Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (40 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ১০-৩১-২০১৮

উদ্বোধনের অপেক্ষায় ভোলা জেলার ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল

উদ্বোধনের অপেক্ষায় ভোলা জেলার ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল

ভোলা, ৩১ অক্টোবর- খুব শিগগিরই চালু হতে যাচ্ছে ভোলার ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল। চলতি বছরের নভেম্বর কিংবা ডিসেম্বর মাসের যে কোনো দিন হাসপাতালটি উদ্বোধন হতে পারে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

আর এটি চালু হলে জেলার ১৮ লাখ মানুষ চিকিৎসা সেবা পাবে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের আর ঢাকা-বরিশাল যেতে হবে না। নিজ জেলাতেই পাওয়া যাবে আধুনিক চিকিৎসার সব সুযোগ-সুবিধা।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, দ্বীপজেলা ভোলার মানুষের উন্নত চিকিৎসা সেবার কথা বিবেচনা করে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের একান্ত প্রচেষ্টায় ভোলাতে ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের অনুমোদন হয়। এরপর সদর হাসপাতাল চত্বরের ১৪ একর জমির ওপর ২০১৪ সালের দিকে ৪৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয় ৬তলা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়। 

এরইমধ্যে ভবনের ৯৭ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। আগামী মাসের মধ্যে বাকি তিন শতাংশ কাজ শেষ হলেই এটি উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুত হবে।

সূত্র আরও জানায়, এই হাসপাতালটিতে লিফট সুবিধা রয়েছে। জরুরি রোগী আনা-নেওয়ার জন্য দু’টি অ্যাম্বুলেন্স থাকবে। এছাড়া ৫৮ জন চিকিৎসক ও ৮০ জন নার্সের পদ সৃষ্ট করা হবে। 

এতে দু’টি মেডিসিন বিভাগ, দু’টি সার্জারি বিভাগ, একটি অর্থোপেডিক্স বিভাগ, একটি নাক-কান-গলা ও একটি শিশু বিভাগ, একটি স্কিন বিভাগ, একটি গাইনি বিভাগ, একটি পোস্ট অপারেটিভ বিভাগ, একটি ডায়রিয়া ও একটি কার্ডিওলজি বিভাগ থাকবে।

হাসপাতালে নিজস্ব জেনারেটর ও বিদ্যুতের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। হাসপাতালে গাইনি, জেনারেল সার্জারি, অর্থোপেডিক্স, চক্ষু ও নাক-কান-গলার অপারেশনের ব্যবস্থা রয়েছে।

জানা যায়, ১৮ লাখ মানুষের জন্য একমাত্র ভরসা ছিল ১০০ শয্যার ভোলা সদর হাসপাতাল। কিন্তু সেখানে চিকিৎসাক ও নার্সের সংকট লেগেই থাকতো। এছাড়া নানা জটিলতা ও আধুনিক সরঞ্জাম না থাকায় সব ধরনের চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হতো না। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল কিংবা ঢাকায় যেতো হয় রোগীদের। এতে একদিকে যেমন ভোগান্তি, অন্যদিকে নানা বিরম্বনায় পড়তে হতো রোগীদের। কিন্তু এখন আর মানুষকে চিকিৎসা সেবা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হবে না।

২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল চালু হলে খুব সহজেই দূর-দূরান্তের রোগীরাও চিকিৎসা সেবা নিতে পারবে। এটি এখন ভোলার মানুষের ভরসাস্থলে পরিণত হবে।

ভোলার সিভিল সার্জন ডা. রথীন্দ্র নাথ মজুমদার জানান, অল্প কিছুদিনের  মধ্যেই স্বাস্থ্য বিভাগকে ভবন বুঝিয়ে দেওয়া হলেই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হবে। প্রশাসনিক অনুমোদন হলেই জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে। এর পরেই উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করবে ভোলা ২৫০ শয্যার জেনালে হাসপাতালের কার্যক্রম।

এ বছরই হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হবে এটা মোটামুটি নিশ্চিত বলেও জানান তিনি।

সূত্র:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর
এইচ/১৫:৪৩/৩১ অক্টোবর

 

 

ভোলা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে