Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯ , ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-০৬-২০১৯

অগাধ সম্পত্তিই কাল হলো আটরশি পীরের দুই ছেলের

অগাধ সম্পত্তিই কাল হলো আটরশি পীরের দুই ছেলের

ফরিদপুর, ০৫ মার্চ- আটরশি পীরের রেখে যাওয়া শত কোটি টাকার সম্পত্তিই কাল হয়ে দাঁড়ালো দুই ছেলে পীরজাদা আলহাজ্ব মাহফুজুল হক এবং পীরজাদা আলহাজ্ব মোস্তফা আমীর ফয়সালের জন্য।

বাবার রেখে যাওয়া সম্পত্তিই দুই ভাইয়ের সম্পর্কে চিড় ধরিয়েছে। মুখোমুখি করিয়েছে দুই ভাইকে। ব্যাপক অনুসন্ধানে জানা গেছে, সম্প্রতিক সময়ে আটরশি পীরের নাতি পীরজাদা মোস্তফা আমীর ফয়সালের পুত্র ড. সায়েম আমালী ফয়সালের ফেসবুক স্ট্যাটাস বিষয়টিকে আরো উস্কে দেয়।

যদিও ড.সায়েম আমালী ফয়সাল সম্পত্তির বিষয়টি প্রকাশ্যে তুলে ধরেননি তবে আটরশির বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের কর্তৃত্ব নিজেদের দখলে নেওয়ার জন্য সবাইকে উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।

ফেসবুক নোটে তিনি উল্লেখ করেছেন, একটি কুচক্রী ও সন্ত্রাসী মহলের কাছে জিম্মি বিশ্ব জাকের মঞ্জিল। বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের সম্পদ কুক্ষিগত। আটরশির বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের বর্তমানে পুরোপুরি গদিনশীন পীর আলহাজ্ব পীরজাদা মাহফুজুল হক ফরিদপুরীর নিয়ন্ত্রণে।

গদিনশীন পীর হিসেবেই তিনি আটরশিতে অবস্থান করেন। তাছাড়া বিশ্ব জাকের মঞ্জিল ফাউন্ডেশনের অধীন বিশ্ব জাকের মঞ্জিল আলিয়া মাদ্রাসা, বিশ্ব জাকের মঞ্জিল হাসপাতাল, বিশ্ব জাকের মঞ্জিল স্পিনিং মিলসহ আটরশিতেই রয়েছে আরো বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান।

আর এসব সম্পত্তির বর্তমান বাজার মূল্য শতকোটি টাকা। এছাড়াও শত শত বিঘা জমি রয়েছে গোটা সদরপুর জুড়ে। বর্তমান বাস্তবতা হচ্ছে গদীনশিন পীর হিসেবে এসব সম্পত্তি ভোগ করছেন পীরজাদা মাহফুজুল হক।

সূত্র জানায়, আটরশির পীর খাজাবাবা ফরিদপুরীর জীবদ্দশায় গদিনশীন পীরের দায়িত্ব পান পীরজাদা মাহফুজুল হক আর জাকের পার্টির দায়িত্ব পান পীরজাদা মোস্তফা আমীর ফয়সাল।

খাজাবাবা ফরিদপুরী জীবিত থাকাবস্থায় সবকিছু ঠিকঠাক মতো চললেও অতি সম্প্রতি এ বিষয়গুলো নিয়ে পারিবারিক দ্বন্দ্ব মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। জাকের পার্টির বাইরে বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের নিয়ন্ত্রণ পীরজাদা মোস্তফা আমীর ফয়সাল নেয়ার জন্য পরিকল্পনা করলে জাকেরদের সামনে বিষয়গুলো পরিষ্কার হয়ে ওঠে।

একাধিক জাকের নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, পীরের রেছালা থেকে তাঁরা দূরে সরে গেছেন। তারা ব্যক্তিগত ভোগ-বিলাসিতায় মত্ত। মরহুম পীর কেবলাজানের তরিকা বাস্তবায়নেও তারা উদাসীন। বর্তমানে যে অবস্থা বিরাজ করছে তা চলতে থাকলে বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের ধ্বংস অনিবার্য।

জাকেররাও বিষয়টি ভাল চোখে দেখছেন না। ক্ষুব্ধ জাকেররা জানান, ড. সায়েম আমালী ফয়সাল যেভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উস্কানি দিয়েছেন তা বিশ্ব জাকের মঞ্জিলের তিলে-তিলে গড়ে ওঠা ঐতিহ্য ধুলিস্মাৎ হয়েছে। এবিষয়ে তাকে প্রকাশ্যে তওবা করার আহ্বান জানান জাকেররা।

এদিকে, সিনিয়র বেশ কিছু জাকের বিষয়টির সুরাহা করার উদ্যোগ নিলেও তা শেষ পর্যন্ত নস্যাৎ হয়ে যায়। তারা জানান, এক পক্ষের একগুয়েমিতার কারণেই পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়েছে। তবে তারা সুরাহার বিষয়টি শেষ পর্যন্ত দেখবেন বলে জানান।

তথ্যসূত্র: bdview24
আরএস/ ০৫ মার্চ

ফরিদপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে