Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০১৯ , ১ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (27 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-১৯-২০১৩

গর্ভ ভাড়া দিয়ে জীবিকা নির্বাহ : ভারতে বাড়ছে সারোগেসি মা


	গর্ভ ভাড়া দিয়ে জীবিকা নির্বাহ : ভারতে বাড়ছে সারোগেসি মা

কলকাতা, ১৯ জুন- সারোগেসি মা। ব্যস্ত সেলিব্রেটিদের সন্তান উৎপাদিত হবে হতদরিদ্র গ্রামীণ মায়ের গর্ভে। এরই মধ্যে পৃথিবীজুড়ে শুরু হয়ে গেছে সেই ঐতিহ্য। আর এ পদ্ধতিতে ভারত বর্ষে সবচেয়ে কম টাকায় সন্তান উৎপাদন করা যায়। কারণ এখানে গর্ভ ভাড়া পাওয়া যায় অতি অল্প টাকায়। অন্যান্য দেশের অর্ধেক খরচে উৎপাদিত হয় ফুটফুটে সন্তান। জুলাই মাসে বলিউড বাদশা শাহরুখ খান তৃতীয় সন্তানের বাবা হতে চলেছেন। এ খবরে আবার আলোচনায় আসে সারোগেসি পদ্ধতিটি। কারণ সন্তান পেতে খান দম্পতি সাহায্য নিয়েছেন সারোগেট মাদারের। যদিও ২০১১ সালে আমির খান ও কিরণ রাও তাদের সন্তানকে পৃথিবীতে এনেছিলেন সারোগেট মায়ের মাধ্যমে। শুধু বলিউড নয় হলিউডের অনেক তারকাও সারোগেসির তালিকায় নাম লিখিয়েছেন। যেমন- অস্কারজয়ী অভিনেত্রী নিকোল কিডম্যান, রবার্ট ডি-নিরো, পপ তারকা মাইকেল জ্যাকসন প্রমুখ।

এদিকে বিত্তবানদের সন্তান লাভে সারোগেসি মা হতে এগিয়ে আসছেন ভারতের অসহায় নারীরা। নতুন জীবনসৃষ্টির উদ্দেশে এ মায়েরা শুরু করেছেন এক অভিনব আদানপ্রদান। সারোগেট মাদার এমন একজন মা যিনি অন্য নারীর মাতৃত্বের জন্য গর্ভধারণ করেন। তার নিজের পেটে নয় মাস ধরে তিলে তিলে বেড়ে উঠে একটি ভ্রুণ। প্রজননে অক্ষম কোনো দম্পতিকে নতুন প্রাণ উপহার দেয়াই এ মায়ের কাজ। বর্তমানে বিদেশের বহু দম্পতি যারা সন্তান সুখ থেকে বঞ্চিত তারা সন্তান লাভের আশায় পাড়ি দিচ্ছেন ভারতবর্ষে। দেশটিতে টাকার বিনিময় সহজেই মিলছে সারোগেট মাদার। এক জরিপে দেখা গেছে, যেসব মায়ের বারবার অকাল গর্ভপাত হয় কিংবা জরায়ু অস্ত্রোপচারের ফলে বাদ দিতে হয়েছে তারাই বেশি সারোগেসি পদ্ধতিটি গ্রহণ করছেন। বর্তমানে সারোগেসি জীবিকায় পেশা হিসেবে নিয়েছে ভারতের গুজরাত রাজ্যের আনন্দ গ্রাম। এখানকার মায়েরা নিজের গর্ভ ভাড়া দিয়ে অর্থ উপার্জন করছেন এবং পরিবারের আর্থিক হাল ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছেন। সুদূর ইউরোপ বা আমেরিকার দম্পতিদেরভ্রুণ বেড়ে উঠছে তাদের পেটে। ছেলেমেয়ের পড়াশোনা, জায়গা-জমি, বাড়ি কেনা ইত্যাদির কারণে মহিলারা সারোগেট মা হতে চান। বর্তমানে গুজরাটের আকাক্সক্ষা ইনফার্টিলিটি ক্লিনিক ভারতের বর্ষের সবচেয়ে ব্যস্ত সারোগেট সেন্টার। প্রতি বছর প্রায় ১০০ জন সারোগেট মা সন্তানের জন্ম দিচ্ছেন এ ক্লিনিকে। বিগত দশ বছরে ২৯টি দেশের প্রায় ৬০০ জন সারোগেট শিশু জন্ম নিয়েছে এখানে।  এখানকার সরোগেট মায়েরা অচেনা কোনো দম্পতির ভ্রুণকে অবলীলায় জায়গা দেন নিজের শরীরে। দশ মাসের এ ত্যাগ স্বীকার করে মায়েরা নিশ্চিত করেন ভবিষ্যতের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য। সারোগেট মা হতে ইচ্ছুক মহিলাদের প্রথমেই পূর্ণাঙ্গ শারীরিক ও মানসিক পরীক্ষা করানো হয়। মাদের পারিবারিক অবস্থানও বিবেচ্য বিষয়। একটি লিস্ট থেকে দম্পতিরা বেছে নেন কোন মহিলার জরায়ুতে তাদের ভ্রুণ প্রতিস্থাপন করা হবে। একবার ভ্রুণ স্থাপনের পর গর্ভধারণ হলে সম্পূর্ণ যতেœ করে রাখা হয় সারোগেট মা’দের। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেখানে সারোগেসি করতে লাগে কয়েক কোটি টাকা সেখানে ভারতে এ পদ্ধতিটি হয় মাত্র ১৪ থেকে ২৫ লাখ টাকায়। তাই সারাবিশ্বের অনেক দম্পতি মা-বাবা হতে আসছেন এ দেশে। টাকার পরিমাণ নিয়ে অনেক সময় সারোগেট মা ও দম্পতির মধ্যে বিরোধ তৈরি হয়। আবার সারোগেট মা হতে যেয়ে চরম অবনতি হয়েছে অনেক নারী দেহের। তারপরও চলছে এ জন্মদান প্রক্রিয়া। একদিকে সন্তান জন্মদানের গর্ববোধ অন্যদিকে সারোগেট মা’দের অর্থ উপার্জন দুটোই যেন সমান তালে চলছে।

পশ্চিমবঙ্গ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে