Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২২ মে, ২০১৯ , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-০৯-২০১৯

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের আসন কমছে?

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের আসন কমছে?

কলকাতা, ০৯ এপ্রিল- ভারতের লোকসভা নির্বাচন আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশটির বিভিন্ন সংস্থা জনমত সমীক্ষা করেছে। সংস্থাগুলো বলেছে, এবার পশ্চিমবঙ্গে শাসক দল তৃণমূলের আসন কমছে। এই রাজ্যে বিজেপির আসন বাড়ছে। যদিও তৃণমূল নেত্রী বারবার ঘোষণা দিয়েছেন, এই রাজ্যের ৪২ আসনেই তাঁরা এককভাবে জিততে চলেছেন।

গতকাল সোমবার রাতে টাইমস নাউ ও ভিএমআর-এর যৌথ সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়, পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের আসন কমছে। বাড়ছে বিজেপির আসন। বাম দল কোনো আসন পাচ্ছে না। সারা দেশে করা সমীক্ষায় বলা হয়েছে, এবারও কেন্দ্রে মোদি সরকার গড়বে।

টাইমস নাউ ও ভিএমআর বলেছে, পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের মধ্যে এবার তৃণমূল পেতে পারে ৩১টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ৯টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ২টি আসন। অন্যদিকে তাঁরা এ কথাও বলেছে, গোটা দেশে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ পেতে পারে ২৭৯ আসন। সরকার গড়তে প্রয়োজন ২৭২টি আসন। ভারতের লোকসভায় রয়েছে ৫৪৩টি আসন। এই সমীক্ষায় আরও বলা হয়েছে, কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউপিএ পেতে পারে ১৪৯টি আসন আর অন্যরা পেতে পারে ১১৫টি আসন। এতে মোদিরই ফের সরকার গড়ার সম্ভাবনা বেশি। টাইমস নাউ-ভিএমআর এই সমীক্ষা চালায় গত ২২ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিলের মধ্যে। ১৪ হাজার ৩০০ ভোটারের মধ্যে।

নিয়েলসনের আরেক সমীক্ষায় গত রোববার বলা হয়েছে, এবার পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির আসন বাড়ছে। পাশাপাশি কেন্দ্রে আসন কমছে বিজেপির। তবে কেন্দ্রীয় সরকার গড়ার সম্ভাবনা বেশি বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ বা জাতীয় গণতান্ত্রিক জোটের।

পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের সমীক্ষা করেছে আরও দুটি সংস্থা। সি-ভোটার এবং নিয়েলসন। সি-ভোটার দেশব্যাপী ৪৫ হাজার ১৩৪ জন ভোটারের মধ্যে সমীক্ষা চালায়। সমীক্ষা চলে গত ২৪ মার্চ থেকে ২৯ মার্চ পর্যন্ত। আবার নিয়েলসন পশ্চিমবঙ্গের ১০ হাজার ৬৯৯ জন ভোটারের মধ্যে সমীক্ষা চালায়।

নিয়েলসন সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়, পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের মধ্যে এবার তৃণমূল জিততে পারে ৩১টি আসনে। কংগ্রেস জিততে পারে ৪টি আসনে। ৭টিতে জয়ের সম্ভাবনা বিজেপির। বাম দল এবার কোনো আসন নাও পেতে পারে। গত নির্বাচনে তৃণমূল পেয়েছিল ৩৪টি আসন, কংগ্রেস ৪টি এবং বিজেপি ও বাম দল ২টি করে আসন। এবার বিজেপির জয়ের তালিকায় রয়েছে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, ব্যারাকপুর, বালুঘাট, কৃষ্ণনগর এবং গতবার জয়ী দার্জিলিং ও আসানসোল আসন।

সি-ভোটার দেশব্যাপী পরিচালিত তাদের সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ২৬৭টি আসনে জিততে পারে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ বা জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট। কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক জোট বা ইউপিএ পেতে পারে ১৪২টি আসন। আর তৃণমূল, বাম দল, এসপি, বিএসপি, আম আদমি পার্টি এসব দল মিলে পেতে পারে ১৩৪টি আসন। ভারতে রয়েছে লোকসভার ৫৪৩টি আসন। সরকার গড়তে প্রয়োজন ২৭২টি আসন। ফলে এবার বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএরও এককভাবে সরকার গড়ার সম্ভাবনা কম। তাদের সরকার গড়তে হলে সাহায্য নিতে হবে অন্য দলের।

২০১৪ সালের নির্বাচনে বিজেপি একাই পেয়েছিল ২৮২টি আসন। এবার সেই সংখ্যা থেকে ৬০টি কমে দাঁড়াতে পারে ২২২টিতে। আর এনডিএর শরিক দল পেতে পারে ৪৫টি আসন। গত নির্বাচনে কংগ্রেস ৪৪টি আসন পেলেও এবার সেই সংখ্যা বেড়ে ৯১টি হতে পারে। আর কংগ্রেসের শরিক দল পেতে পারে ৫১টি আসন।

পশ্চিমবঙ্গের রিপোর্টে সি-ভোটার বলেছে, পশ্চিমবঙ্গে ৪২টি আসনের মধ্যে তৃণমূল পেতে পারে ৩৫টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ৬টি আসন। আর কংগ্রেস পেতে পারে মাত্র ১টি আসন। তবে আসন পাবে না বাম দল।

আর/০৮:১৪/০৯ এপ্রিল

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে