Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০১৯ , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-০১-২০১৯

দুদক মিডিয়া আ্যওয়ার্ড পেলেন যেসব সাংবাদিক

দুদক মিডিয়া আ্যওয়ার্ড পেলেন যেসব সাংবাদিক

ঢাকা, ০১ এপ্রিল- এবারে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মিডিয়া আ্যওয়ার্ড পেয়েছেন চারজন সাংবাদিক। প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ফখরুল ইসলাম হারুন এবং দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছেন সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি হকিকত জাহান হকি।

ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন মাছরাঙা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি বদরুদ্দোজা বাবু এবং দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছেন একাত্তর টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক পারভেজ নাদির রেজা।

রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে তাদের হাতে নগদ অর্থ, ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেওয়া হয়।

দুদকের শ্রেষ্ঠ দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি, বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী, দুদক মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠান ও সততা সংঘের সমাবেশ উপলক্ষে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, দুদক কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান ও এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, দুদক মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডের জুরি বোর্ডের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল প্রমুখ।

এই অনুষ্ঠানে দুদক চেয়রম্যান বলেন, কেন যেন মনে হয় অনিয়মকে সবাই নিয়মে পরিণত করছে। বনানীর এই বিয়োগান্ত ঘটনা এসব অনিয়মের পরিণতি। এ জাতীয় অনিয়মকে দুর্নীতি হিসেবে অবহিত করে তিনি বলেন, সময়মতো কাজ করবেন না, এটাও দুর্নীতি।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, ২০১৯ সাল হবে দুদকের কাজের বছর। দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজে গতি ফিরিয়ে আনার বছর। যেসব দুর্নীতিবাজরা লুটপাট করেছে, লুটপাটের অংশীদার হয়েছেন বা সরকারি সম্পত্তি গ্রাস করেছেন তারা সাবধান হয়ে যান। যারা গণপূর্ত, সড়ক ও জনপথ, বাংলাদেশ রেলওয়ের জমি দখল করেছেন কিংবা বন বিভাগের সম্পত্তি দখল করে যারা রেস্ট হাউজ বানিয়েছেন তারা সরকারের সম্পত্তি সরকারের কাছে সমর্পণ করুন। নইলে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে। যারা অনিয়মের মাধ্যমে জনগণের অর্থ নিয়েছেন অথবা যারা অর্থ দিয়েছেন এইসব অর্থ লোপাটকারীরাও আইনের আওতায় আসবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, এখন দুর্নীতির মাত্রা কমছে কি না, প্রশ্ন আছে। আশা করি কমছে। তবে রাজনীতি বা অর্থবিত্তের কাছে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান যাতে চাপা না পড়ে, সে বিষয়ে নজর দিতে দুদকের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সূত্র: একুশে টিভি

আর/০৮:১৪/০১ এপ্রিল

মিডিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে