Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ , ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (72 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০১-২৬-২০১৮

অখণ্ড বাংলার দ্বিতীয় দশকের সংকলন

হেনরী স্বপন


অখণ্ড বাংলার দ্বিতীয় দশকের সংকলন

ইতিহাস-ঐতিহ্য, সময় কিংবা দশকীয় লেবেলে সাজানোই হচ্ছে সংকলন সৃষ্টির উদ্দেশ্য। বাংলা কবিতার আগ্রহী পাঠক, ইতিহাস সচেতন গবেষক এবং কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচির প্রয়োজনে খুব বেশি সমাদৃত হয়ে আছে এসব সংকলন গ্রন্থের কদর। তাই, পৃথিবীর সব ভাষার লেখকের ক্ষেত্রে এ-জাতীয় সংকলন গ্রন্থ সম্পাদনা করেছেন বিরল প্রতিভার অধিকারী কিছু কবি-লেখক ও সংকলক। কেননা, এ কাজের ঐতিহাসিক মূল্যও অনেক। যুগে যুগে, দেশে দেশে তেমনটিই ঘটে চলেছে। যেমনটি অহরহ ঘটছে আজকাল, স্বল্প আয়তনের দশকভিত্তিক সংকলন সম্পাদনার দুর্নিবার আগ্রহ এবং এসব গ্রন্থের শিরোনামে তেমনটিই ফুটে উঠছে। সেই দশকের যারা অন্তত উল্লেখযোগ্য ভাবুক এবং প্রধান কবি-লেখক, তাদের ব্যক্তিত্ব ও বিভা, কাব্যের রীতি-রূপ কিংবা মর্মের গভীরতা আরও নতুনভাবে জানার-বোঝার জন্য, বিদগ্ধ সম্পাদক-কৃত কবিরাই এগুলো করছেন। যদিও আজ পর্যন্ত কারও সংকলনই ত্রুটিমুক্ত বিতর্কবিহীন হয়নি। রাজনৈতিক পক্ষপাত, বন্ধুকৃত্য এবং গোষ্ঠীপ্রীতির কারণে এসব তর্ক-বিতর্ক ঘনীভূত হয়েছে।

তবুও, শেষ পর্যন্ত অরবিন্দ চক্রবর্তী সম্পাদিত তার 'অখণ্ড বাংলার দ্বিতীয় দশকের কবিতা' সংকলনের সম্পাদকীয় বয়ানে লিখেছেন, 'অখণ্ড শব্দটি ব্যবহার করার পেছনে যুক্তি হচ্ছে, আমরা যারা বাংলা ভাষায় কথা বলি- এ অঞ্চলের মানুষের আচার-আচরণ, পরিবেশ-প্রকৃতি ও মানবিক বোধ-অনুভূতিগুলো প্রায় এক। ফলে, প্রকাশবৈচিত্র্যে কাব্যভাবনাও প্রায় অভিন্ন হবে এটাই স্বাভাবিক। তাই আমরা চেয়েছি প্রবাসী বাঙালিসহ বিশ্বের যে-প্রান্তেই বাংলাভাষী রয়েছে, বাংলা ভাষার চর্চা হয়, তাদের থেকে দ্বিতীয় দশকের কবিদের কবিতা এক মলাটে আনতে। যেহেতু সারা পৃথিবীর বাংলাভাষীরা একটি অখণ্ড বলয়, তাদের কবিতা পাঠকের সামনে তুলে ধরতে, সমকালীন/সমবয়সী কবিরা কী ধরনের লিখতে চাচ্ছে, আগামী দিনের বাংলা কবিতার গতিপ্রকৃতি; কোনো বিশেষ বাঁক নিচ্ছে কিনা- এসব জানাতে। একজন কবিতা লিখিয়ে/কবিতাকর্মী হিসেবে, ভেতরে একটা সুপ্ত বাসনা থাকেই, বাংলা কবিতা আরো বিস্তার লাভ করুক, ছড়িয়ে পড়ুক বিশ্বে।'

সংকলনটিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন বাংলাদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরা ও প্রবাসী বাংলাভাষী একবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয় দশক কালখণ্ডের ২২১ জন কবির নির্বাচিত কবিতা।

এর পরও বলতে দ্বিধা নেই, অখণ্ড বাংলার দ্বিতীয় দশকের কবিতা সংকলনের সব কবিতা পাঠে একটি বৈশিষ্ট্য দারুণভাবে ফুটে উঠেছে। আর তা হচ্ছে, বাংলা কবিতা যে আজকাল বড় বেশি জীবনঘনিষ্ঠ নয়- এমন দুর্নাম এড়াতে সম্পাদক খুব সচেতন ছিলেন। তাই, তিনি অনেক বেশি আবেগনির্ভর, মননধর্মী ও উন্মুখর চিত্রকল্পপ্রবণ কবিতা বাছাইয়ে অনেকটাই সার্থকতার পরিচয় দিয়েছেন। 

এ সংকলনের তালিকা থেকে অনেকের কবিতার উদ্ধৃতি দেওয়া যেত। বলা যায়, অধিকাংশ কবির কবিতারও আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। তা-ও বলা হয়, এখনকার কবিতার জগৎ বড়ই নিষ্প্রভ। বড় মাপের কবি কোথায়! অবশ্য ধরে নেওয়া যায়, কবিতার ক্ষেত্রে এই যে নৈরাশ্যবাদিতা, এই যে শূন্যতা; এরই পূরণ ঘটবে হয়তো ২২১ জনের নির্বাচিত কবিতার মধ্য থেকেই। হয়তো এদের ভেতর থেকেই কেউ একজন বা কয়েকজন বড় মাপের কবি হয়ে বেরিয়ে আসবেন। হয়তো এদের হাতেই থাকবে বাংলা কবিতার সেই হারানো ক্রিয়েটিভ গৌরবের আদর্শ।

এ সংকলনে অনায়াসেই যুক্ত হতে পারতেন কিংবা যুক্ত রাখা উচিত ছিল আরও অনেককেই। যারা কেবল নানা কারণে বাদ পড়ে গেছেন। আবার, কেউ হয়তো বাদ পড়েছেন দল-গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের কারণে সিদ্ধান্তে না আসতে পারায়। কাউকে বাদ দেওয়া হয়েছে মিথ্যাবাদী রাখালের গোয়ালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে মৌলবাদে দীক্ষিত গো-আদর্শের কারণে। বলা যায়, এর সবকিছুই নির্ধারিত হয়েছে এ সংকলনের নিজস্ব আইডিওলজিতে।

তবুও হয়তো অখণ্ড বাংলার দ্বিতীয় দশকের কবিতা সংকলনটি কবি ও সম্পাদক অরবিন্দ চক্রবর্তীর বিশ্বাস, বৈদগ্ধ্য উদ্দেশ্যের নিরপেক্ষতায় যতটাই পবিত্র হোক না কেন; অদ্যাবধি এ-রকম কোনো সংকলনই আজ পর্যন্ত ত্রুটিমুক্ত, বিতর্কহীন হয়ে উঠতে পারেনি। ফলে এ ক্ষেত্রেই বা ব্যতিক্রম ঘটবে কেন? এটাই মূলত একটা সংকলনের শক্তি; সীমাবদ্ধতা নয়। এ সংকলনে দুটি মূল্যায়নধর্মী গদ্য আছে; লিখেছেন কবি ফেরদৌস মাহমুদ ও জুবিন ঘোষ। 


সম্পাদনা
অরবিন্দ চক্রবর্তী
প্রকাশনী
বেহুলাবাংলা
প্রচ্ছদ
শতাব্দী জাহিদ
মূল্য ৩৫০ টাকা

এমএ/০৩:৫৫/২৬ জানুয়ারি

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে