Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০১৯ , ২ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-২২-২০১৯

শহীদুল জহিরের উপন্যাস গল্প ও অন্যান্য

হাসান জাকির


শহীদুল জহিরের উপন্যাস গল্প ও অন্যান্য

জাদুবাস্তবতা- একই সঙ্গে ভাষা ব্যবহারের নিজস্ব ঢং, সাধারণ ও অকৃত্রিম ভাষাকে তুলে আনার মুন্সিয়ানা, মানুষের ভেতরের মানুষকে খুুঁড়ে বের করবার অতুলনীয় ব্যতিক্রমী কথক শহীদুল জহির। বাংলা সাহিত্যে তার দৃশ্যমান অনুপ্রবেশ দিজ্ঞ্বিজয়ী বীরের মতো; অনেকটা অপ্রতিরোধ্য এবং গৌরবময়। বাংলা সাহিত্যজগতের ব্যতিক্রমী স্রষ্টা শহীদুল জহিরের অপ্রকাশিত ও অগ্রন্থিত দুটি উপন্যাস, চারটি গল্প, অনুবাদ, সাক্ষাৎকারসহ কয়েকটি রচনা নিয়ে গত মাসে প্রকাশিত হয়েছে 'অপ্রকাশিত অগ্রন্থিত শহীদুল জহির উপন্যাস, গল্প ও অন্যান্য' বইটি।

উপন্যাসের মাধ্যমে শুরু হয়েছে বই। এর মধ্যে 'চন্দনবনে' উপন্যাসটিতে রয়েছে তিনটি পর্ব। বিশ্বাস, ভালোবাসা আর দর্শনকে উপজীব্য করে উপন্যাসটি বিনির্মাণ করেছেন তিনি। চন্দনবনে ব্যবহূত উপমা, শব্দের কাব্যিক ব্যবহার পাঠককে নতুন স্বাদ দেবে- এটা বলা যায়। উপন্যাসটির প্রথম পর্ব, যার নাম 'বিশ্বাস :দাগে দাঁড়িয়ে থাকে প্রহরী চোখ'; দ্বিতীয় পর্ব 'ভালোবাসা :জলের ভেতর চূর্ণ জলের শরীর' এবং তৃতীয় পর্ব 'দর্শন :শুরু থেকে শুরুর দিকে ফেরা'। 

চন্দনবন উপন্যাসটিতে এই যে, জলের ভেতর চূর্ণ জলের শরীর- পাঠকের মগজে-মননে নতুন ঘোর তৈরি করে। জীবনানন্দ-উত্তর সময়ে এ যেন এক নতুন জীবননান্দ। উপন্যাসটির পর্বগুলোতে সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা আহমেদ রফিক ও মঈন, মঈনের স্ত্রী লিলি। রফিক ও কেকা ভালোবেসে বিয়ে করে। যে কেকার নাম শুনলেই নির্মেঘ দুপুরে হৃদয়জুড়ে কেমন বৃষ্টি নামতে চায়- সেই কেকাই বিবাহোত্তর জীবনে রফিকের কাছে হয়ে ওঠে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। সম্পর্ক শীতলতায় বরফ হয়ে একেবারে তলানিতে পৌঁছে। কেকার শরীরে মরণঘাতী ক্যান্সারের বাসা। ক্যান্সারেও সম্পর্কের বরফ গলে না। কেকার হন্তারক হয়ে ওঠে রফিক! বিপত্নীক রফিকের সঙ্গে সহকর্মী মঈনের পারিবারিক হৃদ্যতা গড়ে ওঠে। এই সম্পর্কের টানেই লিলির জন্য বিশেষ টান তৈরি হয় রফিকের। রফিকের জীবনে এরপরও আসে আরও দুই নারী। মঈনের শ্যালিকা দীপু এবং অন্যজন মালেকা। ঠিক কোথাও থিতু হতে না পারা রফিককে ঘিরে চরিত্রগুলো যেন আবর্তিত হতে থাকে। উপন্যাসটি শহীদুল জহিরকে যেন নতুন করে চিনিয়ে দিচ্ছে। এ ছাড়া উপন্যাস 'উড়াল' চারটি গল্প দহ, যাত্রাপথে, শিরোনামহীন (কাব্যিক গল্প) এবং দ্য মিরাকল অব লাইফে রয়েছে শহীদুল জহিরের চিরচেনা ছাপ। সংকলনটিতে লেখকের 'এই সময়' শিরোনামে চিত্রনাট্যও সংযোজন হয়েছে। আছে অনুবাদ সাহিত্য। 

এসব রচনায় ঘটনার বহুরৈখিক বর্ণনা, বুননশৈলী, শিকড়স্পর্শী অনুসন্ধান, প্রতিটি বিষয়ে সূক্ষ্ণাতিসূক্ষ্ণভাবে উপলব্ধিপূর্বক তা সুসংগঠিত করা, পূর্ণাঙ্গতা- এসবই তার সৃষ্টিকে বিশিষ্ট করে তুলেছে। 

লেখকের ভাবনা, লেখার ধরন, জীবন সম্পর্কে উপলব্ধি প্রথিত হয়েছে চঞ্চল আশরাফ এবং রনজু রাইমের নেওয়া ১০ হাজার শব্দের দীর্ঘ সাক্ষাৎকারে। ২০০১ সালে ছোটকাগজ 'অরুন্ধতি'তে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারটিতে জাদুবাস্তবতার এই লেখককে অনেকখানি উন্মোচিত করেছে। কথাসাহিত্যিক শাহাদুজ্জামানের গ্রন্থ 'বিসর্গতে দুঃখ' বইয়ের রিভিউ গ্রন্থিত হয়েছে বইটিতে। তিনি বিসর্গতে দুঃখ বইটাকে মেটাফিকেশন হিসেবে অভিহিত করে এর শক্তি এবং দুর্বলতার জায়গাগুলো নিয়ে আলোচনা করেছেন। শাহাদুজ্জামান বলছেন, এটাও হয়তো শহীদুল জহিরের করা একমাত্র রিভিউ। এ ছাড়া একটি কাল্পনিক সাক্ষাৎকারও প্রাসঙ্গিকভাবে বইটিতে ঠাঁই পেয়েছে। মোটকথা, বইটিতে সংযোজিত নানা স্বাদের লেখায় শহীদুল জহিরকে নতুন করে আবিস্কারের সুযোগ হবে পাঠকের। পাঠক সমাবেশ প্রকাশিত ১৯২ পৃষ্ঠার বইটির দাম ২৯৫ টাকা। 

এমএ/ ০৩:২২/ ২২ মার্চ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে