Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০১৯ , ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-০৮-২০১৯

এশিয়ার অনূর্ধ্ব ৩০-এর প্রভাবশালীরা

আজহারুল ইসলাম অভি


এশিয়ার অনূর্ধ্ব ৩০-এর প্রভাবশালীরা

আমেরিকার সাময়িকী ‘ফোর্বস’ ২০১৯ সালে সমাজে অবদান রাখায় থার্টি আন্ডার থার্টি নামে অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়সী ৩০০ তরুণের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে। টানা চতুর্থবারের মতো এ তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস। এবারের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন বাংলাদেশের দুই তরুণও। এশিয়ার ২৩ দেশের কয়েক হাজার তরুণকে নিয়ে এ জরিপ চালিয়েছিল ফোর্বস। 

অভিনভ আগারওয়াল দ্য আর্ট ক্যাটাগরিতে প্রথম হয়েছেন ভারতের অভিনভ আগারওয়াল। ভারতের ফোকসঙ্গীতের ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে তিনি ২০১৩ সালে একটি এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিল্পীদের গান রেকর্ড ও তা প্রচার করতেন। এই গান থেকে প্রাপ্ত রয়ালিটি প্রত্যেক শিল্পীকে বুঝিয়ে দিতেন। শিল্পের প্রতি তার অসামান্য অবদানের জন্য ফোর্বস ম্যাগাজিনের দ্য আর্ট ক্যাটাগরিতে তাকে তালিকার প্রথমে রাখা হয়।

রায়ান ফ্যাংগ ও চানদলার সং আনকর নেটওয়ার্কের দুই প্রতিষ্ঠাতা রায়ান ফ্যাংগ ও চানদলার সং। ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত ‘আনকর নেটওয়ার্ক’কে নিজেদের একটি কম্পিউটিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে দাঁড় করাতে সক্ষম হয়েছেন এই দু’জন। ব্লকচেইন প্রযুক্তির মাধ্যমে নিরাপদ ক্লাউড সার্ভিসটিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় আনকর। এর সহপ্রতিষ্ঠাতা চানদলার সং আগে আমাজনের প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করতেন ও রায়ান ফ্যাংগ ছিলেন ব্যাংকার।

এন্টারপ্রাইজ টেকনোলজি পদে ওই দুইজনকে রাখা হয়েছে প্রথম স্থানে। আখিলা আদাবালা ভারতের নাগরিক আখিলা আদাবালা পেশায় একজন চিকিৎসক। চিকিৎসা ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার করেছেন তিনি চমৎকারভাবে। ‘প্র্যাকটিসডটএআই’ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি হসপিটালে রোগীদের সঙ্গে দ্রুত যোগাযোগের ব্যবস্থা করেন এবং তাদের বিভিন্ন সমস্যা দ্রুত সমাধানের ব্যাপারে কাজ করেন। এ ছাড়াও এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি সিঙ্গাপুর, ভারত এবং দুবাইয়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করেন। চিকিৎসাক্ষেত্রে তার এই অবদানের জন্য তাকে হেলথকেয়ার অ্যান্ড সায়েন্স ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থানে রাখা হয়েছে।

আবদুল্লাহ আল মোরশেদ বাবা মো. আব্দুর রাজ্জাক ও মা নীলুফা রাজ্জাকের তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে সবার ছোট আবদুল্লাহ আল মোরশেদ। তিনি মাধ্যমিক পাস করেন ২০০৮ সালে শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজ এবং উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন ২০১০ সালে ঢাকা বিএন কলেজ থেকে। এর পর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশে ভর্তি হন। বিখ্যাত কার্টুনিস্ট আহসান হাবীবের সঙ্গে তার পরিচয় ঘটে ২০১২ সালে। তিনিই মূলত মোরশেদকে ‘উন্মাদ’ ম্যাগাজিনে কার্টুন আঁকার সুযোগ করে দেন। উন্মাদ ছাড়াও তিনি কাজ করেছেন অনেক জায়গায়। সম্প্রতি তার ‘গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জ’ শিরোনামের কিছু ছবি বিশ্বমিডয়ায় ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় আমেরিকার প্রভাবশালী সাময়িকী ‘ফোর্বস’-এর ২০১৯ সালে ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে সমাজে অবদান রাখায় অনূর্ধ্ব-৩০ বছর বয়সী এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ৩০০ তরুণের তালিকা ‘থার্টি আন্ডার থার্টি’তে জায়গা করে নিয়েছেন কার্টুনিস্ট আবদুল্লাহ আল মোরশেদ।

ফোর্বসের তালিকায় তার সম্পর্কে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের শুরুর দিকে কার্টুনিস্ট মোরশেদ বিশ্বজুড়ে চলমান ভয়াবহ বিভিন্ন যুদ্ধের ওপর কার্টুন বা ব্যঙ্গচিত্র তৈরি করতে শুরু করেন। যুদ্ধের মর্মান্তিক ও যন্ত্রণাদায়ক ছবিগুলো তার কলমের প্রতিভায় রূপ নিতে থাকে হাসি-আনন্দভরা শিল্পকর্মে। তিনি দেখানোর চেষ্টা করেছেন যুদ্ধের নির্মমতা না থাকলে পৃথিবীটা কত সুন্দর হতো।

এই আইডিয়াগুলো সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এগুলো এসেছে মূলত আমার উদ্বেগ থেকে। কারণ যুদ্ধকালীন ওই সময়কার ছবিগুলো দেখে কারোরই ভালো লাগার কথা নয়। আমিও খুব হতাশ হতাম ছবিগুলো দেখে। চাইতাম এভয়েড করে যেতে। তবে ছবিগুলো এত বেশি চোখের সামনে আসছিল যে, বারবার চাইলেও এভয়েড করতে পারতাম না। এর পর চিন্তা করলাম, আমি তো এসব দেখতে চাই না। কিন্তু আমি কী দেখতে চাই? আমার মনে হলো, আমি আসলে হাসিমুখ দেখতে চাই। ওই চিন্তা থেকেই গ্লোবাল হ্যাপিনেস চ্যালেঞ্জের ধারণাটা আসে।’ থার্টি আন্ডার থার্টি তালিকার মিডিয়া, মার্কেটিং অ্যান্ড অ্যাডভার্টাইজিং ক্যাটাগরিতে আবদুল্লাহ আল মোরশেদকে তালিকার প্রথমে রাখা হয়েছে।

হুসাইন এম ইলিয়াস ফোর্বসের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হুসাইন এম ইলিয়াস ও সিফাত আদনান ‘পাঠাও’ প্রতিষ্ঠা করেন। তাদের মধ্যে ইলিয়াসের বয়স মাত্র ২৯ বছর। বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও যানবাহন ছাড়াও ফুড ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করছে। পাঠাও অ্যাপসের মাধ্যমে মোটরসাইকেল ও গাড়ি ব্যবহার করছে বাংলাদেশের পাঁচটি শহর এবং নেপালের কাঠমা-ুতে প্রায় ৫০ লাখ মানুষ। প্রতিষ্ঠানটিতে বিদেশি বিনিয়োগ আছে এবং পাঠাও চার দফায় ১২ মিলিয়ন ডলার তহবিল সংগ্রহে সক্ষম হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক মূল্য এখন ১০০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি।

উল্লেখ্য, কনজিউমার টেকনোলজি ক্যাটাগরিতে ইলিয়াসকে স্থান দেওয়া হয়েছে। পাঠাও প্রতিষ্ঠানটি একটি সৃজনশীল ভাবনার বহিপ্রকাশ। যেমন ভাবনা তেমন বাস্তবায়ন করেছিলেন ২০১৬ সালে তিন যুবক। প্রথমে ২০১৫ সালে বিনিয়োগ না থাকায় শুরু করেন বাইসাইকেলে পণ্য ডেলিভারি। বিনিয়োগ বলতে শুধু মাত্র তিনটা বাইসাইকেল ছিল। তারপর বাইকের মধ্যমে শুরু হয় তাদের ডেলিভারি। বাইক দিয়ে আর কী কী করা যায় এমন চিন্তা থেকে ২০১৬ সালে পাঠাও তাদের নতুন যাত্রা শুরু করে এবং ২০১৭ সালে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিদেশী বিনিয়োগে রাইডিং যাত্রী সেবা শুরু করেন। স্বল্পমূল্যে এবং স্বল্প সময়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাত্রী পৌঁছে দেয়াই তাদের কাজ।

পাকিস্তানের কারিশমা আলি চিত্রালেত প্রথম নারী যিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে প্রথম ফুটবল খেলায় অংশগ্রহণ করেন। দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত জুবলি গেমে পাকিস্তানকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি গত বছর। তার দলই ছিল পাকিস্তানের প্রথম দল যেটি এএফএল ইন্টারন্যাশনালে অংশগ্রহণ করে। চিত্রাল ওম্যান্স স্পোর্টস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতাও তিনি। নারী হিসেবে ফুটবল খেলায় তার অবদানের জন্য তাকে এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড স্পোর্টস ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থানে রাখা হয়েছে। এইচওয়াই উইলিয়াম চ্যান কক্স আর্কিটেকচার প্রতিষ্ঠানের আর্কিটেক্ট হলেন এইচওয়াই উইলিয়াম চ্যান। প্লাস্টিক বর্জ্যকে তিনি কাজে লাগিয়েছেন। প্লাস্টিক বর্জ্য থেকে তিনি তৈরি করেছেন থ্রিডি প্রিন্টেড অবজেক্ট।

বিশ্বব্যাপী প্লাস্টিককে যেখানে সবাই ব্যবহার নিষিদ্ধ করছে, সেখানে তিনি এটিকে ভিন্নভাবে ব্যবহারের উপযোগী করে তুলেছেন। তার ওই আবিষ্কারের ফলে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ইউএনএর জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে। তার ওই অবদানের জন্য তাকে ইন্ডাস্ট্রি, ম্যানুফ্যাকচারিং অ্যান্ড এনার্জি ক্যাটাগরিতে দ্বিতীয় স্থানে রাখা হয়েছে। ব্যাম্বাজারগাল মঙ্গলিয়ার সবচেয়ে বড় ভাষা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফারো ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ব্যাম্বাজারগাল। এটি তিনি শুরু করেন ২০১৪ সালে। শিক্ষায় বিশ্বাসী মানুষ তিনি।

তিনি আরও বিশ্বাস করেন, শিক্ষা ছাড়া কোনও জাতি উন্নতির দ্বারপ্রান্তে পৌঁছতে পারে না। তার ফারো ফাউন্ডেশনের ‘ফারো’ নামটির অর্থ ‘আলোর বাড়ি’। এটি স্প্যানিশ ভাষা থেকে নেওয়া। শিক্ষার প্রতি তার এই ভালোবাসা ও অবদানের জন্য তাকে সোশ্যাল ইন্টারপ্রেনিউয়ার ক্যাটাগরিতে স্থান দেওয়া হয়েছে।

আর এস/ ০৮ এপ্রিল

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে