Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯ , ৬ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (42 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-১৮-২০১৩

অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে আপলোড গতি কমালো বিটিআরসি!


	অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে আপলোড গতি কমালো বিটিআরসি!

ঢাকা, ১৮ মে- বাংলাদেশে অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা বন্ধে ইন্টারনেট আপলোড গতি ৭৫ শতাংশ কমানোর নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বৃহস্পতিবার বিটিআরসি ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়েগুলোকে (আইআইজি) এ নির্দেশনা দেওয়ার পর থেকেই ইন্টারনেট আপলোড স্পিড কমে গেছে। ফলে ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ফ্রিল্যান্সাররাসহ অনেকেই বিপাকে পড়েছেন। এদিকে আপলোড গতি বৃদ্ধি করার জন্য ফোনে শত শত অনুরোধ আসছে বিটিআরসি, আইআইজি, আইএসপি ও পত্রিকা অফিসগুলোতে।
 
বিটিআরসি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস বিভাগ থেকে পাঠানো ওই নির্দেশনায় আইআইজি প্রতিষ্ঠানগুলোকে বলা হয়, ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর (আইএসপি) আপলোড স্পিড সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ হবে। তবে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সফটওয়্যর কোম্পানি, ট্রাভেল এজেন্ট, দূতাবাস ও সরকারি প্রতিষ্ঠান এর আওতা মুক্ত থাকছে। এসব প্রতিষ্ঠানের নাম ৭ দিনের মধ্যে বিটিআরসিকে দেয়ার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।
 
পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত এ নির্দেশনা বহাল থাকবে বলে জ্যোষ্ঠ সহকারী পরিচালক সাবিনা ইসলাম স্বাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।
 
দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার থেকে এ নির্দেশনা কার্যকর হওয়ার পর গ্রাহকরা আপলোড স্পিড কম পাচ্ছেন।
 
এদিকে এ নির্দেশনার ফলে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো আপলোড গতি ৭৫ শতাংশ কমিয়ে এনেছে। ফলে ফেসবুকে ছবি আপলোড, স্কাইপিসহ অন্যান্য ভিডিও চ্যাটে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সাধারণ ব্যবহারকারীদেরও।
 
তবে এ নির্দেশনার ফলে ইন্টারনেট ডাউনলোড গতিতে কোন প্রভাব পড়ছে না বলে জানা গেছে।
 
এ প্রসঙ্গে বিটিআরসির উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সাধারণত ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের এর থেকে বেশি স্পিড প্রয়োজন হয় না। এই স্পিড দিয়েই খুব সহজেই ডাউনলোড করা যায়। তবে আপলোড স্পিড কম রাখলে ভয়েস কলে একটু সমস্যা হয়। অর্থাৎ ইন্টারনেটের মাধ্যমে যারা ভয়েস কল করেন বা অবৈধ ভিওআইপি করেন তাদের সমস্যা হবে। তবে সাধারণ গ্রাহকদের এ ক্ষেত্রে তেমন একটা সমস্যা হবে না।
 
অনেকেই অভিযোগ করে জানিয়েছেন, ইন্টারনেট গ্রাহকদের আপলোড স্পিড কমিয়ে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ করায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ফ্রিল্যান্সাররা। এর মধ্যে অনেক ফ্রিল্যান্সার ভিডিও এডিটিং, থ্রিডি মডেলিংসহ অনেক বড় মাপের ফাইল আপলোডসহ নানা কাজ করেন। সাধারণত এডিট করা একটি ভিডিও এর সাইজ ১ গিগা বা তার চেয়েও অনেক বেশি হয়।
 
আগে যেখানে একজন ফ্রিল্যান্সার ১ এমবিপিএস এর ইন্টারনেট ব্যবহার করে ডাউনলোড স্পিড পেয়েছেন ১০০- ১২০ কেবিপিএস এবং আপলোড স্পিড থাকতো ২০-৩০ কেবিপিএস। এখন সেটা কমিয়ে ২৫ শতাংশ করায় আপলোড স্পিড পাবে ৫-৭ কেবিপিএস। এতে একদিকে যেমন সময় নষ্ট হবে অন্য দিকে কাজ করার আগ্রহ হারাবে ফ্রিল্যান্সাররা।
 
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতবছরও প্রায় ৩০০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা এনেছে ফ্রিল্যান্সাররা। বর্তমানে দেশে কয়েক লাখ ফ্রিল্যান্সার কাজ করছেন, যাদের প্রতিদিন গড়ে ইনকাম করছেন এক কোটি টাকার ওপরে। কিন্তু ইন্টারনেট আপলোড গতি কমিয়ে দেওয়াতে তারা হতাশা প্রকাশ করেছেন।
 
ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আকতারুজ্জামান মঞ্জু বিটিআরসির নির্দেশনার বিষয়ে বলেন, এ নির্দেশনার পর গ্রাহকদের কাছ থেকে আপলোডসহ নানা অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। গ্রাহক স্বার্থেই এ নির্দেশনা প্রত্যাহার করা উচিত। এ ব্যাপারে বিটিআরসির চেয়ারম্যানকে আপলোড গতি ৬০ থেকে ৭০ শতাংশের মধ্যে রাখার সুপারিশ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।
 
আইএসপিগুলো জানিয়েছে, আইআইজি থেকে তারা ডুপ্লেক্স ব্যান্ডইউথ কিনে থাকে, যাতে আপলোড ও ডাউনলোড সমানভাবে হয়। বর্তমানে বাংলাদেশে ৩৬টি আইআইজি প্রতিষ্ঠান ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। আইআইজি প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যন্ডউইথ নিয়ন্ত্রণ ও পাইকারি ব্যান্ডইউথ আইএসপিদের কাছে বিক্রি করে এবং আইএসপিগুলো গ্রাহক পর্যায়ে এ সেবা দিয়ে থাকে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে