Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯ , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-২৯-২০১৯

'তখন কেন যে নিষেধ করেছিলাম লাফ দিতে'

'তখন কেন যে নিষেধ করেছিলাম লাফ দিতে'

নারায়ণগঞ্জ, ২৯ মার্চ- বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে নিহত নারায়ণগঞ্জের ফজলে রাব্বি ও আহমেদ জাফরের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।

শুক্রবার ভোর রাত ৪টায় সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার ভূঁইগড় এলাকার বাড়িতে পৌঁছায় ফজলে রাব্বির মরদেহ।

একই সময়ে সোনারগাঁও উপজেলার শম্ভুপুরার ইউনিয়নের নবীনগরে বাড়িতে পৌঁছায় আহমেদ জাফরের মরদেহ।

সকালে দুইজনের মরদেহ বাড়িতে পৌঁছানোর পর স্বজনদের আহাজারিতে সেখানকার আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে ওঠে।  

সকালে ফতুল্লার ভঁইগড়ে নবীনগর ভিলায় গিয়ে দেখা যায়, স্বজনদের আহাজারি আর আর্তনাদ। পরিবারের মূল উপার্জনকারী বড় সন্তানের এই করুণ মৃত্যুকে কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না বৃদ্ধ বাবা জহিরুল হক।

একই সঙ্গে শোকে পাথর হয়ে গেছেন মা শাহনাজ বেগম ও একমাত্র ছোট বোন শাম্মি আক্তার। ছেলের ঝলসে যাওয়া নিথর দেহটির কথা বারবার মনে করে বিলাপ করছেন মা-বাবা।

নিহত রাব্বির বাবা জহিরুল হক জানান, বনানীর এফআর টাওয়ারের ১২তলায় ফ্লোগাল লজিস্টিস (ইউরো সার্ভিস) নামের একটি ফ্রেইড ফরোয়ার্ডিং কোম্পানিতে কাস্টিমার সার্ভিস এন্ড ডকুমেন্টেশন বিভাগে এক্সিকিউটিভ পদে কাজ করতো ফজলে রাব্বি।

তিনি জানান, গত এক বছর আগে এখানে কাজে যোগদান করে ফজলে রাব্বি। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার পর কয়েকবার বাড়িতে ফোন করে কথা বলে রাব্বি। ১টা ৫৩ মিনিটে শেষ কথা হয় তার সাথে।

তিনি বলেন, রাব্বি তাদের জানিয়েছিলেন অফিস ফ্লোরে আচ্ছন্ন ধোঁয়ায় আটকা পড়ে গেছে সে। বাঁচার জন্য জানালা দিয়ে নীচে লাফিয়ে পড়বেন কি-না সেই সিদ্ধান্ত চেয়েছিল বাবার কাছে। কিন্ত আমরা রাব্বিকে বারবার নিষেধ করেছিলাম। হয়তো লাফিয়ে পড়লে বেঁচেও যেত। কেন যে তখন নিষেধ করেছিলাম।

এদিকে, স্বামীর মরদেহ দেখে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন রাব্বির স্ত্রী সাবিয়া। দুই বছরের সন্তানকে কীভাবে মানুষ করবেন ভেবে কুলকিনারা পাচ্ছেন না তিনি।

ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার সাতমোড়া গ্রামে পূর্বপুরুষদের বাড়ি হলেও ফজলে রাব্বি গত পাঁচ বছর নারায়ণগঞ্জের ভূঁইগড়ের এই বাড়িত স্বপরিবারে বসবাস করে আসছিলেন। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার বড়।

এদিকে, নিহত আহমেদ জাফর নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের শম্ভুপুরা ইউনিয়নের নবীনগর এলকার হেলাল উদ্দিনের ছেলে।

তার ভাতিজা আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, আহমেদ জাফর ছিলেন সোনালী ব্যাংকের সাবেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। মাত্র তিন মাস আগে চাকরি থেকে অবসরগ্রহণ করে বনানীর এফআর টাওয়ারের আসিফ এন্টারপ্রাইজের ট্রান্সপোর্ট বিভাগের প্রধান পদে যোগদান করেছিলেন। বর্তমানে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের মোহাম্মদী হাউজিংয়ে পরিবার নিয়ে বসবাস করছিলেন।

সূত্র: পরিবর্তন
এমএ/ ০৯:৪৪/ ২৯ মার্চ

নারায়নগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে