Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯ , ৭ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৫-২৯-২০১৩

রাজধানী জুড়ে তাণ্ডব: সতর্ক পুলিশ, এপিসি টহল


	রাজধানী জুড়ে তাণ্ডব: সতর্ক পুলিশ, এপিসি টহল

ঢাকা, ২৮ মে- হরতালের আগেই রাজধানী জুড়ে তাণ্ডব শুরু হয়েছে। চোরাগোপ্তাভাবে মিছিল করে বাসে আগুন ও ভাঙচুরসহ ককটেল বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে হরতাল সমর্থকরা। এই তাণ্ডব ঠেকাতে রাজধানী জুড়েই সতর্কাবস্থায় রয়েছে পুলিশ। সাঁজোয়া যান এপিসিসহ গাড়ির টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে। অনেক স্থানেই ফুটপাতের দোকানপাটও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের আশঙ্কায় রাস্তায় কমে গেছে যানবাহন।

ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) আনোয়ার হোসেন বলেন, “হরতালের আগের দিন সহিংসতা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এপিসি ও গাড়ির টহল চলছে।”

তিনি বলেন, “এরপরও কিছু সহিংস ঘটনা ঘটছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছি।”

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে সারাদেশে বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোট বুধবার হরতাল আহবান করে।

তবে হরতালের আগের দিন মঙ্গলবার সকাল থেকেই রাজধানী জুড়ে হরতাল সমর্থকরা তাণ্ডব শুরু করে। তারা বিক্ষোভ মিছিলের নামে যানবাহন ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ করে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। পাশাপাশি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে চলেছে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, সর্বশেষ রাত সোয়া ন’টায় রামপুরা ব্রিজ ও বনশ্রীর রাস্তায় একটি যাত্রীবাহী লেগুনায় আগুন ধরিয়ে দেয় হরতাল সমর্থকরা।  

প্রত্যক্ষদর্শী বাবলু জানান, আট-দশজনের একটি দল লেগুনাটি রাস্তায় থামিয়ে সব যাত্রীকে নামিয়ে দেয়। এরপর লেগুনায় অগ্নিসংযোগ করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এর আগে দিনের শুরুতেই দলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিলের নামে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডা. দীপু মনির বাসার সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘট‍ায়। নীলক্ষেতে ৠাবের গাড়িতে আগুন দেওয়াসহ বিভিন্ন যানবাহনে আগুন দিচ্ছে।

রাজধানীর আরামবাগ, মতিঝিল, গুলশান ও মহাখালী এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে যানবাহনে আগুন দেয়।

ছাত্রদলের এমন তাণ্ডবে রাজধানী জুড়েই এক প্রকার আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। অনেকাংশ স্থানেই ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের আশঙ্কায় যানবাহন চলাচল কমে যায়।  

গুলশান জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার লুৎফুল কবির বলেন, “গুলশান জোনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। অনেক স্থানে ফুটপাত সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে প্রগতি সরণী এলাকার ফুটপাতের দোকানগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।”

রমনা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শিবলি নোমান বলেন, “আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। পুরো এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।”

তিনি বলেন, “মালিবাগ, মগবাজার এলাকায় এপিসির টহল চলছে।”

ভাটারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ জিয়াউজ্জামান বলেন, “আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে টহল জোরদার করা হয়েছে। নতুন বাজার এলাকায় ফুটপাত তুলে দেওয়ার সময় বাধা দিলে ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।”

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকরতা (ওসি) ইকবাল হোসেন বলেন, “বাড্ডা থানার মধ্যবাড্ডা, লিংক রোড, উত্তর বাড্ডা ও মেরুল বাড্ডা এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। চলছে এপিসি টহলও।”

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে