Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ , ৬ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (31 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-১৮-২০১৭

সাতক্ষীরার ৪ আসনে ভাগ চায় জাপা-জামায়াত

শেখ তানজির আহমেদ


সাতক্ষীরার ৪ আসনে ভাগ চায় জাপা-জামায়াত

সাতক্ষীরা, ১৮ জুলাই- আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাতক্ষীরায় আসন ভাগাভাগিতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে ছাড় দিতে চায় না শরীক দলগুলো। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার লক্ষ্যে এরই মধ্যে প্রচারণায় নেমেছেন জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জামায়াত ও জাসদের একাধিক নেতা। 

বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলে আওয়ামী লীগ যদি ১৪ দল বা মহাজোটগতভাবে নির্বাচন করে, সেক্ষেত্রে অথবা আওয়ামী লীগকে পরাস্ত করতে বিএনপি-জামায়াতকে একসঙ্গে নির্বাচনে অংশ নিলে কঠিন হয়ে পড়বে সাতক্ষীরার চারটি আসনের মনোনয়ন হিসাব। 

এক্ষেত্রে ওয়ার্কার্স পার্টি বা জাতীয় পার্টিকে (জাপা) ছাড় দেয়ার কারণে আওয়ামী লীগের অনেকেই যেমন মনোনয়ন বঞ্চিত হবেন, তেমনি বাদ যাবে না বিএনপির বাঘা-বাঘা নেতাও। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ১৪ দল বা মহাজোটের শরীক হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিলে সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসন চাইবে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি। সেক্ষেত্রে ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনয়ন চাইবেন দলটির পলিট ব্যুরোর সদস্য, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। 

একইভাবে সাতক্ষীরা-১ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে চান জাপা চেয়ারম্যান এরশাদের তথ্য উপদেষ্টা, সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত। 

এ আসনে ছাড় দিতে চায় না জামায়াতও। প্রতীক জটিলতা না কাটলেও স্বতন্ত্র অথবা বিএনপির প্রতীকে সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চান জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যক্ষ ইজ্জতউল্যাহ। 

তাই জোটগতভাবে নির্বাচনে অংশ নিলে সাতক্ষীরা-১ আসনে মনোনয়ন বঞ্চিত হতে পারেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতারা। 

সাতক্ষীরা-২ (সাতক্ষীরা সদর) আসনেও রয়েছে একই জটিলতা। 

এই আসনে জাতীয় পার্টির চার নেতা চাইবেন দলীয় মনোনয়ন। 

এরা হলেন কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক মাতলুব হোসেন লিয়ন, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু ও সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার জাহিদ তপন। 

তবে, সাতক্ষীরা-২ আসনে প্রার্থী সংকটে ভুগতে পারে জামায়াত। দলটির এই আসনের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য খালেক মণ্ডল যুদ্ধাপরাধ মামলায় বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। 

সাতক্ষীরা-৩ (আশাশুনি, দেবহাটা ও কালিগঞ্জের একাংশ) আসনে মনোনয়ন চাইবেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট স ম সালাউদ্দিন। 

এই আসনে জামায়াতের মনোনয়ন চাইতে পারেন জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর মুহাদ্দিস রবিউল বাসার। 

সাতক্ষীরা-৪ আসনে মনোনয়ন চাইবেন জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য এইচএম গোলাম রেজা, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সাত্তার মোড়ল, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সম্পাদক খালেদুর রহমান ও কালিগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মাহবুবুর রহমান।

সাতক্ষীরা-৪ আসনে জামায়াতের মনোনয়ন চাইবেন দলটির সাবেক সংসদ সদস্য গাজী নজরুল ইসলাম। 

এ আসনে প্রার্থী দিতে পারে জাসদ (হাসানুল হক ইনুর জাসদ)। সেক্ষেত্রে দলের মনোনয়ন চাইবেন জেলা জাসদের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী। 

তাই এ আসনেও বিএনপি এবং আওয়ামী লীগকে মনোনয়ন জটিলতায় পড়তে হতে পারে। 

এ প্রসঙ্গে ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য, সাতক্ষীরা-১ আসনের এমপি মুস্তফা লুৎফুল্লাহ জানান, যখন আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা জামায়াতের তাণ্ডবে ঘরে থাকতে পারতো না, ঠিক তখনই আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলাম। সেই ভয়ঙ্কর পরিবেশ থেকে নেতাকর্মীদের ঘরে ফেরাতে আপ্রাণ চেষ্টা করে সফল হয়েছি। এখন অবস্থান আরও শক্ত হয়েছে। এবারও সাতক্ষীরা-১ আসন চাইবে ওয়ার্কার্স পার্টি। 

জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু জানান, বিগত সময়ে সাতক্ষীরা-২ ও সাতক্ষীরা-৪ আসনে জাতীয় পার্টি থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিল। তাই এবারও সাতক্ষীরার চারটি আসনের সবকটিতে প্রার্থিতা চাইবে জাতীয় পার্টি। আর সেভাবেই প্রচারণা শুরু করা হয়েছে। 

অপরদিকে, জেলা জামায়াতের দপ্তর সম্পাদক আজিজুর রহমান জানান, সাতক্ষীরা-১ আসনে দলটির প্রার্থী মোটামুটি চূড়ান্ত। আর অন্য তিনটিতে প্রার্থী সিলেকশনের কাজ চলছে। 

প্রসঙ্গত, সাতক্ষীরার চারটি আসনে আওয়ামী লীগের ৩৬ জন ও বিএনপির ১২ জন প্রার্থী মনোনয়ন পাওয়ার আশায় প্রচারণা চালাচ্ছেন।

সাতক্ষীরা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে