Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ , ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৮-২০১৯

এমপি নাবিলের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে সিরিজ বিস্ফোরণ

এমপি নাবিলের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে সিরিজ বিস্ফোরণ

যশোর, ২৮ জানুয়ারি- শনিবার মধ্যরাতে যশোর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের যশোর শহরের বাসভবনসহ স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতার বাড়ি এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ককটেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বেশির ভাগ ককটেল বিস্ফোরিত হলেও এতে হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শনিবার দিবাগত রাত ১টা থেকে ২টার মধ্যে এসব বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি পক্ষ এ ঘটনার জন্য বিএনপি-জামায়াত জোটকে দায়ী করেছে। তবে অপর পক্ষ এ ঘটনার জন্য নিজ দলেরই একটি অংশকে দায়ী করছে।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু বলেন, প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলে করে এসে হামলাকারীরা রাত ১টার পর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের মালিকানাধীন হোটেল জাবির ইন্টারন্যাশনালের সামনে ককটেল নিক্ষেপ করে। পরে হামলাকারীরা যুবলীগ নেতা তৌহিদুল ইসলাম চাকলাদার ফন্টু, ছাত্রলীগ নেতা রাসেল ও পরিবহন শ্রমিক নেতা আজিজুল আলম মিন্টুর বাড়িতে ককটেল ছোড়ে। এসব ককটেল বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। বিপু বলেন, বর্তমানে দেশে বিরাজিত শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে বিনষ্ট করতে জামায়াত-বিএনপি চক্র এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

তবে মাহমুদ হাসান বিপুর এ বক্তব্যের সঙ্গে ভিন্নমত জানিয়ে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিতনাথ বলেন, ‘সবাই চেনে এই শহরের যারা চাঁদাবাজ, বোমাবাজ, তারা আমাদেরই দলের একজন বড় নেতার ছত্রচ্ছায়ায় থেকে এ ধরনের কার্যক্রম চালিয়ে বেড়ায়’। তিনি বলেন, রাত ২টার পর সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের বাড়িতে তিনটি হাতবোমা নিক্ষেপ করা হয়। এর মধ্যে দুটি বিস্ফোরিত হয়।

আগের দিন শুক্রবার মধ্যরাতে যুবলীগ নেতা রাজিবুল আলমের বাড়িতেও দুর্বৃত্তরা বোমা হামলা করে বলে তিনি জানান। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে হামলাকারীদের শনাক্ত করেছেন বলেও দাবি করেন মোহিতনাথ। যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনছার উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার পরপরই পুলিশ সুপার মইনুল হকসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলগুলো পরিদর্শন করেন।

পুলিশ বোমার আলামত সংগ্রহ করেছে। যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, রাত ১টার পর শহরের ছয় স্থানে ১২টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। দলের মধ্যে অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরেই নিজেদের শক্তি জানান দিতে তারা এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে তিনি মনে করছেন।

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

আর/০৮:১৪/২৭ জানুয়ারি

যশোর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে