Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-২৪-২০১৯

সৌম্য-লিটনদের নায়ক হবার সেরা সময় বিশ্বকাপ

সৌম্য-লিটনদের নায়ক হবার সেরা সময় বিশ্বকাপ

ঢাকা, ২৪ এপ্রিল- ২০০ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন সৌম্য সরকার। এর আগের ম্যাচেও খেলেছিলেন শত রানের ইনিংস। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ানের ইতিহাসে নিজের নাম লেখালেন এই বাঁহাতি ওপেনার। যা কি না পারেননি দেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবালও।

দীর্ঘ দিন ধরে তার ব্যাটে ছিল না রান। এ নিয়ে হতাশ শুধু সৌম্য একাই নন, হতাশ বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভক্তরাও। তবু আস্থা রেখেছিলেন নির্বাচকেরা। সে জায়গা থেকেই বিশ্বকাপের দলে নিয়েছেন সৌম্যকে।

এতদিন ধরে লিটন দাস ছিলেন সৌম্যর চেয়ে এগিয়ে। মানে আসন্ন আয়ারল্যান্ড সিরিজে তামিমের সঙ্গে ওপেন করবেন লিটন। পরীক্ষা হবে সৌম্যরও। পাল্টে গেল দৃশ্যপট। এখন লিটনের চেয়ে এগিয়ে গেলেন সৌম্য। ব্যাপারটা স্বাভাবিক। বেড়ে গেল প্রত্যাশাটাও।

বিশ্বকাপের মিশনে নামার আগে লিটন-সৌম্যদের নামতে হবে ত্রিদেশীয় সিরিজে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। আগামী ১ মে আয়ারল্যান্ডের উদ্দেশে রওয়ানা করবে টাইগাররা।

তার আগে সবাই নিজেদের প্রস্তুত করে নিচ্ছেন। আগামী দুই মাসে এই লম্বা সফরে খেলতে হবে কমপক্ষে ১৩টি ম্যাচ।

আজ মিরপুরে অনুশীলন শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন তামিম ইকবাল। উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন সৌম্যর ডাবল সেঞ্চুরি নিয়ে।

‘সৌম্যর অসাধারণ অর্জন এটি। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম কেউ দুইশ রানের ইনিংস খেলেছে। কদিন পরেই আয়ারল্যান্ড সফর আর বিশ্বকাপ। যদিও সেটা ভিন্ন কন্ডিশনে ভিন্ন বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে খেলব। তবু রান করাটা সবসময়ই ইতিবাচক। এটা আত্মবিশ্বাস যোগায়। কোথায় রান করেছে সে, এর চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো রান করেছে। সবশেষ দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি না করে যদি ৫ ও ১০ করতো, তাহলে এক শতাংশ বেশি হলেও চাপে থাকত।’

দীর্ঘদিন ধরেই রান পাচ্ছিলেন না সৌম্য। এটা যে কাউকে মানসিকভাবে চাপে ফেলে। এ নিয়ে তামিম আরও বলেন, এখন সে রান করেছে। কেউ যখন রান করে, সে জানে কিভাবে রান করতে হয়। কারও ফর্ম খারাপ থাকলে ভুলে যায় যে কিভাবে রান করতে হয়। এটা খুবই ইতিবাচক দিক যে আয়ারল্যান্ডে যাওয়ার আগে সে দুটি বড় ইনিংস খেলেছে।

তবে তামিম মনে করিয়ে দেন আয়ারল্যান্ড সফরে খেলতে পারা মানেই বিশ্বকাপের একাদশে নিশ্চিত নন। খারাপ করলে সুযোগ পাবে অন্য কেউ। তামিম এটাও স্বীকার করেন, এই দুজনের দিনে যেকোনো দলের বোলিং লাইন-আপ ধ্বসে দিতে পারেন।

‘আমি নিশ্চিত, লিটন ও সৌম্যর সামর্থ্য আছে। যথেষ্ট সুযোগ পাচ্ছে। আমি নিশ্চিত, এখনই ওদের সময়, গোটা বিশ্বকে দেখিয়ে দেওয়ার যে তারা কতটা ভালো।’

এমএ/ ০৯:৩৩/ ২৪ এপ্রিল

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে