Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-০১-২০১৯

‘প্রশ্নফাঁস রোধে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে কড়া নজর রাখা হচ্ছে’

‘প্রশ্নফাঁস রোধে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে কড়া নজর রাখা হচ্ছে’

ঢাকা, ০১ এপ্রিল- প্রশ্নফাঁস রোধে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে কড়া নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু। আজ সোমবার সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে এইচএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এসএসসির মতো এইচএসসি পরীক্ষাও প্রশ্নপত্র ফাঁস ছাড়া ও নকল মুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। এবিষয় সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো কঠোর নজরদারীতে মধ্যে রাখা হয়েছে।

চলতি এইচএসসি পরীক্ষা প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু একাধিকবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কোনো অবস্থাতেই কাউকে অসদুপায় অবলম্বনের সুযোগ দেওয়া হবে না। যে কারণে শিক্ষক থেকে শুরু পরীক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আনা হয়েছে কঠোর নিয়মানুবর্তিতায়।

তিনি জানান, প্রতিবারের মতো এবারও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করে আসন নিশ্চিত করা হয়েছে। অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থী পরে পরীক্ষা কেন্দ্রে এলে রেজিস্ট্রারে নাম, ক্রমিক নম্বর ও বিলম্বের কারণ উল্লেখ করতে হবে। দেরিতে আসা পরীক্ষার্থীদের তালিকা প্রতিদিন কেন্দ্র সচিব সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে জানাবে। কোনো কারণে পরীক্ষা দেরিতে শুরু হলে নির্ধারিত সময় ঠিক রেখে দেরিতেই শেষ হবে পরীক্ষা।

ডা. দীপু মনি জানান, কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রে অন্য কেউ মোবাইল ফোন বা অননুমোদিত ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন না। কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছবি তোলা ও ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধাবিহীন একটি সাধারণ ফিচার সংবলিত মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। অননুমোদিত ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।

সারা দেশে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা আজ সোমবার শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ৬ মে পর্যন্ত। সরকারি সিদ্ধান্তে, এ সময়ে (১ এপ্রিল থেকে ৬ মে) কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখা হবে। তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষে ৬ মের পর শুরু হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা।

এবার দুই হাজার ৫৭৯টি কেন্দ্রে দেশের ৯ হাজার ৮১টি প্রতিষ্ঠানের ১৩ লাখ ৫১ হাজার ৫০৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেবে। এর মধ্যে ছাত্র ৬ লাখ ৬৪ হাজার ৪৯৬ জন এবং ছাত্রী ৬ লাখ ৮৭ হাজার ৯ জন। এবার ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের আওতায় এইচএসসি পরীক্ষায় মোট অংশ নিচ্ছে ১১ লাখ ৪৭ হাজার ৭৪৭জন। এর মধ্যে ছাত্র ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৮১২ জন এবং ছাত্রী ৫ লাখ ৬৪ হাজার ৯৩৫ জন। এই পরীক্ষায় কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় ১ লাখ ২৪ হাজার ২৬৫ জন এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন আলিম পরীক্ষায় ৭৮ হাজার ৪৫১ জন অংশ নিয়েছে।

সূত্র:  একুশে টেলিভিশন
আর এস/ ০১ এপ্রিল

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে