Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯ , ২৭ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-২৭-২০১৯

আধুনিক বিনোদন পার্ক হচ্ছে কেরানীগঞ্জে

অমিতোষ পাল


আধুনিক বিনোদন পার্ক হচ্ছে কেরানীগঞ্জে

ঢাকা, ২৭ মার্চ- রাজধানীর উপকণ্ঠ কেরানীগঞ্জে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) তৈরি করতে যাচ্ছে অত্যাধুনিক বিনোদন পার্ক। এ পার্কের নাম দেওয়া হয়েছে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে নিহত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শিশুপুত্র শেখ রাসেলের নামে 'শেখ রাসেল ওয়াটার বেইজড বিনোদন পার্ক'। এ জন্য প্রায় ২১ একর জমি চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় পৌনে ১১ একর সরকারি খাস জমি। বাকি জমি সাধারণের কাছ থেকে অধিগ্রহণ করতে হবে। এরই মধ্যে প্রকল্পপত্র চূড়ান্ত করে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

রাজউকের বোর্ড সদস্য (পরিকল্পনা) আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ব্যাপারে চূড়ান্ত হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে শিগগিরই কাজ শুরু হবে। তিনি বলেন, ওখানে ভূমির প্রকৃতি পরিবর্তন না করেই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পটি প্রণয়নের সঙ্গে রাজউকের ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যানের (ড্যাপ) প্রকল্প পরিচালক নগর পরিকল্পনাবিদ আশরাফুল ইসলাম যুক্ত আছেন।

আশরাফুল ইসলাম বলেন, ড্যাপে ওই এলাকা ওয়াটার বডি (জলাশয়) হিসেবে উল্লেখ আছে। সরকারি খাস হিসেবে চিহ্নিত ওইসব জমির কিছু অংশ দখলদাররা ভরাট করে দখল করে রেখেছে। দখলদারদের উচ্ছেদ করে সেখানে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। যেহেতু সেখানে জলাশয় রয়েছে, কাজেই জলাশয়কে রেখেই পরিকল্পনা করা হয়েছে।

জানা গেছে, মোহাম্মদপুর সংলগ্ন বছিলা ব্রিজ পার হয়ে কিছু দূর এগোলেই ঘাটারচর এলাকা। সেখানেই ২০ দশমিক ৭০ একর জমির ওপর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। এর মধ্যে ১০ দশমিক ৭২ একর খাস জমি। বাকিটা আশপাশ থেকে অধিগ্রহণ করা হবে। এ প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫৪ কোটি ৮২ লাখ ২৪ হাজার টাকা। ২০২২ সালের  .মধ্যে কাজ শেষ হবে।

প্রকল্পে যা থাকবে : বিনোদন পার্ককে আকর্ষণীয় করার জন্য থাকবে এম্পিথিয়েটার, কমিউনিটি সেন্টার, অফিস ভবন, ওয়াচ টাওয়ার, ব্যায়ামাগার, আধুনিক রিসোর্ট, রেস্টুরেন্ট, বোট স্টেশন, কনভেনশন সেন্টার প্রভৃতি। এ ছাড়া থাকবে জলাশয়ভিত্তিক নানা বিনোদনের ব্যবস্থা। জলাশয়ে থাকবে সাঁতার কাটা, নৌকা ভ্রমণসহ জলাশয়কেন্দ্রিক নানা ধরনের বিনোদনের সুবিধা। সাধারণ মানুষের বনভোজন বা পারিবারিক অনুষ্ঠানের জন্যও এটি ভাড়া দেওয়া হবে।

রাজউক মনে করে, ঢাকা শহরের জনসংখ্যা বৃদ্ধির তুলনায় বিনোদনের সুযোগ-সুবিধা খুবই অপ্রতুল। দেশের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আবাসস্থল, খেলার মাঠ, পার্কের পরিমাণ কমে যাচ্ছে। সেই চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর মৌজায় শেখ রাসেল ওয়াটার বেইজড বিনোদন পার্ক প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নের মূল উদ্দেশ্য, বাসযোগ্য ভূমির পাশাপাশি স্বয়ংসম্পূর্ণ বিনোদন অঞ্চল গড়ে তোলা। কেরানীগঞ্জ এলাকায় আধুনিক নাগরিক সুবিধা, অর্থনৈতিক কার্যক্রম তথা নতুন শহরের বিস্তার ঘটানো ও বিদ্যমান খাস জমির সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করা। 

জানা গেছে, এ জন্য প্রকল্পপত্রে ঘাটারচর মৌজার ১২১, ১৯৭, ৭৩৯, ৫০০, ৫০২, ৫৪৫ ও ৪৯৮ দাগের জমি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এগুলো খাস জমি হিসেবে চিহ্নিত। এসব দাগের জমি ড্যাপে হালট, নাল ও বিল হিসেবে চিহ্নিত আছে। এর বাইরে আশপাশ থেকে বাকি জমি অধিগ্রহণ করা হবে, যা ব্যক্তি মালিকানাধীন। তবে ওইসব জমিতেও বড় ধরনের কোনো অবকাঠামো নেই। কাজেই প্রকল্প বাস্তবায়নে কোনো বাধাবিপত্তিও সৃষ্টি হবে না। আগামী জুলাই থেকে ২০২২ সালের জুন মাস সময়কে প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল নির্ধারণ করা হয়েছে।

সূত্র: সমকাল
আর এস/ ২৭ মার্চ

 

ঢাকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে