Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (50 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৯-০১-২০১৮

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বিএনপি-আ.লীগের সংঘর্ষ, আহত ২৫

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বিএনপি-আ.লীগের সংঘর্ষ, আহত ২৫

শরীয়তপুর, ০১ সেপ্টেম্বর- শরীয়তপুরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে হামলার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে। হামলায় দুপক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও ঢাকায় চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে পৌর এলাকার ধানুকায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন কালুর বাস ভবনে হামলার এ ঘটনা ঘটে।


স্থানীয় সূত্র জানায়, শনিবার বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান আয়োজন করে শরীয়তপুর জেলা বিএনপি। পৌর এলাকার ধানুকায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন কালুর বাস ভবনে এ অনুষ্ঠান চলছিল। বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ওই অনুষ্ঠানে হামলা করে। তখন বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। দুপুর ২টা পর্যন্ত দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে তারা। এতে দুপক্ষের ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়।

এদিকে দুপুর দেড়টার দিকে জেলা বিএনপির সভাপতি অনুষ্ঠানস্থল থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলে যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা পুনরায় তাকে ধাওয়া করে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত তিনি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে অবরুদ্ধ ছিলেন।

হামলায় আহতরা হলেন- জেলা যুবলীগের দফতর সম্পাদক জাহাঙ্গীর মাদবর, পৌরসভা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক প্রকাশ বন্ধুকছি, যুবলীগ কর্মী জয় মোল্যা, সবুজ মাদবর, ফরহাদ ঢালী, রিয়াদ হাসান মাল, জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব মোর্শেদ টিপু, পৌরসভা বিএনপির সহ-সভাপতি নয়ন সরকার, জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল খায়ের, ভেদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম- আহ্বায়ক হাসান হাওলাদার, জেলা মহিলা দলের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশিদা গনি, জেলা জাসাসের সহ-সভাপতি নিপা আক্তার, বিএনপি কর্মী শাহাদাৎ হোসেন ও জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরনের গাড়ির চালক নূর মোহাম্মদ।

জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরন বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠান করার জন্য পুলিশের অনুমতি নেয়া হয়েছে। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাদেরও বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারপরও অনুষ্ঠানে হামলা করার ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। আওয়ামী লীগ কর্মীদের হামলায় আমাদের ১৫ ব্যক্তি আহত হয়েছে।

জেলা যুবলীগের দফতর সম্পাদক জাহাঙ্গীর মাদবর বলেন, বিএনপির অনুষ্ঠানে কেউ হামলা করেনি। আমরা যুবলীগের কর্মী সভা করার জন্য জেলা স্টেডিয়ামের পাশে জড়ো হয়েছিলাম। তখন বিএনপির নেতা-কর্মীরা আমাদের ওপর হামলা করে। তাদের হামলায় আমাদের ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছে।

শরীয়তপুরের পালং মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক উৎপল বিশ্বাস বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কিছু সমস্যা হয়েছে এমন সংবাদ পেয়ে আমরা ছুটে আসি। সেখানে যুবলীগের এক পক্ষ ও বিএনপির এক পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পুলিশ যাওয়ার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।


তথ্যসূত্র: জাগো নিউজ২৪
আরএস/ ০১ সেপ্টেম্বর

শরীয়তপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে