Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৪ মে, ২০১৯ , ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-১২-২০১৯

‘উত্ত্যক্ত’ করায় ইমামকে পেটাল বোরকাপরা ৩ নারী

‘উত্ত্যক্ত’ করায় ইমামকে পেটাল বোরকাপরা ৩ নারী

চাঁদপুর, ১২ এপ্রিল- চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায় মসজিদের সহসভাপতির মেয়েকে উত্ত্যক্তের অভিযোগে বোরকাপড়া তিন নারী মসজিদের ইমামকে পিটিয়ে জখম করেছেন বলে জানা গেছে। পরে রক্তাক্ত আহতাবস্থায় উপজেলার কুটিরবাজার জামে মসজিদের ওই ইমাম মো. সৈয়দ আহাম্মেদকে পাশের রায়পুর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায় এলাকাবাসী।

ঘটনাটি ঘটে গত বুধবার ভোর ৬টায় রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের সাহেবগঞ্জ গ্রামের ওই মসজিদে। এই ঘটনার পরপরই স্থানীয় এলাকাবাসী হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। তারা হামলাকারী ওই তিন নারীকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানায়। এমনকি তারা গণস্বাক্ষর করে অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলেও জানা গেছে।

এ বিষয়ে কুটিরবাজার জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন সিরাজ উল্লা বলেন, ‘মসজিদের সহসভাপতি নুরুল আমিনের পরিবারের পক্ষ থেকে তার মেয়ে রিমাকে বিয়ে করার জন্য ইমাম সৈয়দ আহম্মেদকে প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু ইমাম তাতে অস্বীকৃতি জানায়। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন সময়ে নুরুল আমিনের পরিবারের লোকজন ইমামকে হুমকি-ধামকি দেয়। ঘটনার দিন ফজরের নামাজ শেষে ইমাম বাইরে এলে বোরকা পড়া ওই তিন নারী তার ওপর মরিচের গুড়া ছিটিয়ে ও লাঠি দিয়ে আঘাত করতে থাকে। এ সময় মুসল্লিরা ওই তিন নারীকে আটক করলেও সেখানে রিমা থাকায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়।’

এদিকে মসজিদের সহসভাপতি নুরুল আমিন উল্টো অভিযোগ করে বলেন, ‘ইমাম বহুদিন ধরে এলাকার কিছু বখাটে ছেলেদের নিয়ে আমার মেয়েকে উক্ত্যক্ত করছিল। যা আমি মসজিদ কমিটির সভাপতির কাছে নালিশও করেছিলাম। কিন্তু কোনো বিচার পাইনি।’ তবে হামলার ঘটনা স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘তারা ক্ষিপ্ত হয়ে এ কাজটি করেছে।’

মসজিদের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ইমাম সাহেব নুরুল আমিনের মেয়েকে বহুদিন ধরে উত্ত্যক্ত করছে শুনে ইমামকে বলেছিলাম আপনি এখান থেকে চলে যান। তিনি চলেও গিয়েছিলেন, কিন্তু কিছুদিন পর মসজিদ কমিটির কিছু লোক তাকে পুনরায় নিয়ে আসে। এ নিয়ে আমি মসজিদে ইমামের পেছনে দুই মাস নামাজও পড়িনি।’ হামলার কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমি ওই সময় পরীক্ষার কাজে বাইরে ছিলাম।’

এ বিষয়ে কথা বলতে মসজিদের ইমাম সৈয়দ আহম্মেদের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রকিব বলেন, ‘কোনো পক্ষই এখনও আমাদেরকে জানায়নি। তবে বিষয়টি লোক মারফত জানতে পেরেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আর/০৮:১৪/১২ এপ্রিল

চাঁদপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে