Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ৮ এপ্রিল, ২০২০ , ২৫ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.4/5 (32 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-২২-২০১২

গভীর সমুদ্র বন্দরে বিনিয়োগে আগ্রহী আরব আমিরাত

শেখ শাহরিয়ার জামান



	গভীর সমুদ্র বন্দরে বিনিয়োগে আগ্রহী আরব আমিরাত

ঢাকা, নভেম্বর ২১- সোনাদিয়ায় গভীর সমুদ্র বন্দর স্থাপনসহ বন্দর সংশ্লিষ্ট চারটি বড় প্রকল্পে বিনিয়োগের আগ্রহ দেখিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। 

 

অন্য যে তিন ক্ষেত্রে আমিরাত বিনিয়োগে আগ্রহী, সেগুলো হচ্ছে- চট্টগ্রামের নিউ মুরিং কন্টেইনার টার্মিনাল নির্মাণ, মংলা বন্দরের উন্নয়ন এবং ঢাকায় রেল সংযোগসহ ইনল্যান্ড কন্টেইনার ডিপো স্থাপন। 
 
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক নজরুল ইসলাম বুধবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সম্প্রতি আমরা সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে এই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পেয়েছি। তারা গভীর সমুদ্রবন্দর উন্নয়নসহ জাহাজ শিল্পের চারটি বৃহৎ প্রকল্পে বিনিয়োগের আগ্রহের কথা জানিয়েছে। 
 
“আমরা প্রস্তাবটি ইতিবাচকভাবেই গ্রহণ করছি এবং আশা করছি খুব শিগগিরই দেশটির মন্ত্রী পদমর্যাদার প্রতিনিধি দল ঢাকায় এসে আলোচনা করবে।” 
 
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালে দুবাই সফরে বাংলাদেশের অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগ করতে আরব আমিরাত সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। 
 
নজরুল ইসলাম জানান, সরকারি পর্যায়ে এই বিনিয়োগ হবে, তবে তা হবে আমিরাতের কোম্পানি ডিপি ওয়ার্ল্ডয়ের মাধ্যমে। আগামী ডিসেম্বরে দুই দেশের প্রাথমিক পর্যায়ের বৈঠক হতে পারে। 
 
“বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই জনশক্তি এবং বাণিজ্য ছাড়াও অন্যান্য খাতে মধ্যপ্রাচ্য থেকে বিনিয়োগ আনার চেষ্টা করছে,” যোগ করেন নজরুল। 
 
আমিরাত ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার দুটি বড় প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ৪০০ কোটি ডলার বিনিয়োগে আগ্রহের কথা জানিয়েছে।
 
নজরুল বলেন, “কাতার একটি এক হাজার মেগাওয়াটের এলএনজিচালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রে প্রায় দেড়শ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে। অন্যদিকে, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মানোন্নয়ন এবং আধুনিকায়নে তারা প্রায় দুইশ কোটি ডলার দেয়ার কথা জানিয়েছে।” 
 
কাতার সরকারের একটি প্রতিনিধি দল গত মে মাসে ঢাকায় এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি সই করে বলে জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা। 
 
তিনি আরো জানান, শাহজালাল বিমান বন্দরের চার ধাপে উন্নয়নের একটি বা সবগুলো প্রকল্পেই কাতার বিনিয়োগ করতে পারে।
 
বিমান বন্দরে আরো দুটি টার্মিনাল তৈরি, হ্যাংগার, কার্গো ভিলেজ এবং একটি সমান্তরাল রানওয়ে নির্মাণ হচ্ছে। 
 
এদিকে মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ বাহরাইনের বিনিয়োগ বাড়াতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি আগামী জানুয়ারিতে দেশটি সফরে যাচ্ছেন, ওই সফরে কয়েকটি চুক্তি সইয়ের কথা রয়েছে। 
 
নজরুল ইসলাম জানান, বাহরাইন পার্লামেন্টের স্পিকারের আগামী জানুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরে আসার কথা রয়েছে। 
 
এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা জানান, সরকার মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ থেকে বিনিয়োগ আনার চেষ্টা চালাচ্ছে। 
 
“মধ্যপ্রাচ্যে বড় ধরনের অর্থের যোগান রয়েছে, বাংলাদেশ চেষ্টা করলেই তা পেতে পারে। আর এটা বাংলাদেশের সামনে একটি নতুন দিগন্তের উন্মোচনে সহায়ক হবে,” বলেন তিনি। 
 

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে