‘পায়রা’ স্থাপনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে

খায়রুল বাশার বুলবুল



	দেশের ৩য় সমুদ্র বন্দর ‘পায়রা’ স্থাপনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে

বরগুনা, ৭ সেপ্টেম্বর- বাংলাদেশের দক্ষিণ উপকূলে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলায় দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর নির্মাণের বিষয়টি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। উপজেলার লালুয়ায় রামনাবাদ চ্যানেলে পায়রা সমুদ্র বন্দর নামে অক্টোবর মাসে নতুন এ সমুদ্র বন্দরের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে । রামনাবাদে দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর নির্মিত হওয়ার খবরে রামনাবাদ পাড়ের দীর্ঘ ১২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এখন চলছে আনন্দ-উল্লাস ।

বন্দর স্থাপন সংক্রান্ত কারিগরি টিমের প্রধান ও চট্রগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার ও মেরিন) ক্যাপ্টেন আরিফ মাহমুদের মতে, সমুদ্র্র বন্দরটি স্থাপিত হলে ২০০৫-২০০৬ সালের সার্ভে অনুসারে বর্তমানে সাড়ে চার মিটার থেকে সাত মিটার গভীরতা স¤পন্ন সাড়ে ৭ হাজার থেকে ১০ হাজার টন মালামাল বোঝাই জাহাজ লালুয়ার রামনাবাদ মোহনা এলাকায় সমুদ্র থেকে এ মুহূর্তে মালামাল নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে। জেটি ছাড়াই জাহাজ দিয়ে পণ্য এখান থেকে খালাসের সুবিধাও রয়েছে। রামনাবাদ মোহনায় গভীরতা বেশি বলে ওই টিমের অন্যান্য সদস্যরা জানিয়েছেন। সমুদ্র বন্দর চট্রগ্রাম ও মংলা বন্দরের তুলনায় এখানে অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে। বন্দর স্থানের গভীরতা রয়েছে ১৫ মিটার পাশাপাশি চট্রগাম বন্দরের গভীরতা মাত্র ৯ দশমিক ২ মিটার। এ বন্দরের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য সুবিধা হবে, গভীরতা বেশি থাকার ফলে এ বন্দরের জেটিতে মাদার ভ্যাসেল ভিড়তে পারবে এবং এ মাদার ভ্যাসেল থেকেই মালামাল সরাসরি লোড-আনলোড করা যাবে। যেখানে চট্রগ্রাম বন্দরের গভীরতা কম থাকায় মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য প্রথমে লাইটার জাহাজে তোলা হয় এবং লাইটার জাহাজ থেকে পণ্য মূল জেটিতে নিয়ে খালাস করা হয়। এতে পণ্য লোড-আনলোডে অতিরিক্ত সময় ব্যয় হয়। কিন্তু পায়রা তৃতীয় সমুদ্র বন্দরে মাদার ভ্যাসেল থেকে সরাসরি পণ্য খালাসের সুবিধা থাকায় পন্য লোড-আনলোডে সময় লাগবে না। ভিড় ভাট্টার কারণে মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য খালাস হয়ে চট্রগ্রাম বন্দর থেকে ঢাকা পৌছাতে গড়ে ৬/৭ দিন সময় লাগলেও প্রস্তাবিত এ বন্দর থেকে সময় লাগবে মাত্র ২/৩ দিন।
 
নৌমন্ত্রী শাজাহান খান এমপি গত ১৭ আগস্ট শনিবার রামনাবাদ চ্যানেল এলাকা পরিদর্শন শেষে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক এ বন্দর স্থাপনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কথা জানান। এ সময় পানি স¤পদ প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর রহমান এমপিসহ উচ্চ পর্যায়ের একাধিক সরকারি কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো থেকে জানা গেছে, এ বছরের জানুয়ারিতে সমুদ্র বন্দর স্থাপনের লক্ষ্যে প্রাথমিক পর্যায়ের জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। এজন্য টিয়াখালীতে ১০০ বিঘা জমি অধিগ্রহণের জন্য ¯পট যাচাই বাছাইয়ের কাজ স¤পন্ন করা হয়েছে। পরবর্তীতে লালুয়ার চারটি মৌজার অধিকাংশ জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে দু’টি পন্টুন, একটি প্রশাসনিক ভবন ও একটি গুদাম নির্মাণ করে বন্দরের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করা হবে। এ লক্ষ্যে সমুদ্র বন্দর নির্মাণের জন্য চট্টগ্রাম বন্দর হাইড্রোগ্রাফি বিভাগের প্রধান লে. কমান্ডার হাবিব-উল-আলমকে প্রধান করে সাত সদস্যের একটি তদারকি সেলও গঠন করা হয়েছে। এ বছরের ২৬ জানুয়ারি থেকে কর্মকর্তারা কলাপাড়ায় মাঠ পর্যায় কাজ শুরু করেছেন। রামনাবাদ মোহনা ঘেঁষা টিয়াখালী নদীর কিনারসহ বিভিন্ন ¯পটের জমি অধিগ্রহণ করে সেখানে লাল পতাকা দেয়া হয়েছে। অক্টোবরে ছোট ভ্যাসেলের মাধ্যমে পণ্য খালাসের মধ্য দিয়ে এই বন্দরের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।
 
উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১২ সালের ২৫ ফেব্র“য়ারি দিনভর পটুয়াখালী-৪ আসনের কলাপাড়া, রাঙ্গাবালী ও কুয়াকাটায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। তখন কলাপাড়ার এমবি কলেজ মাঠের জনসভায় রামনাবাদ চ্যানেলে দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের নির্দেশ দেন। ওই নির্দেশের আলোকে ২৯ ফেব্র“য়ারি প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব সেলিমা খাতুন এক চিঠিতে নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের সচিবকে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্র“তি বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য অনুরোধ করেন।

পটুয়াখালী

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে