Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯ , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-১০-২০১৯

সুস্থ হাজতি অসুস্থ সেজে মাদক ব্যবসায়

দুলাল হোসেন


সুস্থ হাজতি অসুস্থ সেজে মাদক ব্যবসায়

ঢাকা, ১০ এপ্রিল- ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সুস্থ হাজতি সাগরকে অসুস্থ সাজিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় মিটফোর্ড হাসপাতালে। সেখানেই মোবাইল ফোনের সাহায্যে নির্বিঘ্নে মাদকব্যবসা চালিয়ে যান মো. সাগর। সহকারী হিসেবে পাশে পান স্ত্রীকেও।

আর এ কাজে সুযোগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কারা চিকিৎসক ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। এরই মধ্যে অভিযোগটি তদন্তপূর্বক বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়াও শুরু করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের চিকিৎসক ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে। সুস্থ হাজতিকে অসুস্থ সাজিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়ে মাদকব্যবসা করার সুযোগ দেওয়ার অভিযোগেই এ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে তার কাছে জবাব চেয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের শৃঙ্খলা অধিশাখা থেকে চিঠিও দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে- ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের (কেরানীগঞ্জ) হাজতি মো. সাগর গুরুতর অসুস্থ না হওয়া সত্ত্বেও চিকিৎসার জন্য আপনি (ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস) গত ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) রেফার করেন। চিকিৎসার সুযোগ পেয়ে আসামি সাগর তার স্ত্রীর মোবাইল ফোন ব্যবহার করে অবৈধভাবে মাদকব্যবসা চালায়।

তাই আপনার উল্লিখিত কার্যকলাপ সরকারি কর্মচারী আচরণ বিধিমালার পরিপন্থী এবং সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮-এর (৩) বিধি মোতাবেক অসদাচরণ ও দায়ে অভিযুক্ত করা হলো। কেন ওই বিধিমালার অধীনে আপনার বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত দ- প্রদান করা হবে না, তার কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ করা হলো।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘আমি এখন কারা হাসপাতালে নেই। আমাকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে বদলি করা হয়েছে। সাগর নামে যে আসামিকে নিয়ে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তিনি প্রথমে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি হন। এর পর আসামি সেখানকার সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকে ম্যানেজ করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড মিটফোর্ড হাসপাতালে যান। সেখানে গিয়ে তিনি মোবাইল ফোনে স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন।’

সহকারী এ সার্জন আরও বলেন, ‘কারাগারের কোনো আসামি অসুস্থ হলে তাকে কারা হাসপাতালে আনা হয়। আর উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে কারা চিকিৎসক কেবল বাইরের অন্য হাসপাতালে পাঠানোর সুপারিশ করে থাকেন। কিন্তু আসামিকে কারাগারের বাইরের হাসপাতালে পাঠানোর দায়িত্ব পুলিশ ও কারা কর্তৃপক্ষের ওপর। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা ভুল। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে অভিযোগের বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ করা হয়েছে। আমি জবাব প্রস্তুত করেছি।’

আর/০৮:১৪/১০ এপ্রিল

অপরাধ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে