Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯ , ৩ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (25 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ১১-৩০-২০১৮

ইভিএমে ভোট চেয়ে ইসিতে আবেদন করলেন পার্থ

ইভিএমে ভোট চেয়ে ইসিতে আবেদন করলেন পার্থ

ঢাকা, ৩০ নভেম্বর- সংসদীয় আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ভোট গ্রহণের জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার কাছে আবেদন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান। আর এর জন্য প্রয়োজনে সকল খরচ তিনি নিজেও দিতে রাজি আছে।

শুক্রবার (৩০ নভেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বরাবর আবেদন করেন। বিজেপির পক্ষ থেকে চিঠিটি আগারগাঁও নির্বাচন কমিশনে পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে লিখিল আবেদনে আন্দালিব রহমান বলেন, আমি আন্দালিভ রহমান চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) আমার নির্বাচনী আসন-১১৫ (ভোলা-১) এর নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট প্রহণের জন্য আবেদন জানাচ্ছি।

আসন্ন একাদশ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-২০১৮ এর নির্বাচনে ভোলা-১ আসনে ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন পরিচালনার জন্য আবেদন। আবেদনের জবাব ২ ডিসেম্বরের মধ্যে দিতে অনুরোধ করেন আন্দালিভ রহমান।

সিইসি বরাবর আন্দালিব রহমান আবেদনে বলেন, ‘আমি জোর দাবি জানাচ্ছি। এই ইভিএম ব্যবহার এর জন্যে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী খরচ বহন করতেও আমি রাজি আছি। যদি ব্যালট পেপার চালু করতে সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার এর আঙ্গুলের ছাপে যেই ২৫ শতাংশ প্রক্রিয়া করণ করা আছে এইটাকে কামিয়ে ৫ থেকে ১০ শতাংশ নিয়ে আসে তাহলে আরও স্বচ্ছতা আসবে। বিভিন্ন পত্রিকা সূত্রে জানতে পারলাম যে নির্বাচন কমিশন আপাতত ছয়টি আসনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করবে যদিও আরও অনেক আসনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের ব্যবস্থা করার সক্ষমতা ও জনবল নির্বাচন কমিশনের রয়েছে। এ অবস্থায় আমার নির্বাচনী আসনে ইভিএম এ ভোট গ্রহনের জোর দাবী জানাচ্ছি।

আন্দালিব রহমান বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান এর ১৯ (১) ধারা অনুযায়ী সকল নাগরিকের জন্য সুযোগের সমতা নিশ্চিত করতে রাষ্ট্র সচেষ্ট হইবেন বলিয়া উল্লেখিত। সে ক্ষেত্রে অন্য ৬ আসনে ইভিএম ব্যবহার হবে কিন্তু ইসির সক্ষমতা এবং পর্যাপ্ত জনবল থাকা সত্ত্বেও এবং সংবিধানের ১৯(১) ধারা মোতাবেক ভোটাধিকার এর মতো একটা গণতান্ত্রিক অধিকার প্রদানের ক্ষেত্রে সমান সুযোগ করা না হলে সেটা অত্যন্ত দু:খজনক হবে। আশা করি বাংলাদেশের সংবিধানের আলোকে ভোলা-১ সদর আসনের পক্ষ হইতে এই দাবি আপনি বিবেচনা করিবেন।

এখানে উল্লেখ্য যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ইভিএম এর পক্ষে। সুতরাং ভোলা সদর আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থী নীতিগতভাবে এর বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে পারেন না। ২০ দলীয় জোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ইভিএম ব্যবহারের বিরুদ্ধে থাকা সত্ত্বেও ভোলার জনগণের দাবিকে সামনে রেখে বাংলাদেশ জাতীয় পাটি (বিজেপি) ভোলা সদর আসনে ইভিএম পদ্ধতির জন্য জোর অনুরোধ জানাচ্ছি। অন্যথায় এটা আমার এবং আমার নির্বাচনী আসন ভোলা-১ (সদর) এর জনগণের প্রতি বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্ত হবে যা কিনা বাংলাদেশের সংবিধানের ধারা ২৭ এর পরিপন্থি যেখানে উল্লেখিত যে সকল নাগরিক আইনের দৃষ্টিতে সমান এবং আইনে সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী। এই পত্রের জবাব আগামী ২ ডিসেম্বর সকাল ১০ টার মধ্যে দেয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

৩০ নভেম্বর সিইসির বরাবর আর একটি চিঠিতে আন্দালিভ রহমান ভোলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোক্তার হোসেনকে প্রত্যাহার চেয়েছে। চিঠিতে উল্লেখ করা হয় ভোলার পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষ নেয়া বিভিন্ন অভিযোগ তোলা হয়। বলা হয় নিরপেক্ষ নির্বাচনের স্বার্থে ভোলার পুলিশ সুপারকে প্রত্যাহার করা হোক।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ

আর/০৮:১৪/৩০ নভেম্বর

ভোলা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে