Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-০৮-২০১৯

৮ মাসে রপ্তানি আয় ২৭৫৬ কোটি ডলার

৮ মাসে রপ্তানি আয় ২৭৫৬ কোটি ডলার

ঢাকা, ০৮ মার্চ- চলতি বছরের শুরু থেকেই দেশের রপ্তানি আয়ের প্রবৃদ্ধির ধারা ক্রমেই বাড়ছে। বিশেষ কয়েকটি খাতে রপ্তানি আয় কমে গেলেও সার্বিক প্রবৃদ্ধির ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে দেশের রপ্তানি খাত। চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) দুই হাজার ৭৫৬ কোটি ২৮ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। এ আয় গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১২.৯৮ শতাংশ বেশি। আর আট মাসের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৭.৮১ শতাংশ বেশি। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। 

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের প্রধান রপ্তানি খাত তৈরি পোশাক। এ খাতের রপ্তানি আয় ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে।

এছাড়া রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার কারণে অন্যান্য খাতের আয়ও ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। যার কারণে রপ্তানিতে বড় প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হচ্ছে। এধারা অব্যাহত থাকলে অর্থবছর শেষে রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

ইপিবির তথ্য মতে, অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) রপ্তানি থেকে আয় হয়েছে ২ হাজার ৭৫৬ কোটি ২৭ লাখ ডলার। যেখানে কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ২ হাজার ৫৫৬ কোটি ৫০ লাখ ইউএস ডলার। সে হিসেবে রপ্তানি বেশি হয়েছে ২০০ কোটি ডলার। আর গত বছর একই সময় থেকে বেশি হয়েছে ১২.৯৮ শতাংশ, যা গত বছর একই সময় ছিল ২ হাজার ৪৩৯ কোটি ৭০ লাখ ডলার।

ইপিবির তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরে সব ধরনের পণ্য রপ্তানিতে বৈদেশিক মুদ্রার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে তিন হাজার ৯০০ কোটি ডলার। সে হিসাবে চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল দুই হাজার ৫৫৬ কোটি ৫০ লাখ ডলার। তবে এ সময়ে আয় হয়েছে দুই হাজার ৭৫৬ কোটি ২০ লাখ ডলার।

তথ্যমতে, গত মাসে (ফেব্রুয়ারি) রপ্তানি আয় বেশি হয়েছে ৭.১৩ শতাংশ। গত মাসে রপ্তানি আয় হয়েছে ৩৩৮ কোটি ৩২ লাখ ডলার। যার কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩১৫ কোটি ৮০ লাখ ডলার। আর গত বছর একই সময় থেকে বেশি হয়েছে ১০.১২ শতাংশ, গত বছর একই সময় আয় ছিল ৩০৭ কোটি ২১ লাখ ডলার।

দেশের রপ্তানি আয়ের প্রায় ৮০ শতাংশের বেশি আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। আলোচিত সময়ে এ খাত থেকে রপ্তানি আয় এসেছে দুই হাজার ৩১২ কোটি ৬০ লাখ ডলার। কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২ হাজার ১৪২ কোটি ৮০ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৭.৯৩ শতাংশ বেশি। গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এ বছর রপ্তানি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ১৪.১৭ শতাংশ। গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম আট মাসে পোশাক খাতে রপ্তানি আয় ছিল দুই হাজার ২৫ কোটি ৬০ লাখ ডলার।

ইপিবির প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের আট মাসে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে ৫৮.২৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে কৃষিপণ্য রপ্তানিতে। এ খাত থেকে আয় এসেছে ৬৪ কোটি ২৭ লাখ ডলার। লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় রপ্তানি আয় বেড়েছে ৩৭.৯ শতাংশ। 

প্লাস্টিক পণ্যে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ১৮.৩২ শতাংশ। এ সময়ে আয় হয়েছে সাত কোটি ৬৮ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৭.১৬ শতাংশ বেশি।

পাট শিল্পে রপ্তানি কমেছে ২১.১৮ শতাংশ। এ সময় আয় হয়েছে ৫৬ কোটি ৫ লাখ ডলার। যার কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭১ কোটি ১২ লাখ ডলার। আর গত বছর থেকে কমেছে ২৪.৩৬ শতাংশ। গত বছর আয় ছিল ৭৪ কোটি ১১ লাখ ডলার।

চামড়া এবং চামড়াজাত পণ্যের আয় কেমেছে ৫.৭১ শতাংশ। আলোচিত সময় আয় হয়েছে ৬৯ কোটি ৪৭ লাখ ডলার। যার কৌশলগত লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২৩ কোটি ৬৮ লাখ ডলার। আর গত বছর একই সময় থেকে আয় কমেছে ১১.৫ শতাংশ। গত বছর আয় হয়েছিল ৭৮ কেটি ৪৯ লাখ ডলার। 

এমএ/ ০৪:২২/ ০৮ মার্চ

ব্যবসা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে