Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ , ২০ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (14 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৪-০৫-২০১৩

২০০ কোটি টাকার ক্ষতি করেও পুরস্কৃত বিমানের পরিচালক


	২০০ কোটি টাকার ক্ষতি করেও পুরস্কৃত বিমানের পরিচালক

ঢাকা, ৫ এপ্র্রিল- চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর মাধ্যমে বিমানে এয়ারবাস কেলেঙ্ককারির হোতা প্রকৌশল বিভাগের পরিচালক আসাদুজ্জামানকে পুরস্কৃত করা হলো।

এয়ারলাইন্সের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন আহমেদের প্রিয়ভাজন হওয়ার কারণেই আসাদুজ্জামানের চাকরির মেয়াদ তিন বছর বাড়ানো হলো।  

বৃহস্পতিবার রাতে বিমান পরিচালনা পর্ষদের সভায় আসাদুজ্জামানের চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদিত হয়। ২০০ কোটি টাকা লোকসানের অন্যতম নায়ক হয়েও আসাদুজ্জামান পুরস্কৃত হওয়ায় বিমানে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। অন্যদিকে, আরেক অর্থ পরিচালক কামাল উদ্দিন আহমেদের চাকরির মেয়াদ বাড়ানো হয়নি। তাকে শুধুমাত্র তিন মাসের জন্য কাজ চালিয়ে যেতে বলা হয়েছে।  

সূত্র জানায়, ৩০ মার্চ অবসরে যান আসাদুজ্জামান। আর ৩০ মে চাকরির মেয়াদ শেষ হচ্ছে কামাল উদ্দিন আহমেদের। চাকরির মেয়াদ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেতনও বেড়েছে আসাদুজ্জামানের।

বিমান সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে, বিমান পরিচালনা পর্ষদের সদস্যের নেতৃত্বে একটি কমিটির সুপারিশেই আসাদুজ্জামানের চাকরির মেয়াদ বেড়েছে। কমিটির নেতৃত্ব দেন অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ। কিন্তু এই কমিটি কামাল উদ্দিন আহমেদের চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর সুপারিশ করেনি।

সূত্র জানায়, আসাদুজ্জামানের বেতন ছিল এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা। চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর পাশাপাশি তার বেতন ২৫ হাজার টাকা বাড়ানো হয়েছে। আসাদুজ্জামান বিমানবাহিনী থেকে ডেপুটেশনে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের চাকরিতে এসেছিলেন। ৩০ মার্চ বিমানবাহিনীতে তার চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ার পাশাপাশি বিমানেও চাকরির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।

জানা গেছে, বিমান চেয়ারম্যানের পঞ্চপান্ডবের একজন এই আসাদুজ্জামান। আর এ কারণেই চেয়ারম্যানের বিভিন্ন কাজ বাস্তবায়নের অন্যতম কান্ডারি প্রকৌশল পরিচালক। এজন্য প্রিয়ভাজন আসাদুজ্জামানকে চুক্তি ভিত্তিতে নিয়োগ দিতেই উঠেপড়ে লেগেছিলেন জামাল উদ্দিন আহমেদ।

বিষয়টি নিয়ে যাতে কেউ সন্দেহ করতে না পারে এজন্য পরিচালনা পর্ষদের সদস্যকে দিয়ে একটি কমিটি করিয়ে চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর কৌশল নিয়েছেন তিনি। আর এতে আসাদুজ্জামানের বাইরে কামাল উদ্দিনের নামও রাখা হয়েছিল যাতে তার ছলচাতুরি কেউ ধরতে না পারে।

এ বিষয়ে বিমানের এক প্রকৌশলী নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, ‘‘বিমানের এতো বড় ক্ষতি করার পর তার শাস্তি তো হয়ইনি। উল্টো আসাদুজ্জামানকে বাঁচাতে জামাল উদ্দিন আহমেদ কোনো ধরনের নিয়মনীতি না মেনে চাকরিচ্যুত করেন বিমানের উপ-প্রধান প্রকৌশলী ওয়াসিক উদ্দিনকে’’।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে