Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-২২-২০১৯

পরিশ্রম ছাড়াই ধনকুবের যারা

পরিশ্রম ছাড়াই ধনকুবের যারা

ধনী তো অনেকেই হন। এদের মধ্যে একদল আছেন যারা সারা জীবন পরিশ্রম করে শূন্য থেকে সাম্রাজ্য গড়ে তোলেন। এই যেমন জেফ বেজোস কিংবা বিল গেটস এর মতো শীর্ষ ধনীরা শুধুমাত্র নিজেদের প্রচেষ্টা আর অক্লান্ত পরিশ্রমে আজকের অবস্থানে পৌঁছেছেন। আবার আরেক দল আছেন যাদের ধনী হতে পরিশ্রমের কোনো দরকারই পড়েনি। ধনী পরিবারে জন্মেই তারা হয়ে গেছেন অঢেল সম্পত্তির মালিক। চলুন জেনে নিই এমনই কয়েকজন শীর্ষ ধনীর কথা, ধন সম্পদ যাদের কাছে নিতান্তই হাতের ময়লা।

ফ্রাসোয়া বেটেনকোর্ট মেয়ারস (৪৬ বিলিয়ন ডলার)

ব্লুমবার্গ ম্যাগাজিনের তথ্য অনুযায়ী, ফ্রাসোয়া বেটেনকোর্ট মেয়ারস বর্তমান বিশ্বের শীর্ষ ধনী নারী। এজন্য অবশ্য তাকে কোনো কষ্টই করতে হয়নি। তার দাদা ইউজনি স্কুলার ১৯০৭ সালে প্রসাধনী প্রতিষ্ঠান ল’রিয়েল গড়ে তুলেছিলেন। তিনি তার পুরো সাম্রাজ্য বেটেনকোর্টের মা লিলিয়ানকে দিয়ে গিয়েছিলেন। আর ২০১৭ সালে যখন লিলিয়ান মারা যান তখন ল’রিয়েল এর ৩৩ শতাংশ শেয়ারের উত্তরাধিকারী হন বেটেনকোর্ট। বলতে গেলে, কোনো প্রচেষ্টা ছাড়াই ৪৬ বিলিয়ন ডলারের মালিক হয়েছেন তিনি।

স্যাম ব্রানসন (৪.৯ বিলিয়ন ডলার)

ভার্জিন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা রিচার্ড ব্রানসনের পুত্র স্যাম ব্রানসন। রিচার্ডকে অনেক কাঠ-খড় পুড়িয়ে বর্তমান অবস্থানে পৌঁছাতে হলেও স্যামকে মোটেই তা করতে হচ্ছে না। কোনো পরিশ্রম ছাড়াই বাবার কাছ থেকে ৪ দশমিক ৯ বিলিয়ন ডলারের সম্পত্তি পাচ্ছেন তিনি। বর্তমানে বোন হলি ব্রানসনের সঙ্গে মিলে বাবার প্রতিষ্ঠানের দেখভাল করছেন স্যাম।

ডগলাস ডার্স্ট (৪.৪ বিলিয়ন ডলার)

ভাগ্যের সন্ধানে মার্কিন মুলুকে এসে ডার্স্ট অরগানাইজেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জোসেফ ডার্স্ট। ১৯১৫ সালে গড়ে তোলা ছোট্ট সেই প্রতিষ্ঠানটি এখন ৫ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের পোর্টফোলিও নিয়ন্ত্রণ করছে। আর জোসেফ ডার্স্টের হাতে তিল তিল করে গড়ে ওঠা ডার্স্ট অরগানাইজেশনের নিয়ন্ত্রণ এখন তার নাতি ডগলাস ডার্স্টের হাতে। দাদার বদৌলতেই ৪ দশমিক ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক হয়েছেন ডগলাস।

রোনাল্ড লডার (৩.৮ বিলিয়ন ডলার)

প্রসাধনী এবং সুগন্ধি সম্রাট ইস্টি লডার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ইস্টি লডার কোম্পানিস। বলাই বাহুল্য, এর পেছনে তাকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছিল। কিন্তু তার ছেলে রোনাল্ড লডারকে অতো কষ্ট করতে হচ্ছে না। বাবার তিল তিল করে বানানো সাম্রাজ্য থেকে ৩ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলারের মালিক হয়েছেন তিনি। 

পেট্রা এক্লেসটোন (৩.৫ বিলিয়ন ডলার)

ফরমুলা ওয়ান রেসিং-এর সিইও বার্নি এক্লেসটোনের মেয়ে পেট্রা। বাবার কাছ থেকে তার প্রাপ্ত সম্পদের পরিমান ৩ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার।

জ্যারেড কুশনার (১.৮ বিলিয়ন ডলার)

জ্যারেড কুশনারকে সারা বিশ্ব চেনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা হিসেবে। কিন্তু এর বাইরেও তার আরেকটি পরিচয় আছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম ধনী একটি পরিবারের সন্তান। তার বাবা চার্লস কুশনার যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান কুশনার কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা। এই কোম্পানিটির বার্ষিক লেনদেনের পরিমান প্রায় ৩ বিলিয়ন ডলার। উত্তরাধিকার সূত্রে বাবার থেকে ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার পেয়েছেন তিনি।

আর এস/ ২২ মার্চ

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে