Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯ , ৯ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-১০-২০১৯

সাংবাদিক ও প্রার্থীদের সামনে ব্যালট বাক্স সিলগালা করে তবে ভোট!

সাংবাদিক ও প্রার্থীদের সামনে ব্যালট বাক্স সিলগালা করে তবে ভোট!

ঢাকা, ১০ মার্চ- সকালে সাংবাদিক ও প্রার্থীদের সামনে ব্যালট বাক্স খুলে সিলগালা করে তবে ভোট শুরু হবে। ফলে রাতে ব্যালট বাক্স ভরে ফেলার কোনও সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল বাছির। অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্স ও রাতে ব্যালট বাক্স ভরে ফেলা হতে পারে বলে প্রার্থীদের শঙ্কার বিষয়ে কথা বলতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে বেলা ৩টা ৪০ মিনিটে বাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা রাতে ব্যালট পেপার না পাঠাতে অনুরোধ করে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দেওয়ার পরও ব্যবস্থা না নেওয়ায় প্রশাসনকে দুষছেন প্রার্থীরা। তারা বলছেন, ব্যালট বাক্স অস্বচ্ছ এবং হলগুলোর প্রশাসনিক কর্মকর্তারা ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের অনুগত। রাতে ব্যালট বাক্স ভরে না যায় সেই শঙ্কা জানানোর পরও ব্যবস্থা না নেওয়াটা দুঃখজনক।

ডাকসুতে প্যানেল দিয়ে নির্বাচন করছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, বাম সংগঠনগুলোর জোট, কোটা আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ, স্বতন্ত্র জোট, জাসদ ছাত্রলীগ, ছাত্রলীগ-বিসিএল, ছাত্র মৈত্রী, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন, ছাত্র মুক্তিজোট, জাতীয় ছাত্রসমাজ ও বাংলাদেশ ছাত্র আন্দোলন। এ ছাড়া অনেক স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন।

প্রার্থীদের অনুরোধ উপেক্ষা করে ব্যালট বাক্স কেন রাতেই পাঠানো হলো প্রশ্নে রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল বাছির বলেন, বেশিরভাগই ইতোমধ্যে চলে গেছে। সকাল আটটায় ভোট শুরু করতে হলে তার আগে ঘণ্টাখানেক লাগবে প্রস্তুতিতে। ফলে সকালে ব্যালট পেপার পাঠালে সেটা কঠিন হয়ে যাবে।

স্বতন্ত্র জোটের সহসভাপতি প্রার্থী অরণি সেমন্তি খান বলেন, আমরা বিকেলে গিয়ে উপাচার্য স্যারকে জানিয়েছিলাম রাতের বেলা যাতে ব্যালট পেপার হলে না পাঠানো হয়। ব্যালট বাক্স  অস্বচ্ছ এবং হলগুলোর প্রশাসনিক কর্মকর্তারা ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের অনুগত। এই অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্স রাতে ভরে যাওয়ার শঙ্কা থেকে এই অনুরোধ জানিয়েছিলাম।

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সহসভাপতি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমাদের অনুরোধ আমলে না নেওয়ায় হতাশ হয়েছি। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেবো।

ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের পক্ষে রাতে ব্যালট বাক্স ভরে ফেলা হতে পারে বলে অন্য প্রার্থীরা যে শঙ্কা দেখাচ্ছেন সেটি যৌক্তিক নয় উল্লেখ করে রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল বাছের বলেন, সকালে মিডিয়াকর্মী, প্রার্থীসহ সবার উপস্থিতিতে ব্যালটের সিল খোলা হবে। সুতরাং রাতে ব্যালট ভরার কোনও সুযোগ নেই। আর অস্বচ্ছ ব্যালট বলা হচ্ছে যেগুলোকে সেগুলো আমাদের শিক্ষক সমিতি নির্বাচন, রেজিস্ট্রার গ্রাজুয়েট নির্বাচন সবখানেই ব্যবহার হয়। যেহেতু ভোটপত্র ভাঁজ করা যাবে না সেহেতু বড় বাক্স লাগবে।

 

তথ্যসূত্র:  বাংলা ট্রিবিউন
আরএস/ ১০ মার্চ

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে