Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-১৫-২০১৯

অস্কার জিতবে কে?

অর্ণব সান্যাল


অস্কার জিতবে কে?

নিউ ইয়র্ক, ১৫ ফেব্রুয়ারি- কাছে আসছে ২৪ ফেব্রুয়ারি। আর মাত্র দিন আটেক বাকি। যতই সময় গড়াচ্ছে, বাড়ছে উত্তেজনার পারদ। এবার অস্কার জিতবে কে—এই প্রশ্নের উত্তর জানতে সিনেমাপ্রেমীদের আগ্রহ তুঙ্গে। অন্যান্যবারের চেয়ে পরিস্থিতি এবার কিছুটা ভিন্ন। কারণ এবার অনেক ‘প্রথম’ দেখছে অস্কার। সোনালি ট্রফির দৌড়ে এবার আছে সুপারহিরো সিনেমা, আছে অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিংয়ের ওয়েবসাইটের বানানো ছবিও। তবে কি অস্কার পুরস্কারের মঞ্চেও ঘটবে অভিনব কিছু? প্রশ্নটি সহজ, কিন্তু উত্তর তো কঠিন!

এরই মধ্যে একাডেমি সদস্যদের কাছে পৌঁছে গেছে অস্কারের ভোটের ব্যালট। গত মঙ্গলবারের পর থেকেই শুরু হয়েছে ব্যালট দেওয়ার কাজ। আসুন দেখে নেওয়া যাক, প্রধান বিভাগগুলোতে কোন কোন প্রতিদ্বন্দ্বীর অবস্থান কেমন—

সেরা ছবি
এই বিভাগে লড়াই দ্বিমুখী হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। একদিকে আছে ‘গ্রিন বুক’, অন্যদিকে ‘রোমা’। বলা হচ্ছে, এই দুই ছবির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে পারে। অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিংয়ের ওয়েবসাইট নেটফ্লিক্সের ছবি হয়ে প্রথমবারের মতো অস্কারে মনোনয়ন পেয়েই ইতিহাস সৃষ্টি করে ফেলেছে ‘রোমা’। সম্প্রতি বাফটা অ্যাওয়ার্ডসে ছবিটি জিতেছে চারটি ট্রফি। সুতরাং অস্কারের লড়াইয়ের মূল মঞ্চের আগে ভালোই ‘প্র্যাকটিস’ হয়েছে পরিচালক আলফনসো কুয়ারনের। সমালোচকদের দৃষ্টি আকর্ষণও করতে পেরেছে সাদাকালো এই ছবি। 

ওদিকে ‘গ্রিন বুক’-এর কাহিনি তৈরি হয়েছে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। এক মেধাবী কৃষ্ণাঙ্গ পিয়ানোবাদক ও তাঁর শ্বেতাঙ্গ গাড়িচালককে নিয়ে আবর্তিত হয়েছে ছবির গল্প। ছবিটি গোল্ডেন গ্লোবে তিনটি পুরস্কার পেলেও বাফটাতে জিতেছে মোটে একটি। সেই হিসেবে কিছুটা পিছিয়েই আছে ‘গ্রিন বুক’। ঝামেলা আরও আছে। যাঁকে নিয়ে ছবির গল্প, তাঁর পরিবারের সদস্যরা ছবিটির বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছেন।

যদি বাফটা অ্যাওয়ার্ডসের ফলাফল আমলে নেওয়া হয়, তবে সবচেয়ে এগিয়ে রাখতে হবে ‘দ্য ফেভারিট’ ছবিকে। অষ্টাদশ শতাব্দীর ইংল্যান্ডের এক রানি, সেই রানির ঘনিষ্ঠ বান্ধবী এবং একজন নতুন দাসীকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে ছবিটি। প্রধান তিন চরিত্রে তিন অভিনেত্রীই পাল্লা দিয়ে অভিনয় করেছেন এতে। বাফটা অ্যাওয়ার্ডসে সবচেয়ে বেশি ৭টি ট্রফি ঘরে তুলেছে ‘দ্য ফেভারিট’। অস্কারেও তাই এই ছবিকে হিসাবের বাইরে রাখা যাবে না।

মার্ভেলের প্রথম ছবি হিসেবে অস্কার মনোনয়ন পেয়েছে ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’। বাণিজ্যিক ধারার সুপারহিরো ছবি হলেও, অনেকে এর পক্ষেও বাজি ধরছেন। কেউ কেউ বলছেন, ঐতিহ্য ভেঙে এবার অস্কার পেয়ে যেতে পারে বক্স অফিসে তুমুল সফল এই ছবি। তবে ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’ তুলনামূলক কমসংখ্যক সমালোচকের সুদৃষ্টি কাড়তে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সেরা পরিচালক
এখনো পর্যন্ত অস্কারে মনোনয়নে সবচেয়ে বেশি আলো কেড়েছেন আলফনসো কুয়ারন। তাঁর পরিচালিত ছবি ‘রোমা’। এটি মোট ১০টি বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছে। অন্যদিকে সেরা পরিচালক বিভাগের সঙ্গে সঙ্গে সেরা সিনেমাটোগ্রাফার ও সেরা চিত্রনাট্য বিভাগেও আছে কুয়ারনের নাম। এ দিক থেকে তিনি বেশ সুবিধাজনক অবস্থানেই আছেন। 

১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে হলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে একের পর এক ছবি বানানোর পর অবশেষে অস্কার মনোনয়নের শিকে ছিঁড়েছে স্পাইক লি’র। ‘ব্ল্যাককক্লানসম্যান’ ছবির জন্য এবার সেরা পরিচালকের মনোনয়ন পেয়েছেন এই কৃষ্ণাঙ্গ পরিচালক। এর আগে সম্মানসূচক অস্কার জিতেছিলেন স্পাইক লি। কিন্তু এবারই প্রথম প্রতিযোগিতামূলক বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে, এই অভিজ্ঞ পরিচালকের প্রতি এবার একাডেমি সদস্যদের কিছুটা পক্ষপাত থাকতে পারে। 

এই বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছেন ‘দ্য ফেভারিট’-এর পরিচালক ইয়োরগোস লানথিমোস ও ‘ভাইস’-এর পরিচালক অ্যাডাম ম্যাককে। তবে এই পরিচালকদের ছবি নিয়ে আলোচনা যতটা, তাঁদের নিয়ে ততটা নয়। তারপরও চমকের সম্ভাবনা তো আর উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

সেরা অভিনেতা
‘ভাইস’ ছবিতে সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিক চেনির চরিত্রে অভিনয় করে মাতিয়ে দিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ান বেল। এই ছবি দেখলে মনেই হবে না যে, ডিক চেনির চরিত্রে অভিনয় করছেন একসময়ের ব্যাটম্যান ক্রিশ্চিয়ান বেল! শারীরিক কাঠামো থেকে শুরু করে পুরো শরীরী ভাষাই বদলে ফেলেছেন বেল। তবে ‘ভাইস’ ছবিটি বক্স অফিসে খুব একটা আলোড়ন তুলতে পারেনি। অবশ্য সমালোচকদের কাছে প্রশংসিত হয়েছে বেলের অনবদ্য অভিনয়। 

‘বোহেমিয়ান রাপসোডি’ ছবিতে অভিনয়ের বদৌলতে মনোনয়ন পেয়েছেন রামি মালেক। কিংবদন্তি রক ব্যান্ড ‘কুইন’-এর লিড ভোকাল ফ্রেডি মার্কারির চরিত্রে ছিলেন মালেক। 
অস্কারের দৌড়ে এগিয়ে থাকা এই দুই অভিনেতার সঙ্গে আছেন ব্র্যাডলি কুপারও। ‘আ স্টার ইজ বর্ন’ ছবির জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন এই সুদর্শন অভিনেতা। তবে ওপরের দুজনের তুলনায় ব্র্যাডলি কুপার কিছুটা পিছিয়েই আছেন।

সেরা অভিনেত্রী 
এবারের অস্কারে এই বিভাগে প্রতিযোগিতা হবে সবচেয়ে বেশি। অনেক সমালোচকের দৃষ্টিতে এগিয়ে আছেন ‘দ্য ওয়াইফ’ ছবির গ্লেন ক্লোজ। কিন্তু ইংল্যান্ডের রানির চরিত্রে থাকা অলিভিয়া কোলম্যানও (দ্য ফেভারিট) আছেন ইঁদুরদৌড়ে। বাফটা অ্যাওয়ার্ডে এরই মধ্যে সেরা অভিনেত্রীর তকমা জিতে নিয়েছেন কোলম্যান। মানসিকভাবে কিছুটা অস্থির এক সমকামী রানির ভূমিকায় অনবদ্য অভিনয় করেছেন অলিভিয়া। জিতেছেন এ বছরের গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারও। 

অন্যদিকে অভিনয়ে অভিষেকেই করেই সেরা অভিনেত্রী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন মেক্সিকোর ইয়ালিটজা আপারিহিও (রোমা)। তিনিই প্রথম আদিবাসী নারী যিনি সেরা অভিনেত্রী বিভাগে অস্কার মনোনয়ন পেয়েছেন। সেই হিসাবে যাত্রার শুরুতেই ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন ইয়ালিটজা। এখন যদি অস্কারও তাঁর হাতে ওঠে, তবে তো পোয়া বারো!

তালিকায় নাম আছে লেডি গাগা (আ স্টার ইজ বর্ন) ও মেলিসা ম্যাককার্থিরও (ক্যান ইউ এভার ফরগিভ মি?)। কিন্তু প্রথম তিনজনের ভিড়ে এই দুজন আলোচনায় একটু কমই আছেন।

সেরা পার্শ্ব অভিনেতা ও পার্শ্ব অভিনেত্রী
পার্শ্ব অভিনেতার সেরাদের তালিকায় এগিয়ে আছেন মাহেরশালা আলী (গ্রিন বুক) ও রিচার্ড ই. গ্রান্ট (ক্যান ইউ এভার ফরগিভ মি?)। পার্শ্ব অভিনেত্রীর মনোনয়ন তালিকায় আছে বড় বড় নাম। একজনকে ফেলে আরেকজনকে এগিয়ে রাখার উপায়ও নেই! আছেন পাঁড় অভিনেত্রী র‍্যাচেল ভাইৎস (দ্য ফেভারিট) ও অ্যামি অ্যাডামস (ভাইস)। র‍্যাচেল অভিনয় করেছেন ইংল্যান্ডের রানির বান্ধবীর ভূমিকায়, অন্যদিকে অ্যামি ছিলেন ডিক চেনির স্ত্রীর চরিত্রে। তবে চরিত্রের ঔজ্জ্বল্যে কিছুটা এগিয়ে আছেন র‍্যাচেল।

সেরা চিত্রনাট্য
এ নিয়ে আছে দুটি বিভাগ, অ্যাডাপ্টেড স্ক্রিনপ্লে ও অরিজিনাল স্ক্রিনপ্লে। অ্যাডাপ্টেড স্ক্রিনপ্লে বিভাগের লড়াইয়ে এগিয়ে আছে ‘ব্ল্যাককক্লানসম্যান’ ও ‘আ স্টার ইজ বর্ন’। পাঁচটি ছবি মনোনয়নে থাকলেও অরিজিনাল স্ক্রিনপ্লে বিভাগে লড়াই হবে ত্রিমুখী। তিনটি ছবি হলো: ‘দ্য ফেভারিট’, ‘গ্রিন বুক’ ও ‘রোমা’। জেনে রাখা ভালো, বাফটা অ্যাওয়ার্ডসে ‘দ্য ফেভারিট’-এর চিত্রনাট্যের জয়জয়কার দেখা গেছে।

হলিউড

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে