Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-০৫-২০১৯

৭ বারের এমপি দবিরুলকে মন্ত্রী হিসেবে চায় এলাকাবাসী

৭ বারের এমপি দবিরুলকে মন্ত্রী হিসেবে চায় এলাকাবাসী

ঠাকুরগাঁও, ০৫ জানুয়ারি- স্বাধীনতার পর থেকে ঠাকুরগাঁও-২ আসনে সাত বার সংসদ নির্বাচিত হয়েছেন ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মো. দবিরুল ইসলাম। সর্বেশেষ গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে বিএনপি প্রার্থী আব্দুল হাকিমকে দুই লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে হারিয়েছেন তিনি। তবে এবার এলাকার মানুষের জোর দাবি, তাকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় তারা। এলাকার অনেক সহজ সরল মানুষ এই প্রতিবেদকের প্রতি প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেন, কতবার এমপি হলে মন্ত্রী হওয়া যায়?

এ বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রবীর কুমার রায় বলেন, মন্ত্রিসভায় কারা থাকবেন, এটা নির্ভর করে প্রধানমন্ত্রীর ওপর। তবে ৭ বারের নির্বাচিত সাংসদ হিসেবে মন্ত্রিসভায় স্থান পেলে ঠাকুরগাঁও জেলাসহ উত্তরাঞ্চলের উন্নয়ন আরও গতিশীল এবং ত্বরান্তিত হবে বলে আমি মনে করি।

উপজেলা তাঁতীলীগের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম বলেন, রাজনীতির কঠিন সময়েও তিনি দলের হাল ধরে ছিলেন। সাংসদ থাকাকালীন সময়ে এলাকার ব্যাপক উন্নয়নের পাশাপাশি জনগণের আস্থার একমাত্র ব্যক্তি হিসেবে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। যার প্রমাণ একাদশ সংসদ নির্বাচন। শেষ সময়ে তার সম্মান রক্ষার্থে মন্ত্রিসভায় ৭ বারের নির্বাচিত এমপি দবিরুল ইসলামকে রাখার দাবি জানাচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আসলাম জুয়েল বলেন, মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়ার জন্য সব ধরনের যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা এমপি দবিরুল ইসলামের রয়েছে। অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদদের মধ্যে তিনি একজন। উত্তরবঙ্গে মন্ত্রিসভায় তার স্থান প্রথমে বলে আমি মনে করি।

একই দাবি জানিয়েছেন বালিয়াডাঙ্গী ও হরিপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগসহ অঙ্গ সংগঠনগুলোর অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, ছাত্র জীবন থেকেই বাম রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন দবিরুল ইসলাম। বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড়বাড়ি ইউনিয়ন থেকে একটানা তিন বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ১৯৮৬ সালে কমিউনিস্ট পার্টি থেকে। ১৯৮৮ সালের নির্বাচনে শুধুমাত্র জাতীয় পার্টি ছাড়া আর কোনো বড় দল অংশ নেয়নি বলে নির্বাচনে দাঁড়ানোর সুযোগ ছিল না ।

১৯৯১ সালের জাতীয় নির্বাচনে আবারও কমিউনিস্ট পার্টি থেকে নির্বাচিত হন দবিরুল ইসলাম। এরপর দবিরুল ইসলাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগ দেন।

১৯৯৬ সালে প্রথমবার আওয়ামী লীগের হয়ে সংসদ নির্বাচনে অংশ নেন। ৪৮ হাজার ৩৪৪ ভোট পেয়ে তৃতীয়বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ২০০১ ও ২০০৮ সালের নির্বাচনেও নির্বাচিত হন দবিরুল ইসলাম।

এরপর ২০১৪ সালে ৬ষ্ঠ বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন তিনি। সর্বশেষ ২০১৮ সালের নির্বাচনে অংশ নিয়ে সপ্তমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলেন তিনি।

সূত্র : জাগোনিউজ

আর/১২:১৪/০৫  জানুয়ারি

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে